BREAKING NEWS
রাজ্যে ভোট ১৮ই ফেব্রুয়ারি। গণনা ৩ মার্চ


  • নির্বাচন ঘোষণা অভূতপূর্ব চ্যালেঞ্জের মুখে দারিয়ে বাম নেতৃত্ব
  • সিপিআইএম থেকে বেরিয়েই বিস্ফোরক মন্তব্য নৃপেন সঙ্গী
  • ভুয়ো ভোটার নিয়ে পুনরায় নির্বাচন কমিশনে যাবে বিজেপি
  • রাজ্যে ভোট ১৮ই ফেব্রুয়ারি। গণনা ৩ মার্চ
  • http://www.agartalanewsexpress.com/news/topfive/get.php?id=1663
  • আইপিএফটির সঙ্গে জোট নিয়ে চূড়ান্ত আলোচনা গুয়াহাটিতে বৃহস্পতিবার
  • নির্বাচন ঘোষনার দিন বিজয় প্রতিজ্ঞা দিবস পালন বিজেপি
  • ত্রিপুরায় অনুসুচিত জাতি আইনের প্রয়োগ নিয়ে রাজ্য সরকারের স্পষ্টীকরণ
  • ত্রিপুরায় কৃষক আত্মহত্যার ঘটনা গোপন রাখার চেষ্টা
  • রাজ্যে দুটি পৃথক ঘটনায় মৃত ১, আহত ১
  • সরকারি উদ্যোগে তপশিলি জাতি অংশের উপর অত্যাচারের ঘটনা লোকানোর চেষ্টা
  • পলিট ব্যুরোর সদস্যরাই ত্রিপুরায় বিধানসভা নির্বাচনে সিপিআইএমের তারকা প্রচারক
  • তেলিয়ামুড়ার সিআইটিইউ পার্টি অফিসে অগ্নিসংযোগ
  • ভি ভি পেট নিয়ে পোলিং স্টেশনে স্টেশনে ভোটারদের নয়ে চলছে ভোটদানের মোহরা তেলিয়ামুড়ায়।
  • টেট উত্তীর্ণদের বিষয়ে নমনীয় সরকার, ১০,৩২৩ নিয়ে বিপাকে
  • চিটফান্ড ইস্যুতে ত্রিপুরায় ধেয়ে আসছে সিবিআই
  • রাজ্যে আবার বিজেপি কর্মী খুন, ধৃত অভিযুক্ত
  • ত্রিপুরায় কেন্দ্রীয় প্রকল্প বাস্তবায়নে রাজ্য সরকার উদাসিনঃ কেন্দ্রীয় রাষ্ট্রমন্ত্রী
  • ইজরাইল ইস্যুতে কেন্দ্রীয় সরকারকে সিপিআইএমের আক্রমণ
  • রাজনাথ সিং এর সঙ্গে অজিত দোভাল এবং কৃষ্ণ গোপালজির বৈঠক ঘিরে সিপিআইএমের তীব্র প্রতিক্রিয়া
  • ৪০ মাদ্রাসা শিক্ষকের বকেয়া টাকা মেটাচ্ছেন বিজেপির সভাপতি
  • সর্বোচ্চ আদালতের বিচারপতির সাংবাদিক সম্মেলনে কারোর মুখ না খোলাই শ্রেয় বললেন বার কাউন্সিল অফ ত্রিপুরার চেয়ারম্যান
  • রাজধানী আগরতলা থেকে প্রকাশ্যে টাকা ছিনতাই
  • নির্বাচনী কাজে দায়িত্ব প্রাপ্তদের মধ্যে ব্যাপক রদবদলের এবং দায়িত্ব চ্যুতির সম্ভাবনা
  • ভুয়ো ভোটার নিয়ে তৎপর নির্বাচন কমিশন

ইক্সক্লোসিভ ভিডিও

ঘরেই বানিয়ে নিন লাইটিং লেন্টার্ন

ত্বকের উজ্বলতার জন্য ২০টি টিপস

ডেনমার্কে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম লম্বা ডিম! দেখুন কীভাবে লম্বা ডিম পাড়ে মুরগী

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

স্পট লাইট

00310
0057
0057
0057
0057
কান্নায় ভেজা ঝাপসা চোখ খোজে সন্তানকে

আগরতলা ২১শে সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): আদর্শ কলোনির বাসিন্দা সাধনা দেবী যার চোখের দৃষ্টি এমনিতেই ঝাপসা, তায় কান্নার জলে এখন সব সময়ই বাষ্প-চোখ। একটু পেছন দিকে তাকানো যাক। আর পাঁচজনের মত উনিও একটি সুখের সংসার করতে চেয়েছিলেন। উনার তিন ছেলে ও এক মেয়ে। যদিও উনার স্বামী গত হয়েছেন অনেকদিন আগেই। সাধনা দেবীর তিন ছেলেই বিয়ে করে সংসার করেন। সাধনা দেবীর বড় আশা ছিল ছেলের বউ তো মেয়েরই মতো। তাই যত্ন আত্তিও নিশ্চয়ই মিলবে। কিন্তু অত সুখ সাধনা কপালে নেই। পোরা কপাল সাধনা দেবীর। ভাত কাপড়ের বদলে জুটতে লাগল দিবা রাত্রি শুধু অপমান শব্দ গুঞ্জনা। সাথে সাথে বোনাস হিসাবে ছিল লাথি, মুখ ঝামটা, ঝাঁটার বাড়ি। এত কিছুর পরও 'অ বুড়ি মরিস না ক্যান'। কথা বলতেই চোখ ভরে যেত জলে। আর বলতো সত্যি আমার মরণ হয় না কেন। বর্তমানে সাধনাদেবীর বাসস্থান জিবি হাসপাতালের যাত্রী শেডের খোলা চাতালে। উনার এই বর্তমান বাসস্থানটিও কিন্তু উনার তিন ছেলের দৌলতে পাওয়া। চিকিৎসার কথা বলে মাকে হাসপাতালে নিয়ে এসেছিল। মারের চোটে পাঁজরের দিকটায় ব্যথা হচ্ছিল। ঐ ব্যাথার কথা বলতেই উনার গুণধর ছেলেদেরকে আইডিয়া দিল বউয়েরা। 'হাসপাতালে ডাক্তার দেখামু কইয়া লইয়া যাও। ওইখানেই রাইখ্যা আইও। আপদ যাইব'। আর সেই মোতাবেক কাজ করল সাধনা দেবীর তিন বাধ্য ছেলে। শেডে এই কয়দিন অন্য মানুষজনই সাধনা দেবীকে এটা ওটা দিচ্ছেন। কিছু দিতে গেলেই এক চিলতে হাসি খেলে যাচ্ছে সাধনা দেবীর মুখে। শুধু উনার একটাই প্রশ্ন হ্যাঁ গা, তুমি আমার ছেলেদের চেন? উনার এখনো বিশ্বাস উনার ছেলেরা উনার কাছে আসবেন উনাকে মা বলে ডাকবেন। মায়ের মন। গর্ভে যে ধরেছিলেন একদিন।


Copyright © 2017 আগরতলা নিউজ এক্সপ্রেস. All Rights Reserved.