• আরএসএস প্রচারকদের অপহরণ কান্ডের তদন্তে গঠিত সিট
  • পথের ধারে শিশুর মৃতদেহ ঘিরে চাঞ্চল্য
  • বিদ্যালয় শিক্ষায় শিক্ষক নিয়োগে জটিলতা কাটাতে কেন্দ্রীয় হস্তক্ষেপ চাইল রাজ্য
  • বাম জামানায় কেলেঙ্কারির তদন্তে রাজ্যে আসছে সিবিআই
  • দেবাদিদেব মহাদেবের বাবা গড়িয়া রূপের রাজসিক শাক্তমতে পূজা ত্রিপুরায়
  • অক্ষয় তৃতীয়ার উপলক্ষে জমজমাট ভিড় পি.সি. চন্দ্র জুয়েলারিতে
  • বাম নিয়ন্ত্রণ মুক্ত হল টিসিএ
  • কাল বৈশাখীর তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড কল্যাণপুর
  • সুপ্রিয়া মগ মৃত্যুর তদন্ত শুরু সিটের
  • জলাশয়ের স্রোতে মৃত্যু এক শিশুর
  • হত্যা নয় আত্মহত্যাই করেছেন সিপিআইএম নেতারা
  • আনারস চাষিদের সঙ্গে সরাসরি কথা বললেন মন্ত্রিসভার সদস্যরা
  • ত্রিপুরায় রোহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশ জারি, শিশু ও মহিলা ধৃত ১৮
  • খুব শীঘ্রই চালু হচ্ছে আগরতলা-দেওঘর এক্সপ্রেস ট্রেন
  • সর্বোচ্চ আদালতের বিচারপতির মৃত্যু মামলা ঘিরে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর বিরোধীদের কটাক্ষ
  • সাব্রুমে তরল গ্যাসীয় উদগিরন জারি
  • নেশা কারবারিদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেবার ইঙ্গিত মুখ্যমন্ত্রীর
  • খোয়াইয়ের সিপিআইএম কার্যালয় গুলিতে শ্মশানের স্তব্ধতা
  • আবার বিশেষ সহায়তার জন্য দিল্লি যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী
  • রাজ্যের রেল গুলিতে চালু হচ্ছে ই-কেটারিং পরিষেবা
  • সাংবাদিকদের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করবে না বর্তমান সরকার: মুখ্যমন্ত্রী
  • মহাভারত যুগে ইন্টারনেট, মুখ্যমন্ত্রীর পাশে দাঁড়ালেন রাজ্যপাল
  • পুষ্পবন্ত প্রাসাদ রূপ নেবে আধুনিক সংগ্রহ শালায়
  • পুজা অর্চনার পর নতুন রাজভবনের দারোঘাটন
  • সাব্রুমে মাটি থেকে লাভা নিঃসরণ, আতঙ্ক চরমে

ইক্সক্লোসিভ ভিডিও

ঘরেই বানিয়ে নিন লাইটিং লেন্টার্ন

ত্বকের উজ্বলতার জন্য ২০টি টিপস

ডেনমার্কে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম লম্বা ডিম! দেখুন কীভাবে লম্বা ডিম পাড়ে মুরগী

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

স্বাস্থ্য

00310
0057
0057
0057
0057
হৃদরোগ ও ফুসফুস জনিত রোগে ভারতে মৃত্যুর সংখ্যা উল্লেখযোগ্য : আইসিএমআর

নয়াদিল্লি, ২৯ নভেম্বর (এ.এন.ই ): সম্প্রতি আইসিএমআর-এর একটি সমীক্ষায় উঠে এসেছে, ভারতের অপেক্ষাকৃত ধনী রাজ্যগুলি যেমন পঞ্জাব, হরিয়ানা, তামিলনাডুতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা অনেকটাই বেশি। পঞ্জাবে যেখানে হৃদরোগজনিত সমস্যায় প্রতি ১ লাখ মানুষে মৃত্যুর সংখ্যা ২৬১, সেখানে পশ্চিমবঙ্গও এই সংখ্যাটা খুব কম নয়। হার্ট ও ব্রেন স্ট্রোকে মৃত্যুর সংখ্যা ২৫০-এর কাছাকাছি। অন্যদিকে, সিওপিডিতেও মৃত্যুর সংখ্যা এরাজ্যে প্রতি লাখে ৪৮ জন। হৃদরোগে আক্রান্তের সংখ্যাটা যেমন পঞ্জাব, হরিয়ানা বা তামিলনাডুর মতো রাজ্যে বেশি, তেমনই দূষণে উত্তরপ্রদেশ, দিল্লি, বিহারের মতো জায়গায় মৃত্যুর সংখ্যা উল্লেখ্যযোগ্য। প্রতি এক লাখ জনসংখ্যায় দিল্লি, উত্তরপ্রদেশের মতো রাজ্যে বছরে মৃত্যু হয় ৮০ থেকে ১০০ জনের। অন্যদিকে, বায়ুদূষণের ফলে হাঁপানি, ফুসফুসজনিত রোগে পশ্চিমবঙ্গে মৃতের সংখ্যা ২৬-এ আশপাশে। ডায়রিয়াতেও এরাজ্যে মৃত্যুর হার অনেকটাই কম। ওড়িশা, ছত্তিশগড়, ঝাড়খণ্ডের মত রাজ্যগুলিতে এই রোগে মৃতের সংখ্যা ২০০ ছাড়ায়। পশ্চিমবঙ্গে জলবাহিত রোগে মৃত্যুর পরিসংখ্যানটাও উল্লেখযোগ্য ভাবে কম। এখানে একলাখে মাত্র ৩৮ জনের মৃত্যু হয় এই রোগের প্রভাবে। এমনই পরিসংখ্যান জানাচ্ছে সরকারি সংস্থা ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ(আইসিএমআর)। তবে এখানেই শেষ নয়, আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য দিচ্ছে ওই সংস্থা। মৃত্যুর একাধিক কারণ থাকে। তবে, এর মধ্যে হৃদরোগ ও ফুসফুস জনিত রোগে ভারতে মৃত্যুর সংখ্যা উল্লেখযোগ্য।


Copyright © 2017 আগরতলা নিউজ এক্সপ্রেস. All Rights Reserved.