• মামার বাড়িতে এসে জলে তলিয়ে গেল এক শিশু
  • আজ মহাষষ্টি, দেবীর অধিবাস
  • পুজোতে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা রাজধানী আগরতলায়
  • রক্তদান শিবির অনুষ্ঠিত শান্তিবাজারে
  • গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু, তদন্তে পুলিশ
  • ম্যালেরিয়ায় মারণ থাবায় এক শিশুর মৃত্যু
  • নর্থ ইস্ট ফিনান্স ব্যাঙ্কের মহিলা ম্যানেজারের বিরুদ্ধে ১৭ লক্ষ টাকা গায়েবের অভিযোগ
  • চতুর্থীতেই জনজুয়ারে ভাসল আগরতলা
  • আধুনিকতার সাথে প্রযুক্তির সংমিশ্রণ হলে ত্রিপুরাকে মডেল রাজ্য হিসাবে গড়ে তুলতে পারবো: মুখ্যমন্ত্রী
  • রেলস্টেশন থেকে গাঁজা উদ্ধার
  • দুর্গাপূজা উপলক্ষে নতুন সাজে উঠেছে দুর্গাবাড়ি
  • জোরপূর্বক অর্থ আদায়ের অভিযোগে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে মামলা
  • বগাফা ব্লকের ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচনে ৭ প্রতিনিধিদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান
  • আগরতলা ১৪ অক্টোবর (এ.এন.ই ): শনিবার বগাফা ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতি হল রুমে ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচনে নির্বাচিত ৭ জন প্রতিনিধিদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। জানা গেছে, শপথ বাক্য পাঠ করান জেলা পঞ্চায়েত অফিসার কমিসনার কলই। জানা গেছে, বগাফা ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হন দেবাশীষ মজুমদার এবং ভাইস চেয়ারম্যান হিসাবে ত্রিকেন্দ্র ত্রিপুরা নির্বাচিত হয়েছেন। জানা গেছে, শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, সাব্রুমের বিধায়ক শংকর রায়, বগাফা ব্লকের বিডিও প্রদীপ সরকার, জেলা পঞ্চায়েত অফিসার কমিসনার কলই প্রমুখ। শপথ বাক্য পাঠ করার পর দেবাশিষ বাবু জানায়, শপথ বাক্য পাঠ করার পর দেবাশীষ বাবু জানায় তিনি দশমত নির্বিশিষে সকলের উন্নয়নের জন্য কাজ করবেন।
  • রাজ্যের আইন শৃঙ্খলার পরিস্থিতি নিয়ে পুলিশ মহানির্দেশকের সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠক মুখ্যমন্ত্রীর
  • শারদোৎসবের প্রাক মুহূর্তে বোমা বিস্ফোরণে কেপে উঠল আসাম, সর্তকতা জারি রাজ্যেও
  • শারদ উৎসবে রাজ্যবাসীর উদ্দেশ্যে মুখ্যমন্ত্রীর শুভেচ্ছা
  • শ্রীনগর থেকে ৬ জুয়ারি আটক
  • চকোলেটের মণ্ডপ এমবিবি ক্লাবে
  • কুখ্যাত নেশা কারবারি গ্রেপ্তার
  • রেলে কাটা পরে যুবকের মৃত্যু
  • ধলাইয়ে প্রতিবন্ধী পুনর্বাসন কেন্দ্রে প্রবীণদের চিকিৎসা পরিষেবা
  • পূর্বাশার আর্থিক আয় বাড়াতে সরকারের নয়া সিদ্ধান্ত
  • শহরের সাথে পাল্লা দিয়ে মহকুমার পুজো প্রস্ততি চলছে জোর কদমে
  • অপরাধ দমনে ক্রাইম ব্রাঞ্চকে আধুনিকরণের উদ্যোগ রাজ্য সরকারের

ইক্সক্লোসিভ ভিডিও

ঘরেই বানিয়ে নিন লাইটিং লেন্টার্ন

ত্বকের উজ্বলতার জন্য ২০টি টিপস

ডেনমার্কে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম লম্বা ডিম! দেখুন কীভাবে লম্বা ডিম পাড়ে মুরগী

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

জাতীয় খবর

ইমরান খান প্রধানমন্ত্রীর হওয়ার পরও সীমান্তে কোনও পরিবর্তন আসেনিঃ বিএসএফ ডিরেক্টর জেনারেল

২৯ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): ইমরান খান প্রধানমন্ত্রীর হওয়ার পর পাকিস্তান আরও আগ্রাসী হয়েছে বলে জানালেন বিএসএফ ডিরেক্টর জেনারেল কে কে শর্মা। গত ১৮ সেপ্টেম্বর বিএসএফ হেড কনস্টেবল নরেন্দ্র সিংয়ের হত্যার প্রসঙ্গ টেনে কে কে শর্মা বলেন, এ ধরনের ঘটনা ঘটছে ইমরান প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরই। পাক বর্ডার অ্যাকশন টিম (ব্যাট)-কে কাঠগড়ায় দাঁড় করান তিনি। কে কে শর্মার অভিযোগ, সীমান্তে কোনও পরিবর্তন আসেনি। এখন আবার ব্যাটে অতিসক্রিয়তা লক্ষ করা যাচ্ছে। যেটা আগে কখনই ছিল না। শর্মা এ-ও জানান, পাকিস্তান সেনার গতিবিধির উপর কড়া নজর রাখা হচ্ছে। পাকিস্তান এখন নতুন নীতি নিয়ে ভারতে অনুপ্রবেশ করে সন্ত্রাস চালানোর চেষ্টা করছে। এর মোক্ষম জবাব দ্রুত পাবে পাকিস্তান, হুঁশিয়ারি করেন কেকে শর্মা। বিএসএফ কর্তার সুরেই সেনা প্রধান বিপিন রাওয়াত-ও জানিয়েছেন, প্রয়োজনে আবার সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পথে যাবে ভারত। পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ঢুকে ২০১৬ সালে এ দিনেই সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করে সেনা। জওয়ানদের এই দুঃসাহসিক অভিযানকে স্মরণ করে দেশজুড়ে পালিত করা হচ্ছে ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক দিবস’। উল্লেখ্য, ক্ষমতায় আসার পরই ইমরান খান সন্ত্রাস এবং কাশ্মীর ইস্যুতে জানিয়েছিল, ভারত যদি এক পা এগোয়, দু’পা এগোবে পাকিস্তান। নিউ ইয়র্কে রাষ্ট্রসঙ্ঘের অনুষ্ঠানের ফাঁকে ভারত-পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক আলোচনার কথা হয়। পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের অনুরোধেই ওই বৈঠকের সাড়া দিয়েছিল সাউথ ব্লক। কিন্তু কাশ্মীরে জওয়ানদের নারকীয় হত্যা এবং জঙ্গি বুরহান ওয়ানির নামে ডাক টিকিট প্রকাশ করে ‘গৌরবান্বিত’করায় পাকিস্তানের সঙ্গে বৈঠক তড়িঘড়ি বাতিল করে কেন্দ্র। জানিয়ে দেওয়া হয়, পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশির সঙ্গে কোনও সাক্ষাত্ করবেন না বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। বৈঠক বাতিল হওয়ায় নরেন্দ্র মোদী সরকারের সমালোচনায় নামে পাকিস্তান। ভারতের এই সিদ্ধান্তকে দূরদৃষ্টতার অভাব বলে অ্যাখ্যা দেন পাক প্রধানমন্ত্রী। যদিও এই বৈঠক বাতিলে কূটনৈতিক জয়ই দেখছে বিজেপি সরকার।

29-09-2018 05:15:15 pm

দাম বাড়লও তাজমহলের প্রবেশমূল্যের

আগ্রা ২৯ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): একটু একটু করে বাড়ছিল তাজমহলের প্রবেশমূল্য। এবার তা একলাফে পাঁচগুণ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণ বিভাগ। বিশ্বের সপ্তম আশ্চর্যে এবার থেকে প্রবেশ করতে গেলে খসাতে হবে আড়াইশো টাকা। এই সিদ্ধান্তে খুশি নন দর্শনার্থী থেকে ব্যবসায়ীরা। পৃথিবীর কোটি কোটি মানুষের গন্তব্য তাজমহল। জীবনে একবার তাজমহল না দেখলেই নয়। সারাবছরই লেগে থাকে বিদেশিদের ভিড়। এমনকি বিদেশি রাষ্ট্রনেতারাও তাজমহলের মায়া কাটাতে পারেননি। ভারতীয়দেরও কাছেও তাজমহল মানে 'একরাশ আবেগ'। ঘরের সামনেই পৃথিবীর আশ্চর্য। আর তা চাক্ষুষ করতেই এবার কপালে ভাঁজ পড়তে চলেছে। পঞ্চাশের টিকিট এবার লাফিয়ে বেড়ে আড়াইশো টাকা। দেশের নাগরিকদের তাজ দর্শনে এতদিন পঞ্চাশ টাকা দিতে হত। হঠাতই নয়া সিদ্ধান্ত। তাজমহল দর্শন করতে আসা পর্যটকরা সাধারণত এখানে থাকেন না। খাঁ খাঁ করছে হোটেল। ব্যবসায়ীরা বলছেন, এভাবে প্রবেশমূল্য বাড়তে থাকলে তাজ দর্শনে উত্সাহ হারাবেন প্রচুর পর্যটক। পেটে আরও টান পড়বে। টিকিটের মূল্য বৃদ্ধি হয়েছে পাঁচগুন। দর্শনার্থী কমার আশঙ্কা গ্রাস করছে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের। টিকিটের দাম বাড়লেও সেভাবে স্বাচ্ছন্দের কোনও বালাই নেই। স্বীকার করছেন স্থানীয়রাই। এএসআই এর সিদ্ধান্তে ক্ষোভ। শান্তির নীড়ে অস্বস্তির দমকা হাওয়া ধাক্কা খাচ্ছে পৃথিবীর সপ্তম আশ্চর্যের প্রাচীরে। তাজমহলকে নিয়ে সাম্প্রতিক বিতর্কও কম নয়। বিজেপি বিধায়ক সংগীত সোম দাবি করেছিলেন, তাজমহল অত্যাচারীদের হাতে তৈরি। ভারতীয় সংস্কৃতির কলঙ্ক। অবলিম্বে তাকে ইতিহাসের পাতা থেকে বাদ দেওয়া উচিত। তা সামাল দিতে আবার যোদী আদিত্যনাথ বলেছিলেন, "তাজমহল তৈরি করেছেন ভারতমাতার সন্তানরা। তাজমহল দেশের গর্ব।" কয়েকটি হিন্দুত্ববাদী সংগঠন আবার দাবি করেছেন, তাজমহল আসলে একটি শিবমন্দির ছিল। শিবমন্দিরটির উপরেই তাজমহল তৈরি করেছেন শাহাজাহান।

29-09-2018 04:55:03 pm

প্রকাশ্য রাস্তায় এক অ্যাপেল সংস্থার কর্মীকে গুলি করল লখনউ পুলিস

লখনউ ২৯ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): প্রকাশ্য রাস্তায় এক অ্যাপেল সংস্থার কর্মীকে গুলি করল লখনউ পুলিস। গুরুতর জখম অবস্থা হাসপাতালে নিয়ে গেলে বিবেক তিওয়ারি নামে ৩৮ বছর বয়সী ব্যক্তির মৃত্যু হয়। ঘটনাটি ঘটে শনিবার রাত দেড়টা নাগাদ লখনউয়ের গোমতি নগরে। লখনউ পুলিস স্বীকার করে নিয়েছে, পুলিসের গুলিতেই নিহত হন বিবেক তিওয়ারি। অভিযুক্ত কনস্টেবল প্রশান্ত কুমার জানিয়েছেন তিনি আত্মরক্ষার জন্যই গুলি চালিয়েছেন। প্রশান্ত কুমার বয়ানে জানিয়েছেন, তাঁদের দিকে আলো বন্ধ করে ধেয়ে আসছিল সন্দেহজনক একটি গাড়ি। প্রশান্ত কুমার এবং তাঁর সহযোগী কনস্টেবল বাইক দাঁড় করিয়ে গাড়িটিকে থামানোর চেষ্টা করে। কিন্তু তাঁদের তোয়াক্কা না করেই পুলিসের বাইকটিকে ধাক্কা মারে ওই গাড়িটি বলে অভিযোগ। ধাক্কা মারে পুলিস কর্মীদেরকেও। ফের গাড়িটিকে পিছনে টেনে আরও এক বার বাইকে ধাক্কা মারে। প্রশান্ত কুমার জানিয়েছেন, তিন বার বাইকটিকে ধাক্কা মারে। গাড়ি থামানোর অনুরোধ করা সত্ত্বেও কোনও কর্ণপাত করেনি বলে অভিযোগ। এর পর আত্মরক্ষার জন্য গাড়ি আরোহীর উদ্দেশে গুলি চালায়। যদিও গাড়িতে থাকা বিবেকের প্রাক্তন মহিলা কর্মী দাবি করেন, ওই পুলিস কর্মীরা জোর করে গাড়িটিকে থামানোর চেষ্টা করে। তবে বিবেক যে গাড়ি থামায়নি, তা স্বীকার করেছেন ওই মহিলা। তিনি দাবি করেন, পুলিস বলে চিনতে পারেননি তাঁরা। পুলিসের গাড়িতে ধাক্কা লাগে কিন্তু পুলিস কোনওভাবে আহত হয়নি বলে দাবি তাঁর। ওই মহিলা পুলিসে অভিযোগ দায়ের করেন। ওই দুই পুলিস কর্মীকে গ্রেফতার করেছে লখনউ থানার পুলিস। পুলিস কর্তা কালানিধি নৈথানি জানান, পুলিসের এটি পরিকল্পনামাফিক শ্যুট ছিল না। তবে, এই অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পারতেন তাঁরা। তাঁদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা রুজু করা হয়েছে বলে জানান কালানিধি।

29-09-2018 04:49:55 pm

রাফালে বেহাল! হ্যাল এর নজিরবিহীন বাণিজ্যিক খতিয়ান পেশ

দিল্লি ২৯ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): দেশের একমাত্র সরকারি যুদ্ধবিমান প্রস্তুতকারক সংস্থা হিন্দুস্তান অ্যারোনটিক্স লিমিটেডের- (হ্যাল) একাধিক রাফাল তৈরি করার পরিকাঠামো নেই, এমন তকমা আগেই দিয়েছিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়-ও একই সুরে বলেন, ফরাসি সংস্থা দ্যাসো যে কর্মক্ষমতার প্রস্তাব দিয়েছিল, তা পূরণ করার সামর্থ্য ছিল না হ্যাল-র। কিন্তু সম্প্রতি হ্যাল তাদের গত অর্থ বর্ষের নজিরবিহীন বাণিজ্যিক খতিয়ান তুলে ধরেছে। হ্যালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী দেখা গিয়েছে, ২০১৬-১৭ থেকে ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে বেশি ব্যবসা করেছে। শুক্রবার হ্যাল-র ৫৫ তম বার্ষিক সাধারণ সভায় ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষের ব্যাবসার খতিয়ান তুলে ধরেন নয়া চেয়ারম্যান আর মাধবন। তাতে দেখা গিয়েছে, ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে ব্যবসা করেছে ১৮,২৮,৩৮৬ লক্ষ টাকা। যেখানে ২০১৬-১৭ অর্থবর্ষে হ্যাল ব্যবসা করেছিল ১৭,৬০,৩৭৯ লক্ষ টাকা। সারা বছর হ্যাল যা তৈরি করেছে তার খতিয়ান তুলে ধরেন মাধবন। তিনি জানিয়েছেন, ৪০টি যুদ্ধবিমান এবং হেলিকপ্টার তৈরি করা হয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে এসএই-৩০ এমকেআই, এলসিএ তেজস্ব এবং ড্রোনিয়ার ডু-২২৮ এর মতো অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান। এছাড়া ১০৫টি নতুন ইঞ্জিন তৈরি করা হয়েছে। ২২০টি যুদ্ধবিমান ও হেলিকপ্টার সারানো হয়েছে। হ্যাল আরও জানিয়েছে, আয়কর দিয়ে ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে লাভ হয়েছে ২,০৭,০৪১ লক্ষ টাকা। হ্যালেক এক আধিকারিক সংবাদ সংস্থা এএনআইকে জানায়, সুখোই এবং মিগসের মতো জটিল প্ল্যাটফর্মে দুর্দান্ত কাজ করছে হ্যাল। রাফাল প্রস্তুতেও ইতিবাচক ইঙ্গিত শোনা গিয়েছে ওই কর্তার মুখে। কিন্তু কেন্দ্র বরাবরই দাবি করেছে, ১০৮টি রাফাল তৈরি করার মতো পরিকাঠামো নেই হ্যাল-র। দেশের রাজনীতিতে বিতর্কটা শুরু হয়েছে এখানেই। বিরোধীরা অভিযোগ করেছে, সরকারি সংস্থার উপর ভরসা না রেখে অম্বানি সংস্থাকে বরাত পাইয়ে দিয়েছে মোদী সরকার। বিরোধীদের বিতর্ক ঘি পড়ে যখন ফ্রান্সের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদ-ও বলেন দ্যাসোকে অনিল অম্বানি সংস্থার নাম সুপারিশ করেছিল কেন্দ্র। ওলাঁদের মন্তব্যে ব্যকফুটে চলে যায় বিজেপি। তড়িঘড়ি ফ্রান্সের মাকরঁ সরকার এবং দ্যাসো পৃথক বিবৃতি দিয়ে জানিয়ে দেয় ওলাঁদের মন্তব্যের ভিত্তি নেই। পরে ওলাঁদ-ও জানান, দ্যাসোর সঙ্গে অনিল অম্বানি সংস্থার চুক্তি বিষয়ে তিনি অবগত ছিলেন না। প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় বলেন, ফরাসি সংস্থা দ্যাসো প্রস্তাব দিয়েছিল ২৫৭ ঘণ্টার কর্মক্ষমতা, যেখানে হ্যাল জানায় তারা ১০০ ঘণ্টার জোগান দিতে পারবে।

29-09-2018 04:42:06 pm

ধর্মীর আচার আচরণে আদালত হস্তক্ষেপ করতে পারে না অভিমত বিচারপতি ইন্দু মালহোত্রা

কেরল ২৮ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): কেরলের সবরীমালা মন্দিরে সব বয়সের মহিলাদের প্রবেশাধিকার নিয়ে ভিন্ন মত পোষণ করলেন সুপ্রিম কোর্টের ৫ সদস্যের বেঞ্চের বিচারপতি ইন্দু মালহোত্রা। ধর্মীর আচার আচরণে আদালত হস্তক্ষেপ করতে পারে না অভিমত প্রকাশ করলেন বিচারপতি মালহোত্রা। সবরীমালা মামলায় ৫ সদস্যের বেঞ্চে ছিলেন প্রধানবিচারপতি দীপক মিশ্র, বিচারপতি এ এন খানওয়ালিকর, বিচারপতি আর এফ নরিম্যান, বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় ও বিচারপতি ইন্দু মালহোত্রা। রায় দিতে গিয়ে বেঞ্চের চার বিচারপতি সবরীমালায় সব বছরের মহিলাদের প্রবেশের অনুমতি দেওয়ার ব্যাপারে একমত হন। একমাত্র বিচারপতি ইন্দু মালহোত্রা এনিয়ে দ্বিমত পোষণ করেন। ফলে গুরুত্বপূর্ণ ওই রায়ের ক্ষেত্রে বেঞ্চের চার বিচারপতির মতামতের পাশাপাশি পঞ্চম বিচারপতির অভিমতও লিপিবদ্ধ থাকল। বিচারপতি মালহোত্রা বলেন, কোনও ধর্মীয় আচরণ বিভেদমূলক মনে হলেও তাতে হস্তক্ষেপ করতে পারে না আদালত। আদালতকেই ঠিক করতে হবে কীভাবে মহিলাদের অধিকারের সঙ্গে নাগরিকের ধর্মীয় আচরণের অধিকারের ভারসাম্য বজায় রাখা যায়। সতী প্রথার মতো কোনও কোনও ক্ষেত্রে আদালত হস্তক্ষেপ করতে পারে। আয়াপ্পার আরাধনার অধিকারের সঙ্গে সমানাধিকারের অধিকারের সংঘাত তৈরি হয়েছে। শুধু সবরীমালা মন্দিরের ক্ষেত্রেই নয়, অন্যান্য ধর্মীয় স্থানের ক্ষেত্রেও ওই মামলার রায় গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব ফেলবে। উল্লেখ্য, বহু বছর পর সুপ্রিম কোর্টের রায়ে এখন থেকে সবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করতে পারবেন সব বয়সের মহিলারা। এতদিন ১০-৫০ বছর বয়সী মেয়েছে আয়াপ্পার মন্দিরে প্রবেশ করতে পারতেন না। শুক্রবার মামলার রায় দিতে গিয়ে আদালতের পক্ষ থেকে বলা হয়, নৈতিকতার দোহাই দিয়ে মহিলাদের অধিকার হরণ করা যাবে না। আয়াপ্পায় ভক্তরা সবই হিন্দু। ফলে ভক্তদের অধিকারের মধ্যে ভাগাভাগি হতে পারে না। সবরীমালা মন্দিরে ভক্তদের ঢোকার ক্ষেত্রে যে বাধা নিষেধ আরোপ করা হয়েছে তা কোনও ধর্মীয় আচার হতে পারে না। ১০-৫০ বছরের মেয়েদের মন্দিরে প্রবেশের অধিকার কেড়ে নেওয়া সংবিধানের পরিপন্থী। ঐতিহাসিক ওই মামলার রায় দিতে গিয়ে প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র বলেন, আরাধনার ক্ষেত্রে লিঙ্গ বৈষম্য থাকতে পারে না। যে দেশে দেবী পূজিত হন সেখানে এই বৈষম্য চলতে পারে না।

28-09-2018 05:50:02 pm

ভিমা-কোরেগাঁও মামলায় অন্য দুই বিচারপতিদের সঙ্গে দ্বিতমই পোষণবিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়ের

দিল্লি ২৮ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): ভিমা-কোরেগাঁও মামলার রায় দিতে গিয়ে বেঞ্চের অন্য দুই বিচারপতিদের সঙ্গে দ্বিতমই পোষণ করলেন বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়। শুধু তাই নয় পুনে পুলিসকে সতর্ক করে দিলেন বিচারপতি। বিচারপতি চন্দ্রচূড় বলেন, ভিমা-কোরেগাঁও কাণ্ডে পাঁচ সমাজকর্মীর গ্রেফতার ভিন্নমত চেপে দেওয়ার চেষ্টা। ভিন্নমত প্রকাশ করার প্রবণতাই সুস্থ গণতন্ত্রণের লক্ষণ। ওই পাঁচ সমাজকর্মীর বিচার যদি উপযুক্ত তদন্ত ছাড়া হয় তাহলে তা গণতন্ত্রের কোনও অর্থ থাকবে না। ভিমা-কোরেগাঁও হিংসার ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে পুলিস অভিযুক্ত হিসেবে একাধিক নাম সামনে এনেছে। বিষয়টি নিয়ে বিচারপতি চন্দ্রচূড় বলেন, পুলিস গ্রেফতারি নিয়ে একাধিকবার সাংবাদিক সম্মেলন করেছে, সংবাদমাধ্যমে বিভ্রান্তিকর খবর দিয়েছে। তদন্তের জন্য বিশেষ তদন্তকারী দল গঠন করলে এমন কিছুই ক্ষতি হত না। কেউ যখন অভিযোগ আনে, অভিযুক্তরা প্রধানমন্ত্রীকে খুনের পরিকল্পনা করেছিল তখন তা গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করা উচিত। কিন্তু তা হলে উপযুক্ত প্রমাণপত্র ছাড়া এরকম কোনও অভিযোগ আনা যায় না। উল্লেখ্য, ভিমা-কোরেগাঁও কাণ্ডে গ্রেফতার হয়েছেন সামাজকর্মী ভারভারা রাও, অরুণ ফেরেরা, ভেরনন গঞ্জালেস ও গৌতম নওলখা। তাদের গত ২৯ অগাস্ট থেকে গৃহবন্দি রাখা হয়েছে। এদের বিরুদ্ধে মাওবাদীদের সঙ্গে যোগাযোগের অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার মামলার রায় দিতে গিয়ে সুপ্রিম কোর্টের ২ বিচারপতি বলেন, সরকারের রিরোধিতা করার জন্য নয়, ৫ সমাজকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে মাওবাদীদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখার অভিযোগে। ওই মামলায় ৫ সমাজকর্মীকে গ্রেফতারের ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করতে অস্বীকার করে সুপ্রিম কোর্ট। পাশাপাশি মামলার জন্য বিশেষ তদন্তকারী দল গঠন করার নির্দেশও দেয়নি আদালত। একইসঙ্গে ওইসব অভিযুক্তদের গৃহবন্দি দশা আরও ৪ মাস বৃদ্ধি করার নির্দেশ দিয়েছে।

28-09-2018 05:45:52 pm

যোধপুরে সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি

যোধপুর ২৮ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে যোধপুরে বিশেষ প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে সেনা। শুক্রবার সেই প্রদর্শনীর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেনাবাহনীর তিন শাখার প্রধানদের এক সম্মেলনেও যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। সকালেই যোধপুর বিমানবন্দরে অবতরণ করেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁকে সেখানে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। এদিন আরও কয়েকটি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রে জানানো হয়েছে, সকাল নটায় কোনার্ক ওয়ার মেমোরিয়ালের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর তিনি সেনাবাহিনীর পরাক্রম পর্ব’ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করবেন। সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি উপলক্ষে ওই প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। দেশরক্ষায় সেনাবাহিনীর অবদানকে স্মরণ করতেই ওই প্রদর্শনীর আয়োজন। এদিন যোধপুর বাযুসেনা ঘাঁটিতে প্রতিরক্ষা বাহিনীর তিন শাখার প্রধানদের একটি সম্মেলনে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। সম্মেলন উপস্থিত থাকবেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমন, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল, সেনা প্রধান বিপিন রাওয়াত, নৌসেনা প্রধান সুনীল লাম্বা ও বায়ুসেনা প্রধান বীরেন্দ্র সিং ধানোয়া। যোধপুরের কোনার্ক ওয়ার মেমোরিয়ালে ফুল দিয়ে শহিদ সেনা জওয়ানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান প্রধানমন্ত্রী। সাক্ষর করেন ভিজিটার্স বুকে। ২০১৬ সালে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়ে বেশকিছু জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস করে দেয় সেনা। উরি হামলার পাল্টা হিসেবে ওই পদক্ষেপ নেয় সেনা। শুক্রবার সেই সাফল্যের স্মরণে সেনাবহিনী আয়োজন করেছে একটি প্রদর্শনী। নাম দেওয়া হয়েছে পরাক্রম পর্ব। সাধারণ মানুষের সঙ্গে সেনাবাহিনীর যোগাযোগ বাড়াতেই ওই প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। প্রদর্শনীতে সেনাবাহনীর বিভিন্ন ধরনের অস্ত্রসম্ভার প্রদর্শন করা হবে।

28-09-2018 05:40:47 pm

পরকীয়া সম্পর্ক অপরাধ নয় এবং শাস্তি যোগ্য অপরাধও নয় ৪৯৭ ধারা অসাংবিধানিকঃ সুপ্রিম কোর্ট

দিল্লি ২৭ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): পরকীয়া সম্পর্ক ফৌজদারি অপরাধ নয় এবং শাস্তি যোগ্য অপরাধও নয়। তবে 'পরকীয়া বা ব্যাভিচার' 'নিঃসন্দেহে' বিবাহ বিচ্ছেদের কারণ হতেই পারে। দেড় শতকের পুরানো ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪৯৭ ধারাকে অসাংবিধানিক বলে বৃহস্পতিবার এই রায় দিল সুপ্রিম কোর্ট। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বাধীন ৫ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ এদিন বলে, কোনও মহিলা তাঁর স্বামীর সম্পত্তি নয়। সভ্য সমাজে কোনও আইন ব্যক্তির মর্যাদা খর্ব করতে পারে না। প্রধান বিচারপতি রায় ঘোষণা করতে গিয়ে বলেন, "কোনও পুরুষ বিবাহিত মহিলার সঙ্গে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হলে, সেটাকে অপরাধ বলা যায় না"। শতাব্দী প্রাচীন 'ব্যাভিচার'-এর এই আইনকে 'খামখেয়ালী' বলেও অভিহিত করেন তিনি। উল্লেখ্য, ব্রিটিশ শাসনাধীন ভারতে ১৫৮ বছর আগে তৈরি ৪৯৭ ধারা অনুযায়ী, কোনও বিবাহিত মহিলা তাঁর স্বামীর অমতে অন্য পুরুষের সঙ্গে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হলে সেই পুরুষকে শাস্তি পেতে হত। এই আইনের মাধ্যমে স্ত্রীকে স্বামীর সম্পত্তি মনে করার মানসিকতা নিহিত ছিল বলে এদিন মন্তব্য করে আদালত। এরপরই শতাব্দী প্রাচীন এই আইনকে অসাংবিধানিক বলে ঘোষণা করা হয়। এরফলে তথাকথিত পরকীয়ার জন্য পুরুষ এবার থেকে আর আইনের চোখে অপরাধী নয়। আজকের এই রায়ের ফলে, দেশে লিঙ্গ সাম্য আরও বলিষ্ঠভাবে প্রতিষ্ঠিত হল বলে মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল। কেন্দ্রীয় সরকার এই আইনকে বলবত্ রাখার পক্ষে সায় দিলেও আদালত তা গ্রহণ করেনি। কেন্দ্রের পক্ষে বলা হয়, এই আইন খারিজ করা হলে, বিবাহের পবিত্রতা ক্ষুণ্ণ হবে। কেন্দ্রের এমন দাবির মুখে আদালত জানতে চায়, স্বামীর সম্মতিতে বিবাহ বহিভূর্ত সম্পর্ক যদি শাস্তিযোগ্য না হয়, তাহলে কীভাবে বিবাহের পবিত্রতা রক্ষা পায়? এরপরই প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র বলেন, তথাকথিত পরকীয়া বা ব্যাভিচার একটি অসুখী দাম্পত্যের কারণ নয়, ফলাফল হতে পারে।

27-09-2018 05:15:07 pm

নমাজ পাঠের জন্য মসজিদ অপরিহার্য নয়, সরকারের প্রয়োজনে মসজিদ-এর জমি অধিগ্রহণ করতে পারেঃ সুপ্রিম কোর্ট

দিল্লি ২৭ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): মসজিদে নমাজ পাঠ, ইসলামে অপরিহার্য নয়। নমাজের জন্য মসজিদ কি অপরিহার্য, না কি যে কোনও জায়গায় নামাজ পাঠ করা যেতে পারে? মসজিদ কি ইসলামের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ? পুনর্বিচার না করে বৃহস্পতিবার দুপুরে এই বিষয়ে পূর্বের রায়ই বহাল রাখল সুপ্রিম কোর্ট। ১৯৯৪ সালে সুপ্রিম কোর্টের রায়ে বলা হয়েছিল, নমাজ পাঠের জন্য মসজিদ অপরিহার্য নয়। এর সঙ্গে আরও বলা হয়েছিল, সরকারের প্রয়োজনে মসজিদ-এর জমি অধিগ্রহণ করতে পারে। এদিন শীর্ষ আদালত সেই পুরানো রায়ই বহাল রাখল প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র ও বিচারপতি অশোক ভূষণ এ বিষয়ে সহমত হয়েছেন। কিন্তু, বিচারপতি নাজির ভিন্নমত প্রকাশ করেছেন। এদিন সুপ্রিম কোর্ট আরও জানায়, এই মামলা ৫ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চে পাঠানো হবে না। শীর্ষ আদালতে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের ডিভিশন বেঞ্চ আরও জানিয়েছে যে, এই রায় অযোধ্যার বিতর্কিত জমির মালিকানা সংক্রান্ত মূল মামলার রায়কে প্রভাবিত করবে না। তবে ওয়াকিবহাল মহলের একাংশের মতে অযোধ্যার বিতর্কিত জমিতে মন্দির তৈরি হবে না মসজিদ- এই বহু আলোচিত মামলার রায়কে ভীষণভাবে প্রভাবিত করবে দেশের শীর্ষ আদালতের এদিনের এই রায়। আরও পড়ুন- সুপ্রিম রায়ে পরকীয়া আর অপরাধ নয়, ৪৯৭ ধারা অসাংবিধানিক ৬ ডিসেম্বর'১৯৯২। ষোড়শ শতকের বাবরি মসজিদ ভেঙে ফেলে 'দক্ষিণপন্থী' করসেবকরা। করসেবকদের দাবি, ওই জমিতেই জন্মগ্রহণ করেছিলেন 'রামলালা'। এরপর থেকে এই ঘটনার চূড়ান্ত অভিঘাত পড়েছে ভারতের রাজনৈতিক-সামাজিক জীবনে। কিন্তু, সেই বিতর্কের অবসান ঘটেনি আজও। ১৯৯৪ সালে সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া রায় অনুযায়ী, নমাজ পাঠের জন্য মসজিদ অপরিহার্য নয়। এরপর ২০১০ সালে ইলাহাবাদ হাইকোর্টের রায় অনুসারে, অযোধ্যার বিতর্কিত জমি মোট তিন ভাবে বিভক্ত করে দেওয়া হয়। হিন্দু মহাসভা, সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড এবং নির্মোহি আখড়াকে এক তৃতীয়াংশ ভাগ করে জমির মালিকানা দেওয়া হয়। কিন্তু, এই রায়ে অসন্তুষ্ট হয় হিন্দু মহাসভা এবং সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড। ইলাহাবাদ হাইকোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয় উভয় পক্ষই। সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের দাবি, ১৯৯৪ সালের সুপ্রিম রায়ই প্রভাব ফেলেছিল ২০১০ সালে ইলাহাবাদ হাইকোর্টের রায়ে। তাই মসজিদ নমাজ পাঠের জন্য অপরিহার্য কি না এই মামলার নিস্পত্তি চেয়েছিল তারা। এদিন সেই আবেদন খারিজ করে দিয়ে প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ পূর্বের রায়কেই বহাল রাখল এবং মামলাটিকে পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চে পাঠানো হল না। এর ফলে চলতি বছরের ২৯ অক্টোবর থেকে অযোধ্যার বিতর্কিত জমির মালিকানা সম্পর্কিত মূল মামলার শুনানি শুরু হওয়ায় আর কোনও বাধা থাকল না।

27-09-2018 05:05:56 pm

নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনিত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

দিল্লি ২৫ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নাম প্রস্তাব করলেন বিজেপিনেত্রী। 'আয়ুষ্মান ভারত' প্রকল্পের জন্য নরেন্দ্র মোদীর নাম নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য প্রস্তাব করলেন তামিলনাড়ু বিজেপির সভানেত্রী তামিলাইসাই সৌন্দররাজন। নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মোদীর নাম প্রস্তাব করেছেন টি সৌন্দররাজনের স্ত্রী পি সৌন্দররাজনও। একটি বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজের নেফ্রলজির অধ্যাপক তিনি। তামিলনাড়ু বিজেপি সভানেত্রীর দফতর থেকে প্রকাশিত এক প্রেস বিবৃতিতে বলা হয়েছে, 'বিশ্বের সব থেকে বড় স্বাস্থ্য যোজনা আয়ুষ্মান ভারত চালু করায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নাম নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত করেছেন তামিলসাই সৌন্দররাজন। বিবৃতিতে এই প্রকল্পকে 'যুগান্তকারী' ও 'দূরদৃষ্টিসম্পন্ন' বলেও দাবি করা হয়েছে। রবিবার আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের সূচনা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই প্রকল্পের আওতায় দেশের প্রায় ৫০ কোটি মানুষ বিনামূল্য ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিমা পারেন। ২০১৯ সালের নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ওই বছরেরই ৩১ জানুয়ারি। সেপ্টেম্বরে শুরু হয় মনোনয়ন পাঠানোর প্রক্রিয়া। দেশের অন্যান্য সাংসদ ও মন্ত্রীদেরও তাঁর নাম মনোনয়নের আবেদন জানিয়েছেন তিনি।'

25-09-2018 05:27:38 pm

ট্রেকিং করতে গিয়ে নিখোঁজ হওয়া আইআইটির দলটি নিরাপদে রয়েছে জানালেন হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী

হিমাচল প্রদেশ ২৫ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): ট্রেকিং করতে গিয়ে নিখোঁজ হওয়া আইআইটির দলটি নিরাপদে রয়েছে বলে জানালেন হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জয় রাম ঠাকুর। সংবাদসংস্থা এএনআই-কে মুখ্যমন্ত্রী জয় রাম ঠাকুর জানিয়েছেন, “আইআইটি-রুরকির পড়ুয়া-সহ ৫০ জনের দলটি নিরাপদে রয়েছে।”উল্লেখ্য, মঙ্গলবার সকালে খবর আসে, লাহুল পর্বতমালা এবং স্পিতি জেলায় ট্রেকিং করতে গিয়ে নিখোঁজ হন আইআইটি পড়ুয়ারা। এক পড়ুয়ার বাবা জানান, ওই দলটি হাম্পা পাসে ট্রেকিং করে মানালি পৌঁছবে। কিন্তু তাঁদের সঙ্গে কোনও যোগাযোগ করা যাচ্ছে না। উদ্বেগে রয়েছে পরিজনেরা। বেশ কয়েক দিন ধরে অতি বর্ষণ এবং ভারী তুষারপাতে বিপজ্জনক পরিস্থিতি তৈরি হয় হিমাচল প্রদেশের বেশি কিছু এলাকা। কুলু, কাংরা এবং ছাম্বায় ভারী বর্ষণে মৃত্যু হয়েছে কমপক্ষে ৫ জনের। এই সব জেলায় বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হওয়ায় স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে প্রশাসনের তরফে। জেলা প্রশাসন জানাচ্ছে, বিপাশা নদীর জল বিপদ সীমার উপর দিয়ে বইছে। ভেসে গিয়েছে নদীর তীরবর্তী এলাকার ঘর-বাড়ি। পরিস্থিতি ভয়াবহ হওয়ায় কুলু-তে লাল সতর্কতা জারি করেছে প্রশাসন। বন্যার জেরে কুলুতেই ২০ কোটি টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে বলে জানায় প্রশাসন।

25-09-2018 05:24:13 pm

আইনপ্রণেতাদের পেশাদারি আইন চর্চায় কোনও বাধা নেইঃ সুপ্রিম কোর্ট

দিল্লি ২৫ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): আইনপ্রণেতাদের পেশাদারি আইন চর্চায় কোনও বাধা নেই। বিধায়ক বা সাংসদ হলেও গায়ে শামলা চড়িয়ে এজলাসে তাঁরা দাঁড়াতেই পারেন, এক জনস্বার্থ মামলার রায় দিতে গিয়ে মঙ্গলবার এ বিষয়টি স্পষ্ট করে দিল সুপ্রিম কোর্ট। বিজেপি নেতা তথা আইনজীবী অশ্বিনী উপাধ্যায় শীর্ষ আদালতে আবেদন করেন যাতে জনপ্রতিনিধিদের পেশাদারি আইন চর্চা থেকে বিরত রাখা হয়। কিন্তু, প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ এই জনস্বার্থ মামলাটি এদিন খারিজ করে দেয়। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র, বিচারপতি এ এম খানউইলকর এবং বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়ের ডিভিশন বেঞ্চ চলতি বছরের ৯ জুলাই এই মামলার রায় দান স্থগিত রেখেছিল। ভারতের সংসদীয় রাজনীতির সঙ্গে অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িয়ে অ্যারিস্টোক্র্যাসি-ব্যারিস্টোক্র্যাসির ঐতিহ্য। সেই গান্ধী-নেহেরুর আমল থেকে আজকের অরুণ জেটলি-কপিল সিবাল- সরকার, সংসদ ও রাজনীতির অলিন্দে বিগত সাত দশক ধরে অতিগুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব সামলে আসছেন একাধিক পেশাদার আইনজীবীরা। অথচ এবার সেই পরম্পরায় ছেদ চেয়ে দেশের শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন খোদ আইনজীবী-রাজনৈতিক নেতা অশ্বিনী উপাধ্যায়। কিন্তু, কেন? অশ্বিনীর হয়ে ওকালতি করতে গিয়ে প্রবীণ আইনজীবী শেখর নাফাড়ে বলেন, আইনপ্রণেতারা জনগণের করের টাকা থেকে বেতন গ্রহণ করেন। ফলে, তাঁরা বেতনভুক কর্মী। আর বার কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়ার নিয়ম অনুযায়ী, বেতনভুক কর্মীরা কখনও পেশাদারি আইন চর্চা করতে পারেন না। এ জন্য গণতন্ত্রের দুই স্তম্ভ তথা আইন প্রণয়ন ও বিচার উভয় বিভাগই ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাঁদের আরও দাবি, একজন সরকারি কর্মচারীর যখন পেশাদারি আইন চর্চার অধিকার নেই, তাহলে সাংসদ/বিধায়করা কেন এই সুযোগ পাবেন? এর ফলে সংবিধানের সাম্যের অধিকারও ক্ষুন্ন হচ্ছে বলে আবেদন করা হয়। এছাড়া, যেহেতু সাংসদদের হাতে হাইকোর্ট ও সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের ইমপিচ করার ক্ষমতা রয়েছে, তাই তাঁরা পেশাদার আইন চর্চা করলে সমস্যা হতে পারে বলেও দাবি করেন অশ্বিনী কুমার।

25-09-2018 05:19:33 pm

৫ হাজার কোটি টাকার ব্যাঙ্ক জালিয়াতিতে অভিযুক্ত নিতিন সন্দেসরা নাইজেরিয়াতে

গুজরাট ২৪ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): বিজয় মালিয়া, লোলিত মোদী, মেহুল চোকসির পর এবার নিতিন সন্দেসরা। ৫ হাজার কোটি টাকার ব্যাঙ্ক জালিয়াতিতে অভিযুক্ত গুজরাটের এই ব্যবসায়ী এই মুহূর্তে দেশ ছেড়ে পালিয়েছে। গুজরাট কেন্দ্রীক স্টারলিং বায়োটেক-এর মালিক তথা সিবিআই ও ইডি-র নিশানায় থাকা নিতিন সন্দেসরা দুবাইতে আটক হয়েছে বলে যে খবর মিলেছিল, তাও সঠিক নয় বলে এখন জানা যাচ্ছে। সূত্রের খবর, সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর পরিবর্তে সে এখন ঘাঁটি গেড়েছে। আরও জানা যাচ্ছে, নিতিনের সঙ্গে তার ভাই চেতন ও ভাতৃবধূ দিপ্তীবেন গা ঢাকা দিয়েছে। নাম গোপনের শর্তে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার এক শীর্ষ আধিকারিকের দাবি, "সূত্র মারফত্ খবর এসেছিল, অগস্টের দ্বিতীয় সপ্তাহে দুবাইতে আটক হয়েছে নিতিন সন্দেসরা। কিন্তু, সেই তথ্য আদতে ভুল। দুবাইতে তাকে কখনও আটক করা হয়নি। পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে সে (নিতিন) সম্ভবত নাইজেরিয়ায় আত্মগোপন করেছে"। উল্লেখ্য, ভারতের সঙ্গে নাইজেরিয়ার কোনও বন্দি প্রত্যার্পণ চুক্তি বা পারস্পরিক আইনি সহায়তার চুক্তিও নেই। ফলে আফ্রিকার এই দেশ থেকে অভিযুক্ত ব্যবসায়ীকে ফিরিয়ে আনতে বেগ পেতে হবে ভারতকে। সম্ভবত, এই বিষয়টি বিবেচনা করেই আত্মগোপনের জন্য নাইজেরিয়া বেছে নিয়েছে নিতিন সন্দেসরা, এমনটাই মনে করছে তদন্দকারীদের একাংশ। ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলি এখন 'প্রভিশনাল অ্যারেস্ট'-এর আবেদন জানিয়ে আরব আমিরশাহীতে একটি চিঠি পাঠাবে বলে ঠিক করেছে। নিতিনের দেখা মিললেই যাতে গ্রেফতার করা হয় সেই আবেদনই করা হবে। কিন্তু, ব্যাঙ্ক জালিয়াতিতে অভিযুক্ত এই ব্যবসায়ী তো আর সেই দেশেই নেই, তাহলে এমন আবেদনে লাভ কী? আধিকারিকদের একাংশের দাবি, এই চিঠির ফলে পরবর্তীকালে নিতিন সন্দেসরার নামে রেড কর্নার নোটিস জারি করতে পদ্ধতিগত সুবিধা হবে। সিবিআই ও ইডি সূত্রে দাবি, বিপুল অঙ্কের ব্যাঙ্ক জালিয়াতি ঢাকতে তিনশোরও বেশি 'শেল কোম্পানি' বা বেনামি কোম্পানি তৈরি করেছিল সন্দেসরা। আর এগুলির মাধ্যমেই ব্যাঙ্কের টাকা বেআইনিভাবে বিদেশে পাঠানো হয়েছিল।

24-09-2018 04:36:24 pm

অসুস্থতার কারণে মন্ত্রকের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে বিজেপির দুই মন্ত্রীর

গোয়া ২৪ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): মুখ্যমন্ত্রী রইলেন মুখ্যমন্ত্রীর পদে। সরলেন শুধু তাঁর ক্যাবিনেটের দুই মন্ত্রী। বিজেপির বিধায়ক ফ্রান্সিস ডি’সুজ়া এবং পাণ্ডুরঙ্গ মডকাইকরকে অসুস্থতার কারণে মন্ত্রকের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। তাঁদের পরিবর্তে অন্য দুই বিজেপি বিধায়ক নীলেশ কাবরাল এবং মিলিন্দ নায়েককে বসানো হল। এর মধ্যে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লক্ষ্মীকান্ত পরসেকরের মন্ত্রিসভার মন্ত্রী ছিলেন মিলিন্দ নায়েক। আর নীলেশ এই মন্ত্রিত্ব পেলেন। উল্লেখ্য, রবিবার গোয়ার বিজেপির কোর কমিটির সঙ্গে প্রশাসনিক কাজকর্ম বিষয়ে বৈঠক করেন দলের সভাপতি অমিত শাহ। এ দিন অমিত টুইটে জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব হাসপাতাল থেকেই সামলাবেন মনোহর পর্রীকর। তবে, খুব শীঘ্রই মন্ত্রিসভার রদবদল হতে পারে বলে জানান তিনি। সোমবার মুখ্যমন্ত্রীর দফতর থেকে রদবদলের খবর জানানো হয়। গোয়ার বিধায়ক ফ্রান্সিস ডি’সুজা শহর উন্নয়ন দফতের মন্ত্রী ছিলেন। বেশ কিছু দিন ধরে অসুস্থতার কারণে মার্কিন হাসপাতালে চিকিত্সাধীন। অন্য দিকে বিদ্যুত্ মন্ত্রীর পদে থাকা পাণ্ডুরঙ্গ ব্রেন স্ট্রোকে গত জুন থেকে প্রশাসনিক কাজে বিরত রয়েছেন। খোদ মুখ্যমন্ত্রী পর্রীকরও অগ্ন্যাশয়ের সংক্রমণে দিল্লির এইমস-এ ভর্তি রয়েছে। এর আগে তিনি-ও চিকিত্সরা জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছিলেন। দীর্ঘ ছয় মাস ধরে অসুস্থতার জেরে ঠিক মতো দফতর সামলাতে পারেননি মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পর্রীকর। যার কারণে প্রশাসনিক কাজে অব্যবস্থা দেখা দিয়েছে বলে অভিযোগ কংগ্রেসের। গোয়ার গভর্নর মৃদুলা সিনহার কাছে নতুন সরকার গড়ার আর্জি জানিয়ে চিঠি-ও দেয় কংগ্রেস। এমনকি বিজেপির জোট সরকারে মধ্যেও নেতৃত্বের অভাবে অস্থিরতা তৈরি হয়। মুখ্যমন্ত্রী তাঁর অনুপস্থিতিতে মন্ত্রকের দায়িত্ব দিয়ে যান শরিক দল মহারাষ্ট্রবাদী গোমন্তর পার্টির বিধায়ক সুদীন ধভলীকরকে। যদিও এই সিদ্ধান্তে প্রবল আপত্তি জানায় গোয়া ফরোয়ার্ড পার্টি। হাল ধরতে হয় বিজেপি সভাপতি অমিত শাহকে।

24-09-2018 04:30:15 pm

সোমবার ফের শেয়ার বাজারে নামল ধস

মুম্বাই ২৪ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): আশ্বাসে চিড়ে ভিজছে না। তাই ফের শেয়ার বাজারে নামল ধস। এ দিন বাজার খোলার ৩ ঘণ্টার মধ্যে ৫০০ পয়েন্ট পড়ে সেনসেক্স সূচক। নিফটিও ১৫০-র বেশি পড়ে ১১ হাজারের গণ্ডির নীচে চলে যায়। কারণ, এ দিনও গৃহঋণ সংস্থার পুঁজির অনিশ্চিয়তা লগ্নীকারীদের বিভ্রান্তি তৈরি করে। ব্যাঙ্ক, অটো, রিয়েলিটি-র শেয়ার বিক্রি করতে শুরু করেন তাঁরা। এ দিন বম্বে স্টক এক্সচেঞ্জের সবচেয়ে বেশি মুখ থুবড়ে পড়া শেয়ারগুলির মধ্যে রয়েছে মারুতি অ্যান্ড মারুতি (-৭.৯%), এইচডিএফসি (-২.১৪%), মারুতি সুজু়কি (-৩.২৪%), টাটা স্টিল (-৩.০৮%), ইন্ডাসিন্ড ব্যাঙ্ক (-৫.১৯%)। অর্থাত্ ব্যাঙ্ক, অটো, ভোগ্যপণ্য শেয়ারগুলিতে উল্লেখযোগ্যভাবে ধস নামে। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, গৃহঋণ এবং ব্যাঙ্ক নয় এমন সংস্থার আর্থিক দুরাবস্থা এ দিনও চিন্তায় রেখেছে লগ্নীকারীদের। যদিও রবিবার রিজার্ভ ব্যাঙ্ক জানায় নজরে রাখা হচ্ছে পরিস্থিতি। সেবি-ও বলে, প্রয়োজন হলে উপযুক্ত পদক্ষেপ করা হবে। এমনকি আজ সকালে অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির আশ্বাস, নন-ব্যাঙ্কিং ফিনান্সিয়াল কোম্পানি (এনবিএফসিএস) সংস্থা এবং মিউচিয়াল ফান্ডের যথাযথ পুঁজি থাকার নিশ্চিয়তা করতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গত শুক্রবার এই উদ্বেগের জেরে হঠাৎ শেয়ার বাজার পতন লক্ষ করা যায়। এক ঝটকায় সেনসেক্স পড়ে যায় ১৩০০ পয়েন্ট। পরে অবশ্য সামলে নিলেও সেই ঝড়ের রেশ সোমবারের বাজারেও ছাপ ফেলল।

24-09-2018 04:26:14 pm

গুজরাটের গির অরণ্যে সিংহের মৃত্যুর কারণ খুঁজতে তদন্তের নির্দেশ গুজরাট সরকাররের

গুজরাট ২১ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): রাজ্যে একের পর এক সিংহের মৃত্যু বিপাকে ফেলেছে গুজরাট বন দফতরকে। গত কয়েক দিনে গুজরাটের গির অরণ্যে মৃত্যু হল ১১টি সিংহের। মৃত্যুর কারণ খুঁজতে তদন্তের আদেশ দিয়েছে গুজরাট সরকার। মৃত সিংহদের দেহ মিলেছে গির অরণ্যের পূর্বাঞ্চলের ডালখানিয়া রেঞ্জে। জানিয়েছেন, গির অরণ্যের(পূর্বাঞ্চল) অধিকর্তা পি পুরুষোত্তম। বুধবার একটি সিংহের মৃতদেহ মেলে আমলেরি জেলার রাজুলাতে। পাশাপাশি অন্য তিনটি সিংহের দেহ পাওয়া যায় ডালখানিয়া রেঞ্জে। পুরুষোত্তম আরও জানিয়েছেন, মৃত সিংহদের ভিসেরার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। সেইসব নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে জুনাগড়ের পশু হাসপাতালে। সেই রির্পোট আসার অপেক্ষায় রয়েছি। রাজ্যের পশুপালন দফতরের আধিকারির এইচ ভামজা সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছেন, ফুসফুসে সংক্রমণের কারণেই ওইসব সিংহের মৃত্যু হয়েছে। তবে সংক্রমণের কারণ এখনও জানা যায়নি। সংক্রমণের কথা মাথায় রেখে বনের সিংহদের ওষুধ দেওয়া হচ্ছে। উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে গণনা অনুযায়ী গির অরণ্যে সিংহের সংখ্যা ৫২০। দেশের অন্য কোথাও এত সিংহ নেই। ফলে একসঙ্গে ১১টি সিংহের মৃত্যুতে রাজ্যে হইচই পড়ে গিয়েছে। রাজ্যসভার সদস্য পরিমল নাথওয়ানি দাবি করেছেন, সিংহগুলি কোনও বিষক্রিয়া কিংবা চোরা শিকারিদের গুলির শিকার হয়েছে কিনা তা নিয়ে তদন্ত হওয়া প্রয়োজন।

21-09-2018 04:11:39 pm

শক্তি কমছে ঘূর্ণিঝড় 'দয়া'

কলকাতা ২১ সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): শুক্রবার সকাল থেকেই কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে ঝাঁকে ঝাঁকে বৃষ্টি হচ্ছে। সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়ার দাপট। ঘূর্ণিঝড় 'দয়া'র প্রভাবেই দফায় দফায় বৃষ্টি চলছে। বৃষ্টি চলবে আজ সারাদিন। তবে সুখবর, শুক্রবার রাত থেকে পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি ঘটবে। শনিবার বেলার দিকে আবহাওয়া আবার রোদ ঝলমলে হয়ে উঠবে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টা নাগাদ ওড়িশার গোপালপুর ও অন্ধ্রের শ্রীকাকুলামের মধ্যবর্তী ভূভাগে প্রবেশ করে ঘূর্ণিঝড় 'দয়া'। ভূভাগে প্রবেশ করেই সেটি নিম্নচাপে পরিণত হয়। বর্তমানে মহারাষ্ট্রের নাগপুরের কাছে অবস্থান করছে ঘূর্ণিঝড়টি। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, শক্তি কমিয়ে ক্রমশ উত্তর-পশ্চিম দিকে সরছে নিম্নচাপটি। পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, নিম্নচাপের প্রভাবে আগামী ২৪ ঘণ্টায় মধ্য ও পশ্চিম ভারতে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বাড়বে। এদিকে ওড়িশায় ঘূর্ণিঝড় 'দয়া' তাণ্ডব শুরু করতেই, রাজ্যেও বৃষ্টির প্রকোপ বাড়ে। শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথিতে ২৫২ মিলিমিটার, হলদিয়ায় ৮৬ মিলিমিটার, দীঘায় ৭৮ মিলিমিটার, দক্ষিণ ২৪ পরগনার ডায়মন্ডহারবারে ৬৬ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। ওড়িশার বালেশ্বরে বৃষ্টি হয়েছে ১৪১ মিলিমিটার।

21-09-2018 04:07:26 pm


Copyright © 2017 আগরতলা নিউজ এক্সপ্রেস. All Rights Reserved.