Deprecated: mysql_connect(): The mysql extension is deprecated and will be removed in the future: use mysqli or PDO instead in /home/ad934d83/public_html/connect/connect.php on line 7




Deprecated: mysql_connect(): The mysql extension is deprecated and will be removed in the future: use mysqli or PDO instead in /home/ad934d83/public_html/connect/connect.php on line 7
  • প্রধানমন্ত্রী গৃহ নির্মাণ যোজনায় রাজ্যের অচল অবস্থা
  • তৃনমূলের বিপর্যয় ঠেকাতে রাজ্যে আসছেন সাংসদ মুকুল রায়
  • শুরু হল ২দিন ব্যাপী ক্ষেত মজুর ইউনিয়নের তৃতীয় বিভাগীয় সন্মেলন
  • জ্ঞানের আলো বাড়িয়ে তুলতে দশম ব্যটলিয়ান টি এস আর উদ্যোগে স্কুলের ছাত্র ছাত্রীদের মধ্যে শিক্ষার সামগ্রী বিতরন
  • কল্যাণপুরে অটো রিক্সা ইউনিয়নের শ্রমিকদের নিয়ে আইনি সচেনতা শিবির
  • চিকিৎসার গাফিলতির কারনের শিশুর মৃত্যু, তদন্তে পুলিশ
  • কাল বৈশাখীর তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড কল্যাণপুর, ধীরে ধীরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক
  • জনকল্যাণমুখী পাঁচ দফা দাবীকে সামনে রেখে শান্তিরবাজারে সিপিআইএম এর বৈঠক
  • ৫ দফা দাবীতে কল্যাণপুরে সিপিআইএম অঞ্চল কমিটির জনসভা
  • তেলিয়ামুড়ায় তিনটি স্কুলের নতুন ভবনের জন্য শিক্ষা দপ্তর মঞ্জুর করলো ১২কোটি ৩৪ লক্ষ টাকা
  • টি ওয়াকাস ইউনিয়নের এক সদস্যের মৃত্যুতে গভির মর্মাহত সিআইটিইউ
  • সীমান্তে বি.এস.এফ এর গুলিতে হতাহতদের আর্থিক সহায়তা দিল বিজেপি
  • বীথিকার পরিবার কে সিপিএম রামচন্দ্রঘাট অঞ্চল কমিটির তরফ থেকে আর্থিক সহায়তা প্রদান
  • মহিলাদের অধিকার এবং সামাজিক নিরাপত্তা নিয়ে কমলপুরে একদিনের কনভেনশন
  • ঘোষিত ফলাফলে অনিয়মের অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ে তীব্র অসন্তোষ
  • উপজাতি এলাকার বৃহৎ বামবিরোধী আঞ্চলিক দলের ভাঙ্গন, বিজেপির প্রভাব
  • আয়োডিন অভাবে রোগ-প্রতিরোধে এক শিবির অনুষ্ঠিত কল্যাণপুরে
  • মাইগঙ্গা এলাকায় দুটি বোলেরু গাড়ির মুখোমুখী সংঘর্ষে আহত ৪
  • যোগান কম পেট্রোল পাম্পে চারিদিকে হাহাকার
  • বিএসএনএল-এর খারাপ পরিষেবায় এক প্রকার অতিষ্ঠ কল্যাণপুরের গ্রাহকরা
  • এলাকাবাসীদের দীর্ঘ দিনের প্রত্যাশার অবসান, ২০১৮ সালে উদ্ভোধন হতে চলেছে কল্যাণপুর দ্বাদশ শ্রেনী বিদ্যালয়ের নতুন দ্বিতল ভবন
  • ত্রিপুরা থেকে চারটি আন্তর্জাতিক রেল পথের কাজ দ্রুত নিষ্পত্তি করতে চায় কেন্দ্রঃ রাজেন গৌহাই
  • রেল লাইনে কাঁটা পরলো এক শ্রমিকের দুটি পা
  • ব্যাঙ্গালুরু বোমা বিস্ফোরণ কাণ্ডে ধৃত অভিযুক্ত হাবিবের রহস্য ফাঁস হচ্ছে
  • ত্রিপুরার তৃনমূল কংগ্রেস রতন চক্রবর্তী বিজেপিতে সামিল

স্পেশাল আর্টিকেল

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

ইক্সক্লোসিভ ভিডিও

ডেনমার্কে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম লম্বা ডিম! দেখুন কীভাবে লম্বা ডিম পাড়ে মুরগী

হোলির রাতে তৃণমূল কংগ্রেস এবং বিজেপির মধ্যে সংঘর্ষের পর সাংবাদিক সন্মেলনে বিপ্লব

চিটফান্ড ইস্যুতে রাজ্য ও কেন্দ্র সরকারকে তথ্য সহ বিঁধল সুদীপ

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

টপ ফাইভ

প্রধানমন্ত্রী গৃহ নির্মাণ যোজনায় রাজ্যের অচল অবস্থা

আগরতলা ২৬শে মার্চ (এ.এন.ই ): প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় গরীব অংশের জনগণ কে পাকা বাড়ী তৈরি করে দেওয়ায় যোজনায় যথেষ্ট সাড়া পরেছিল। কিন্তু বর্তমানে নির্মাণ সামগ্রীর মাত্রারিক্ত মূল্যবৃদ্ধির ফলে অনেকেই তাদের প্রাপ্ত অনুমোদন পত্র ফিরিয়ে দিচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় প্রথমেই রাজ্যে ইতিবাচক সাড়া পরেছিল। জনগণ তাদের স্থানীয় নির্বাচিত সংস্থা গুলির কাছে আবেদন পত্র জমা দেয়। কয়েকটি পর্যায়ে আবেদনপত্র সংগ্রহ করা হয়। ইতি মধ্যেই অনেকে পাকাবাড়ি তৈরিও করে নিয়েছেন। কিন্তু সম্প্রতি এই পাকা বাড়ি নির্মাণ নিয়ে যথেষ্ট জটিলতা দেখা দিয়েছে। এই প্রকল্পের আওতায় আসা নাগরিকরা অনেকেই জানিয়েছেন মাত্র দের থেকে দুই মাস আগে রাজ্যে প্রতিটি ইটের দাম ছিল ৮টাকা। যা এখন বেড়ে ১১ থেকে ১২ টাকা হয়েছে। একেই সঙ্গে বালুর দামও অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতি ছোট এক ট্রাক বালুর মূল্য ১৬০০-১৮০০ টাকা ছিল যা দের মাসে বৃদ্ধি পেয়ে ২৫০০-২৬০০ টাকা হয়েছে। এমনকি চাহিদামত অর্থ দিয়েও বালুর সঠিক যোগান পাওয়া যাচ্ছেনা। একেই ভাবে সিমেন্টের মূল্য যথেষ্ট বৃদ্ধি পেয়েছে। ২৫০ টাকার প্রতি ব্যাগ সিমেন্ট এখন ৩৭৫ টাকা অব্দি গড়িয়েছে। কালোবাজারী মাত্রাতিরিক্ত ভাবে বেড়ে যাওয়ার এই ধরনের উদ্ভট পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এবস্তায় সাধারণ মানুষ বাড়তি খরচের বোঝা নিয়ে তাদের অক্ষমতার কথা জানিয়ে তাদের প্রাপ্ত অনুমোদন পত্র ফেরৎ দিয়ে দিচ্ছেন। তাদের অভিযোগ সরকারের তরফে ১লক্ষ ৬৬ হাজার ৬৬৬ টাকা দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু নির্মাণ সামগ্রীর মূল্য চরা হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় এই অর্থের দ্বিগুণ করতে হচ্ছে গৃহকর্তাদের যা গৃহ নির্মাণ করা সম্ভব হবেনা। অভিযোগ কালোবাজারী দের কারণেই এই ধরনের পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে।

26-03-2017 03:21:13 pm

ত্রিপুরার ঝড়ের তাণ্ডব ব্যপক ক্ষয়ক্ষতি

আগরতলা ২৫শে মার্চ (এ.এন.ই ): ত্রিপুরায় বিভিন্ন প্রান্তে বিধ্বংসী ঝড়ে কমপক্ষে ও চারজন মারা গেছেন। আহত হয়েছেন আরো অনেকে। শনিবার ভোর থেকেই গত কয়েকদিন যাবৎ চলে আসা ঝড় ও বৃষ্টিপাত প্রচণ্ড বৃদ্ধি পায়। রাজ্য পুলিশের একটি সূত্রে জানা গেছে বিশালগড় থেকে বক্সনগর যাওয়ার পথে একটি পিকআপ ভ্যান উল্টে যায়। ভ্যানটি বেশ কয়েকজন শ্রমিক কেনিয়ে বক্সনগর কর্মস্থলে যাচ্ছিল। কিন্তু সকাল প্রায় ১০টা নাগাদ টিআর০১এস/১৮৭৫ বোলেরু পিকআপ ভ্যানটি ঝড়ের প্রকোপে পরে। গাড়িটি চোরা পাকারাস্তা দিয়ে যাচ্ছিল কিন্তু প্রচণ্ড ঝড়ের ঝাঁপটায় চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে এবং গাড়িটি পথের ধারে উল্টে যায়। ফলে ঘটনাস্থলে তিন জন মারা গেছেন। পুলিশ জানিয়েছে নিহতরা প্রত্যেকেই ঝাড়খণ্ডের বাসিন্দা। নিহতরা হলেন বুদ্ধ নায়েক, শঙ্কর লোহার এবং সনাতন সন্যাসী। এছারাও আরো দুজন এই ঘটনায় গুরুতর জখম হয়েছেন। প্রাথমিক তদন্তে ঝড়ের দাপটে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলায় দুর্ঘটনা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছেন। দুর্ঘটনায় আহতদের হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে আগরতলা শহরের অভয়নগর এলাকায় এক মাঝারি বয়সের মহিলা ঝড়ের প্রকোপে মৃত্যু হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে অভয়নগরের পশু হাসপাতাল সংলগ্ন একটি বড় গাছ তীব্র বাতাসের গতিতে উপড়ে পড়ে। কিন্তু বিশালকার গাছাটি স্থানীয় মহিলার উপর গিয়ে পড়ে। ফলে ঘটনাস্থলে এই মহিলার মৃত্যু হয়। এদিকে রাজ্য ত্রাণ ও পুনর্বাসন দপ্তরের যোগাযোগ করা হলে আধিকারিকরা জানিয়েছেন রাজ্যে বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক বজ্র বিদ্যুৎ সহ ঝড় বৃষ্টি হয়েছে। বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতিও হয়েছে। কিন্তু এখনো প্রত্যন্ত এলাকা গুলি থেকে বিস্তারিত খবর এসে পোঁছাইনি। তবে জেলা শাসকদের ত্রাণ ও পুনর্বাসনে যাবতীয় নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

25-03-2017 05:18:29 pm

শীঘ্রই পাকিস্তান ও বাংলাদেশ সীমান্ত সিল করবে ভারত, জানালেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নয়াদিল্লি, ২৫ মার্চ (এ.এন.ই ): ভারতে জঙ্গি অনুপ্রবেশ বাড়ছে। প্রচুর জঙ্গি ঢুকছে এ দেশে। কিছুদিন আগেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে এই বার্তা দিয়েছিল বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশের সতর্কবার্তার কথা মাথায় রেখে পাকিস্তান ও বাংলাদেশ সীমান্ত সিল করার চিন্তাভাবনা করল ভারত সরকার। শনিবার মধ্যপ্রদেশের টেকানপুরের বিএসএফ অ্যাকাডেমিতে বক্তব্য রাখার সময় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেছেন, সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ ও অনুপ্রবেশ রুখতে খুবশীঘ্রই পাকিস্তান ও বাংলাদেশ সীমান্ত সিল করবে ভারত সরকার। এদিন পাকিস্তানকে তুলোধনা করে ভারতের সীমানা রক্ষায় নিয়োজিত সীমান্ত রক্ষী বাহিনী-র ভূয়শী প্রশংসা করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। রাজনাথ বলেছেন, `আন্তজার্তিক সীমান্তে রণনৈতিক ও কৌশলগত পরিবর্তন এনেছে বিএসএফ। নিজেদের সাহসিকতার জন্য পার্শ্ববর্তী দেশগুলির কাছে আজ সুপরিচিত বিএসএফ।' উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে বাংলাদেশ সরকারের রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০১৫ সালের চেয়ে ২০১৬ সালে ভারতে জঙ্গি অনুপ্রবেশ তিন গুণ বেড়েছে। পশ্চিমবঙ্গ, অসম, ত্রিপুরা সীমান্ত দিয়ে ভারতে ঢুকছে হরকত-উল-জিহাদি-আল-ইসলামি ও জামাত-উল-মুজাহিদিন বাংলাদেশ জঙ্গিরা। রিপোর্টে দেখা গিয়েছে, পশ্চিমবঙ্গ, অসম ও ত্রিপুরা এই তিন রাজ্যে প্রায় ২ হাজার ১০ জন হরকত-উল-জিহাদি-আল-ইসলামি ও জামাত-উল-মুজাহিদিন বাংলাদেশ জঙ্গিরা ভারতে ঢুকেছে।

25-03-2017 04:11:51 pm

রাজনৈতিক নেতা কে সমাজ বিরোধীদের সঙ্গে সমঝোতা করার চলার সুপারিশ পুলিশের

আগরতলা ২৪শে মার্চ (এ.এন.ই ): ত্রিপুরা পুলিশের বিরুদ্ধে এবার সামাজ বিরোধিদেরে সহযোগী এবং মধ্যস্থতাকারীর হবার অভিযোগ উঠল। হত্যার হুমকির দায়ে অভিযুক্তদের পক্ষ হয়ে অভিযোগকারীর কাছে সমঝতাকারীর ভূমিকা নামল পুলিশ। তৃনমূল কংগ্রেসের প্রদেশ চেয়ারম্যান রতন চক্রবর্তী বৃহস্পতিবার বিজেপিতে যোগদেন। এরপর ঐদিন রাতেই দুই যুবক পৃথকভাবে তার মোবাইল ফোনে হত্যার হুমকি দেয়। এরপরেই রতন চক্রবর্তী পূর্ব থানায় অভিযোগ দায় করেন। রতন চক্রবর্তী শুক্রবার জানিয়েছেন সমাজবিরোধী তাকে ফোন করে বিজেপিতে যোগদানের অপরাধে তার মৃত্যুদণ্ড হবে। তার শ্যাম হরি শর্মার মত হবে। উল্লেখ করা যেতে পারে ১৯৯১ সালে কংগ্রেস সরকারের আমলে রাজধানী আগরতলায় এক প্রকাশ্য জমায়েতে শ্যামহরি শর্মাকে নিশংশ ভাবে হত্যা করা হয়েছিলো। এই অভিযোগ দায় করার পর পূর্ব থানা থেকে দুই পুলিশ অফিসার রতন চক্রবর্তী বাড়িতে আসেন এবং তাকে আবেদন করেন তিনি যেন এই অভিযোগ প্রত্যাহার করে নেন। কারন অভিযুক্তরা খুবই সাধারণ। রতন চক্রবর্তী পুলিশকে জানিয়েছেন তাকে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে এখন সব দায়দায়িত্ব পুলিশের। এরপর প্রায় ২৪ঘণ্টা হতে চললেও দোষীদের গ্রেপ্তার করা হয়নি। রতন চক্রবর্তী জানিয়েছেন তিনি বিষয়টি নিয়ে রাজ্য পুলিশের মহানির্দেশকের কাছে যাবেন। এবং এটা স্বাভাবিক ভাবেই প্রমাণিত হয় তৃনমূল কংগ্রেসের নেতৃত্বে থাকা কতিপয় সমাজ বিরোধী তাকে প্রাননাশের হুমকি দিয়েছেন।

24-03-2017 07:10:29 pm

সীমান্তে বি.এস.এফ এর গুলিতে হতাহতদের আর্থিক সহায়তা দিল বিজেপি

আগরতলা ২৪শে মার্চ (এ.এন.ই ): সম্প্রতি সাব্রুম আন্তর্জাতিক সীমান্তে সীমান্ত সুরক্ষা বাহিনীর গুলিতে নিহত এবং ক্ষতিগ্রস্তদের আর্থিক সহায়তা দিল ভারতীয় জনতা পার্টি। মৃতদের পরিবার কে ৫০ হাজার টাকা এবং আহতদের প্রত্যেককে ১৫হাজার টাকা করে দিল বিজেপি। আজ বিজেপি প্রদেশ কার্যালয়ে আয়োজিত এক সাংবাদিক সন্মেলনে বিজেপির সভাপতি বিপ্লব দেব সংশ্লিষ্ট সকলের হাতে চেক তুলে দেন। তার সঙ্গে বিজেপির রাজ্য সহ সভাপতি সুবল ভৌমিক ও উপস্থিত ছিলেন। ক্ষতিগ্রস্তদের হাতে চেক দেওয়ার পর বিপ্লব কুমার দেব বলেন এই ঘটনাটি অনভিকৃত এবং এই ঘটনার উপযুক্ত তদন্তের জন্য কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর কাছে দাবি জানানো হয়েছে। সে অনুযায়ী কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। এবং দোষীদের অবশ্যই উপযুক্ত শাস্তি হবে। তিনি আরো বলেন ক্ষতিগ্রস্তদের নিয়ে শাসকদল যথেষ্ট রাজনীতি করেছে। কিন্তু এই দুষ্ট পরিবারের পাশে দাঁড়ানো কোন ভূমিকা নেয়নি রাজ্য সরকার। এমন কি এতই হত পরিবার গুলিকে আর্থিক সহায়তার পাশাপাশি পরিবারের একজন কে সরকারী চাকরী দেওয়ার ঘোষণা করার কোন প্রয়োজন মনে করলো না রাজ্য সরকার। বিজেপি মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে আপাতত সহায়তা হিসাবে এই আর্থিক ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার গুলির জন্য মঞ্জুর করেছে। এ নিয়ে কোন ধরনের রাজনীতি করার উদ্দেশ্য বিজেপির নেই। সাংবাদিক সম্মেলনে বিজেপির সহ সভাপতি সুবল ভৌমিক বলেন রাজ্যের শাসক দল নিপীড়িত মানুষকে নিয়ে সর্বকালীন রাজনীতি করে এসেছে। কিন্তু তারা কোনদিন সাধারণ এবং সর্বহারা মানুষের উন্নতি চায়নি। বিজেপি শাসক গোষ্ঠীর এ ধরনের আচরণের বিরুদ্ধে রাজ্যের সাধারণ মানুষ কে নিয়ে আন্দোলনে সামিল হয়েছে।

24-03-2017 05:55:26 pm

উপজাতি এলাকার বৃহৎ বামবিরোধী আঞ্চলিক দলের ভাঙ্গন, বিজেপির প্রভাব

আগরতলা ২৪শে মার্চ (এ.এন.ই ): রাজ্যের উপজাতি এলাকার বৃহত্তর আঞ্চলিক দল আইপিএফটি তে বড় ধরনের ভাঙ্গন ধরেছে। মূলত ত্রিপুরায় মোদীর ঝরের প্রকোপেই এই ভাঙ্গন ধরেছে বলে অনুমান করা হচ্ছে। বৃহস্পতিবার আইপিএফটি সহ সভাপতি বধূ দেববর্মার নেতৃত্বে আইপিএফটির অধিকাংশ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বর্তমান সভাপতি নরেন্দ্র চন্দ্র দেববর্মা কে পার্টি থেকে বহিষ্কার করেছে। সভাপতি পদ থেকে অপসারণ সহ দলের প্রাথমিক সদস্য পদ থেকেও ৬ মাসের জন্য বহিস্কার করা হয়েছে। শুক্রবার বুধু দেববর্মা একান্ত সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন নরেন্দ্র চন্দ্র দেববর্মা পার্টি বিরোধী নানা কার্য্যকলাপের সাথে যুক্ত। শুধু তাই নয় পার্টির নিয়ম শৃঙ্খলা এবং পার্টির সাধারণ কর্মীদের স্বার্থ উপেক্ষা করে ব্যক্তিগত সিদ্ধির চেষ্টা করেছেন। তিনি আরো বলেন এডিসি এলাকার সীমানায় উপনির্বাচনের সময় এই এনসি দেববর্মা বিজেপির কাজ থেকে দুলক্ষ টাকা নিয়েছিলেন। যদিও বিজেপি এই কেন্দ্রে বাম বিরোধী মহাজোট চেয়েছিল। কিন্তু এনসি দেববর্মা এই অর্থ পার্টির জন্য খরচ না করে ব্যক্তিগত কাজে ব্যায় করেছেন বলে অভিযোগ এবং তিনি এই বিষয়ে কোন সুপ্রস্ত উত্তরও দিতে পারেননি। অন্যদিকে এনসি দেববর্মা বলেন তিনি এখনো পার্টির সভাপতি। বিক্ষুব্ধ গোস্টি তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে। কিন্তু পার্টির সংবিধান রয়েছে আর এই সংবিধান অনুযায়ী এমনটা করা যায়না। তবে এটা স্পষ্ট বিজেপিকে কেন্দ্র করেই আইপিএফটি বিভাজন ঘটেছে এবং পার্টির একটি বড় অংশ এখন সরাসরি বিজেপিতে যোগ দিতে আগ্রহী। এই অবস্থায় উপজাতি বামবিরোধী রাজনৈতিক মঞ্চের অস্তিত্বও সংকটের মুখে এসে ঠেকেছে।

24-03-2017 02:46:09 pm

ত্রিপুরা থেকে চারটি আন্তর্জাতিক রেল পথের কাজ দ্রুত নিষ্পত্তি করতে চায় কেন্দ্রঃ রাজেন গৌহাই

আগরতলা ২৩শে মার্চ (এ.এন.ই ): শুধু আগরতলা-আখাউড়া নয় এবার আরো তিনটি নতুন আন্তর্জাতিক রেলপথের জন্য প্রস্তাব অনুমোদন দিল কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রক। এজেই সঙ্গে ত্রিপুরা থেকে অচিরেই রাজধানী এক্সপ্রেস চালানোর বিষয়ও কেন্দ্রীয় সরকার চিন্তা ভাবনা করছে। আজ আগরতলার সরকারী অতিথিশালায় আয়োজিত এক সাংবাদিক সন্মেলনে কেন্দ্রীয় রেল প্রতিমন্ত্রী রাজেন গৌহাই বলেন ২০১৮ সালের মধ্যে বিলোনিয়ায় রেলপথ পোঁছে যাবে। রেলপথ সম্প্রসারণের বিষয়ে রাজ্যের রাজ্যপাল তথাগত রায় এবং রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারের মধ্যে দীর্ঘ আলোচনা হয়েছে। তিনি বলেন ধর্মনগর, কৈলাশহর, কমলপুর, খোয়াই হয়ে রেলপথ বিলোনিয়ায় যাবে। তার সার্বের কাজ শুরুর জন্য অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এই পথ প্রায় ১২৫ কিলোমিটার দীর্ঘ। আগরতলা থেকে রাজধানী এক্সপ্রেস অথবা এর সমতুল্য ট্রেন চালানোর বিষয়ে চিন্তা ভাবনা চলছে। আর মধ্যেই এই পথে রাজধানী এক্সপ্রেসের ডেমো চালিয়ে সব পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হবে। তিনি জানান আগরতলা থেকে বাংলাদেশের আখাউড়া রেলের কাজ শুরু হয়েগেছে। পাশাপাশি এখন বিলোনিয়া থেকে বাংলাদেশের ফেনী, সাব্রুম থেকে সে দেশের চট্টগ্রাম এবং খোয়াই থেকে শায়েস্তাগঞ্জ এই নতুন আন্তর্জাতিক রেল পথের বিষয় গুলি অনুমোদন করে দিয়েছে কেন্দ্র সরকার। তিনি আরো বলেন যে আদলে কাজ হচ্ছে তায়তে আগরতলা অচিরেই একটি বিজনেস আপ হয়ে উঠবে। তাছাড়া দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন এবং প্রস্তাবিত ট্রান্স এশিয়া রেলওয়ের সঙ্গে ত্রিপুরা যুক্ত হওয়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আশা প্রকাশ করে বলেন যথেষ্ট ইতিবাচক গতিতে কাজ চলছে। ফলে আশা করা যায় ত্রিপুরার সামগ্রিক পরিস্থিতি খুব দ্রুত পাল্টে যাবে। বর্তমানে রাজ্যের রেলযাত্রীরা যে সব সমস্যার সম্মক্ষিন হচ্ছেন তারও দ্রুত নিষ্পত্তি হবে বলে তিনি জানান।

23-03-2017 04:58:43 pm

ত্রিপুরার তৃনমূল কংগ্রেস রতন চক্রবর্তী বিজেপিতে সামিল

আগরতলা ২৩শে মার্চ (এ.এন.ই ): তৃনমূল কংগ্রেসের প্রদেশ চেয়ারম্যান তথা প্রাক্তন মন্ত্রী রতন চক্রবর্তী বৃহস্পতিবার সদলবলে ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগদেন। বিজেপিতে তাদের স্বাগত জানাতে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় রেল রাষ্ট্রমন্ত্রী রাজেন গৌহাই। ত্রিপুরার তৃনমূল কংগ্রেসের বিপর্যয় ঘটিয়ে দিয়ে বৃহস্পতিবার প্রধান বাম বিরোধী নেতা প্রাক্তন মন্ত্রী তথা তৃনমূল কংগ্রেসের চেয়ারম্যান রতন চক্রবর্তী বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। একেই সঙ্গে তৃনমূল কংগ্রেসের রাজ্য কমিটির ৪১ জন পদাধিকারী সহ প্রায় ১৫০জন বিভিন্ন সতরের নেতা ঘাস ফুলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে দিয়ে পদ্ম শিবিরে সামিল হয়েছে। রতন চক্রবর্তী ছারাও রাজীব সমাদ্দার ক্ষমতাসীন সিপিআইএম সহ তৃনমূলের বর্তমান নেতাদের বিরুদ্ধে তীব্র আক্রমণ করেছেন। নবাগতদের স্বাগত জানাতে গিয়ে কেন্দ্রীয় রেল রাষ্ট্রমন্ত্রী রাজেন গৌহাই বলেন আগামী বিধানসভার নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে ত্রিপুরায় ক্ষমতায় আসছে বিজেপি। রাজ্যের সাধারণ মানুষের দুঃখ দুর্দশা নিরসনে সহায়ক ভূমিকা নিতে পারে। আর রতন চক্রবর্তী মত লড়াকু নেতারা বিজেপিতে সামিল হওয়ার ফলে পার্টির কাজে গতি আসবে। রতন চক্রবর্তী পরে বলেন কেন্দ্রের বর্তমান সরকার ত্রিপুরা সহ উত্তরপূর্বাঞ্চলের উন্নয়নে যে ভূমিকা নিয়েছে তা ইতিপূর্বে কোন সরকাই নিতে পারেনি। স্বাধীনতার পর কোন সরকারের মন্ত্রীরাই এভাবে ত্রিপুরার মত প্রত্যন্ত রাজ্যে নিয়মিত সফরে আসেননি। প্রকৃত অর্থে কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকারই এ রাজ্যে উন্নতি চাইছে। চক্রবর্তী আরো বলেন রাজ্যের সিপিআইএম সরকার জনগণকে অতিষ্ঠ করে তুলেছে। আর বিজেপি কেই তারা আসার আলো দেখছেন। এক্ষেত্রে তৃনমূলের গুরু দায়িত্ব যে সব নেতার কাছে রয়েছে তারা বরাবরই সিপিএম এর জন্য সহায়ক ভূমিকা নিয়েছেন। সিপিএম যখন দলীয় কর্মীদের বাড়িতে আগুন লাগায় তখন ঐ নেতারাই মোবাইল ফোনের সম্পর্ক ছিন্ন করে দিয়ে ভ্রমণে চলে যান। এরা এখন ছিন্ন হয়ে গেছেন। মানুষ তাদের বুঝে ফেলেছে। রাজ্যের নিপীড়িত মানুষদের এখন অন্তিম লক্ষ্য বিজেপি। তৃনমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি তথা প্রাক্তন মন্ত্রী সুরজিৎ দত্তও বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। তবে রতন চক্রবর্তীর বিজেপিতে সামিল হওয়ার পর তৃনমূল কংগ্রেস বেশ জোর ধাক্কা খেল অনুমান হচ্ছে।

23-03-2017 01:48:05 pm

তৃনমূল কে বাম বিরোধী নেতাদের ট্রানজিট ক্যাম্প বললেন বিজন ধর

আগরতলা ২২শে মার্চ (এ.এন.ই ): তৃনমূল কংগ্রেস ট্রানজিট ক্যাম্প বলেছেন ত্রিপুরার সিপিআইএম রাজ্য কমিটির সদস্য বিজন ধর। তার মতে অন্তিম লক্ষে পোঁছানোর আগে বিবেচনার স্থানে পরিনত হয়েছে তৃনমূল কংগ্রেস। সিপিআইএম এর কুমারঘাটে আয়োজিত এক জনসভায় ভাষণ দিতে গিয়ে বিজন ধর বলেন কেন্দ্রের বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর থেকে ত্রিপুরাও তাদের কার্য্যকলাপ বেড়েছে। কিন্তু ত্রিপুরার শুভবুদ্ধি সম্পন্ন মানুষ এই সাম্প্রদায়িক শক্তিকে কোন ভাবেই বরদাস্ত করবেনা। ফটিকরায় বিধানসভা কেন্দ্রে দুবারের পরাজিত প্রার্থী তথা তৃনমূল কংগ্রেসের বিশিষ্ট নেতা সুজিত পালকে সিপিআইএম এ লাল গোলাপ দিয়ে স্বাগত জানিয়ে বুধবার বিজন ধর বলেন ত্রিপুরায় তৃনমূল কংগ্রেস শুধুমাত্র ট্রানজিট ক্যাম্পের ভূমিকায় রয়েছে। কংগ্রেসের বিক্ষোব্দরা কোথায় যাবেন তাস্থির করার জন্য ট্রানজিট ক্যাম্পে তারা প্রাথমিক আশ্রয় নিচ্ছেন। সেখান থেকে তারা সিধান্ত নিচ্ছেন তারা বিজেপিতে না সিপিএম এ যাবেন। ইতিমধ্যেই তৃনমূল কংগ্রেস ছেড়ে বেশ কিছু নেতা বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন এবং পাশাপাশি সিপিএমও যোগ দিয়েছেন। সিপিআইএম রাজ্য কমিটির সদস্য বিজন ধর বলেন বামেরাই এদেশে জনগণের প্রকৃত বিকল্প। আর এই সত্য অনুধাবন করার সময় এসেগেছে। কারন কংগ্রেস এখন তাদের নিজেদের কার্য্যকলাপের ফলেই চরম বিপর্যয়ের সম্মুখীন। কেন্দ্রের এন.বি.এ সরকারের বিজেপি শাসিত এবং অ-বিজেপই শাসিত রাজ্য গুলির মধ্যে পক্ষপাতমূলক আচরণের অভিযোগ করেছেন, একেই সঙ্গে এরাজ্যে কে নানাভাবে বঞ্চিত করার অভিযোগ তিনি করেন।

22-03-2017 07:08:08 pm

আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী বিরুদ্ধে বামফ্রন্ট সরকারের অবস্থান নিয়ে বিজেপির প্রশ্ন

আগরতলা ২২শে মার্চ (এ.এন.ই ): ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারের নির্বাচনী ক্ষেত্র ধনপুরে ভারতীয় জনতা পার্টি বেশ জোর শোরে কাজ শুরু করেছেন। ফলে এলাকায় রাজনৈতিক উত্তাপ বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিজেপি রাজ্য নেতৃত্বরা মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচনী ক্ষেত্রে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার এবং বামফ্রন্ট সরকারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদীদের বিরুদ্ধে নমনীয় মনোভাব নেবার অভিযোগ তুলেছেন। গত তিন যাবৎ ধনপুর, নলছড়, সোনামুড়া এবং ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী বক্সনগরে একক জনসম্পর্ক অভিযান শুরু করেছে বিজেপির নেতৃত্বরা। জানাগেছে পরিস্থিতি স্বাভাবিকে আগামীকাল মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার নির্বাচনী ক্ষেত্রে ধনপুর সফরে যাচ্ছেন। নলছড় বাজারে এক জনসম্পর্ক প্রমুখ অধ্যাপক অশোক ভট্টাচার্য মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার এবং বামফ্রন্ট সরকারের বিরুদ্ধে মৌলবাদের সন্ত্রাসীদের বিষয়ে নমনীয় মনোভাব নেবার অভিযোগ তুলেছেন। তিনি অভিযোগ করেন মামুন মিয়াঁ থেকে শুরু করে হাবিব মিয়াঁ পর্যন্ত বহু আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী এরাজ্য থেকে ধরা পড়েছে। কিন্তু এরাজ্যের পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করতে পারেনা। সবকটি ক্ষেত্রেই বহিরাজ্যের পুলিশ ও গোয়েন্দারা এসে তাদের তুলে নিয়েগেছে। তিনি আরো বলেন এই সন্ত্রাসবাদীরা সিপিএম এর ছত্রছায়ায় থেকে তাদের জাল বিস্তার করছে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা গেছে শাসক দলের নেতারাই তাদের মদত জুগিয়েছে। আর শাসক দল পুলিশের হ্রাস ধরে রেখেছে। ফলে এ-রাজ্যের পুলিশ স্বাধীন ভাবে কাজ করতে পারছেনা। অধ্যাপক অলোক ভট্টাচার্য বলেন সিপিআইএম রাজ্যের মানুষের গরিবি বহাল রাখতে চায়। অন্যথায় ক্ষমতায় টিকে থাকা যাবেনা। রাজ্যের জনসংখ্যার মোট ২৫লক্ষ দারিদ্র্য সীমার নিচে বসবাস করছে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর জনধোন যোজনায় মাত্র ৮লক্ষ লোকের ব্যাঙ্ক একাউন্ট খোলা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী আবাসযোজনায় উপযুক্ত দের ঘর দেওয়া হচ্ছে না। কেন্দ্রীয় সরকারের প্রকল্প গুলিকে এইভাবে ইচ্ছাকৃত ভাবে এরাজ্যে বাস্তবায়িত হতে দেওয়া হচ্ছেনা। উল্লেখ করা যেতে পারে সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলি বহু বছর ধরেই ক্ষমতাসীন সিপিআইএম এর অভেদ্যদুর্গ বলে বিশেষ পরিচিত। আর বিজেপি এই সমস্ত এলাকায় কাজ শুরু করায় রাজনৈতিক উত্তেজনা এখন চরমে।

22-03-2017 02:28:14 pm

প্রধানমন্ত্রী এমনকি টিএমও এর সঙ্গে সাক্ষাতে ব্যর্থ তৃনমূল বিধায়করা, ক্ষোভ

আগরতলা ২১শে মার্চ (এ.এন.ই ): রাজ্যের তৃনমূল কংগ্রেস বিধায়কদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী দেখা করলেন না। এমনকি প্রধানমন্ত্রী দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী জিতেন্দ্র সিং তাদের সাক্ষাতের সময় দিয়েও দেখা করলেননা। চারদিন দিল্লীতে সাক্ষাতের অপেক্ষায় থেকে ব্যর্থ হয়ে মঙ্গলবার আগরতলায় ফিরে এসেছেন তৃনমূলের নেতারা। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিপ্তে তীব্র ক্ষুব্ধ তৃনমূল নেতারা। রাজ্যে ফিরে তৃনমূল কংগ্রেসের সভাপতি আশিষ কুমার সাহা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন তৃনমূল কংগ্রেসের বিধায়করা প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎকারে ব্যর্থ হয়েছেন। রাজ্যে রোজভ্যালী সহ অন্যান্য চিট ফান্ড কেলেঙ্কারী এবং তাতে এরাজ্যের বামফ্রন্ট সরকারের মন্ত্রীদের লিপ্ত থাকার বিষয় নিয়ে অভিযোগ জানাতে তারা দিল্লী গিয়েছিলেন। রাজ্যের ১৪ লক্ষ মানুষ রোজ ভ্যালীর কেলেঙ্কারীতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। তাই তৃনমূল কংগ্রেস মানুষের স্বার্থে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গিয়েছিলেন। তিনি বলেন পরবর্তী সময় প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের রাষ্ট্র মন্ত্রী তথা উত্তরপূর্বাঞ্চলের উন্নয়ন মন্ত্রী জিতেন্দ্র সিং তাদের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় দেন। কিন্তু পরবর্তী সময় তিনিও তৃনমূল বিধায়কদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেননি। আশিষ সাহা বলেন এ ধরনের অভিজ্ঞতা বিধায়কদের ছিলনা। কেন্দ্রীয় সরকার আইন সভার সদস্যের মর্যাদা হানি করেছেন বলেও তিনি অভিযোগ করেন।

21-03-2017 07:21:57 pm

রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে এবার সরাসরি কেন্দ্রীয় হস্তক্ষেপ চাইলেন বিজেপি

আগরতলা ২১শে মার্চ (এ.এন.ই ): আচমকা বিজেপির এক প্রতিনিধি দল রাজ্যপালের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। রাজ্যে ক্রমবর্ধমান রাজনৈতিক সংগ্রামের পরিপ্রেক্ষিপ্তে এই সফর যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। বিজেপি ইতিমধ্যেই রাজ্যের রাজনীতি সংগ্রাম দমনে কেন্দ্রীয় হস্তক্ষেপ দাবী করেছে। বিজেপি রাজ্য সভাপতি বিপ্লব কুমার দেব এবং বিজেপি সর্ব ভারতীয় কমিটির সম্পাদক সুনীল দেওধর নেতৃত্বে বিজেপির এক প্রতিনিধি দল রাজভবনে গিয়ে রাজ্যপাল তথাগত রায়ের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হন। প্রায় ১ঘণ্টা বেশী সময় ধরে চলে এই বৈঠক। বৈঠক শেষে রাজ্য বিজেপি সভাপতি বিপ্লব কুমার দেব জানান রাজ্যের ক্রমবর্ধমান রাজনৈতিক সংগ্রাম, রাজ্যের মানুষের গণতন্ত্রের অধিকার কে কেরে নিচ্ছে। বিজেপির কর্মী সমর্থকদের উপর হামলা চালানো হচ্ছে। সিপিআইএম এর ক্যাডার বাহিনী এই হামলায় ইতিমধ্যেই বহু লোক হতাহত হয়েছেন। এখনো জিবি হাসপাতালে অনেকেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে। গত ১মাসে ১১টি হামলার ঘটনা সংঘটিত হয়েছে। বিপ্লব দেব আরো বলেন এখন সিপিএম এর ক্যাডার বাহিনী শুধু বিজেপি কর্মীদের উপরেই হামলা করছেননা তাদের পরিবারের সদস্যদের উপর নানা ভাবে হয়রানী করছে। তাছাড়া বিজেপি কর্মী সমর্থক মহিলাদের এমনকি তাদের পরিবারের মহিলারাও এই সন্ত্রাস থেকে বাদ যাচ্ছেনা। মহিলাদের শ্লীলতাহানি করা হচ্ছে। তিনি আরো বলেন ইদানিং কালে বিজেপির অগ্রগতির পরিপ্রেক্ষিপ্তে সিপিআইএম ভয় পেয়ে নানান ভাবে এই ধরনের বর্বরোচিত আক্রমণ করে থাকে। রাজ্যপালের কাছে বিজেপি এক প্রতিলিপি তুলে ধরেছে। সেই প্রতিলিপি তে বিভিন্ন ঘটনার বিস্তারিত তথ্য দেওয়া হয়েছে বলে জানান বিপ্লব দেব। পাশাপাশি রাজ্যপালের কাছে অনুরোধ করা হয়েছে তিনি যেন কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে বিষয়টি উত্থাপন করেন। রাজ্যসরকারের কাছে আবেদন নিবেদন করে কোন লাভ হচ্ছেনা বলে জানান বিপ্লব কুমার দেব। তিনি জানান পুলিশের কাছে বিভিন্ন অনেক অভিযোগ করা হয়েছে। এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিপ্তে পুলিশ কোন পদক্ষেপই গ্রহণ করেননি। এবস্তায় কেন্দ্রীয় হস্তক্ষেপ ছাড়া আর অন্য কোন বিকল্প নেই বলে জানান বিপ্লব দেব। বিপ্লব দেব জানিয়েছেন রাজ্যে ১৮ নির্বাচনে রাজ্যে বামফ্রন্ট সরকার নানা ভাবে এই কার্য্যকলাপ কে বাড়িয়ে তুলবে। যার ফলে রাজ্যে গণতন্ত্র বজায় রাখা সম্ভব নয়। শান্তিপূর্ণ ভাবে নির্বাচন হওয়া অসম্ভব ফলে কেন্দ্রীয় হস্তক্ষেপ বিশেষ প্রয়োজন বলে মনে করে বিপ্লব কুমার দেব।

21-03-2017 06:11:51 pm

বাংলাদেশে আরো ৬০ ম্যাগাওয়াট বিদ্যুৎ বিক্রির জন্য চুক্তি স্বাক্ষরিত

আগরতলা ২১শে মার্চ (এ.এন.ই ): ত্রিপুরা থেকে আরো ৬০ম্যাগাওয়াট বিদ্যুৎ বাংলাদেশে বিক্রয় বিষয়টি চূড়ান্ত হয়ে গেছে। বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় এই বিষয়ে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। রাজ্য সচিবালয়ে এক শীর্ষ স্থানীয় আধিকারিক জানিয়েছেন গত ১৭মার্চ ঢাকায় ভারত ও বাংলাদেশের আধিকারিকদের মধ্যে চুক্তি অনুযায়ী অতিসত্ত্বর বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হবে। সচিবালয়য়ের এক আধিকারিক জানিয়েছেন বাংলাদেশ ত্রিপুরা থেকে আরো বিদ্যুৎ চাইছে। বাংলাদেশের বিদ্যুৎতের যথেষ্ট ঘাটতিও রয়েছে। সেদেশ ইতিমধ্যেই আরো ১০০ ম্যাগাওয়াট বিদ্যুৎ চেয়েছেন। কিন্তু বাংলাদেশের ভিতরে পরিবাহী লাইন সেই মাত্রায় বিদ্যুৎ নেওয়ার উপযোগী নয়। সেদেশ ইতিমধ্যেই তাদের পরিবাহী ব্যবস্থার মান উন্নয়নে উদ্যোগ নিয়েছে। এ প্রক্রিয়া শেষ হলে রাজ্য থেকে বাংলাদেশের চাহিদামত বিদ্যুৎ সরবরাহ করা যাবে। ইতিমধ্যেই বাংলাদেশ ত্রিপুরা থেকে ১০০ম্যাগাওয়াট বিদ্যুৎ নিচ্ছে। পালাটানা বিদ্যুৎ প্রকল্পে উৎপাদিত এই বিদ্যুৎ বাংলাদেশের ঘাটতি পূরণে যথেষ্ট সহায়ক হয়েছে। তবে এখন প্রস্তাবিত ৬০ ম্যাগাওয়াট বিদ্যুৎ নেপকোর মনাচোক প্রকল্প থেকে বাংলাদেশে পাঠানো হবে।

21-03-2017 02:37:27 pm

ত্রিপুরা থেকে ধৃত পশ্চিমবঙ্গের খুনের আসামী

আগরতলা ২০শে মার্চ (এ.এন.ই ): খুনের দায়ে অভিযুক্ত ত্রিপুরার এক যুবক কে সোমবার তুলে নিয়ে গেছে পশ্চিমবঙ্গের পুলিশ। ধৃত যুবক কে স্থানীয় আদালতে হাজির করা হয়। এবং পরে ট্রানজিট রিমান্ডে পশ্চিমবঙ্গে নিয়ে যায় কোলকাতা পুলিশ। কোলকাতা পুলিশ জানিয়েছে প্রায় ৪ বছর আগে উত্তর ২৪ পরগনার গাইহাটা এলাকার দুজন কে হত্যা করে পালিয়ে যায়। দীর্ঘদিন বাদে কোলকাতা পুলিশ ত্রিপুরার ধর্মনগরে অভিযুক্ত খুনির সন্ধান পেয়ে দ্রুত ছুটে আসে। রবিবার গভীর রাতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। পশ্চিমবঙ্গের পুলিশের এই কাজে সহয়তা করে ত্রিপুরা পুলিশ। আজ তাকে আদালতে পেশ করে এবং ট্রানজিট রিমান্ডে কলকাতা নিয়ে যাওয়া হয়েছে। উল্লেখ করা যেতে পারে দু-দিন আগে ত্রিপুরা থেকে এক সন্ধিগ্ধ আই এস আই জঙ্গি কে তুলে নিয়ে যায় কর্ণাটক পুলিশ।

20-03-2017 07:23:41 pm

আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসীদের নিরাপদ করিডোর হয়ে উঠছে ত্রিপুরা সীমান্ত এলাকা

আগরতলা ২০শে মার্চ (এ.এন.ই ): আন্তর্জাতিক মৌলবাদী সন্ত্রাসী সংঘটন গুলি ত্রিপুরাকে করিডোর হিসাবে ব্যবহার করছে। ইতিপূর্বেও বহুবার এজাতীয় তথ্য প্রমান পাওয়া গেছে। কিন্তু ব্যঙ্গালুরু বোমা বিস্ফোরণে অভিযুক্ত হাবিব মিয়াঁকে ত্রিপুরা থেকে ধরে নিয়ে যাওয়ার পর বিষয়টি আরো প্রস্ত হয়ে উঠেছে। ত্রিপুরায় কর্মরত কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা এসআইবি এর এক আধিকারিক জানিয়েছেন এখন পর্যন্ত ত্রিপুরা থেকে যে সব সন্ত্রাসী কে পাকরাও করা হয়েছে তাদের প্রত্যেকেই বাংলাদেশ এবং ত্রিপুরায় ঘনিষ্ঠ যোগাযোগের বহু তথ্য প্রমাণ পাওয়া গেছে। এরাজ্যে মৌলবাদীদের তেমন কোন সক্রিয় কার্য্যকলাপ নেই। ফলে রাজ্যের সুরক্ষা বাহিনী গুলিও এসব বিষয়ে তেমন গুরুত্ব দেয়না। আর এই সুযোগে ত্রিপুরার সীমান্তবর্তী বেশ কিছু এলাকাকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসীরা নিরাপদ আশ্রয়স্থল এবং ভারতীয় ভূখণ্ডে যাতায়াতের নিরাপদ মাধ্যম হিসাবে ব্যবহার করছে। গোয়েন্দা আধিকারিক জানিয়েছেন, ইতিপূর্বে বহিরাজ্যের গোয়েন্দা বাহিনীগুলির তৎপরতায় আগরতলা থেকে ধরা পরা সগম আলী কিংবা মামুন মিয়াঁ এবং সদ্য ধরা পরা হাবিব মিয়াঁ প্রত্যেকেই বাংলাদেশ ও ত্রিপুরার মধ্যে অবৈধভাবে যাতায়াত করার তথ্য প্রমাণ পাওয়া গেছে। শুধু তাই নয় সীমান্তের উভয়দিকেই তাদের যথেষ্ট প্রভাব পরিপত্তিও ছিল। তদন্তে বেরিয়ে এসেছে এই আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসীদের মদত দেওয়ার জন্য এবং নানা ভাবে সাহায্য সহযোগিতা করার জন্য এরাজ্যের মাটিতে কিছু লোক পরোক্ষভাবে সক্রিয় রয়েছে। কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত তথ্য প্রমাণ না থাকায় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব হচ্ছেনা। এমনকি এসন্ত্রাসীরা রাজ্যের স্থায়ী বাসিন্দা হিসাবে প্রমাণ করার জন্য ভোটার কার্ড এবং নাগরিকত্বের প্রমাণ পত্রও বের করে নিচ্ছে। উল্লেখ করা যেতে পারে সগম আলীকে গ্রেপ্তার করে বিএসএফ এর গোয়েন্দা শাখা আর মামুন মিয়াঁ কে আগরতলা থেকে তুলে নিয়ে যায় কোলকাতা পুলিশ। যেখানে হাবিব মিয়াঁ কে এই আগরতলা থেকেই গ্রেপ্তার করেছে কর্ণাটকের এটিএস।

20-03-2017 01:48:38 pm

২২শে আগরতলায় ভারত বাংলাদেশ সেনার যৌথ প্রদর্শনী

আগরতলা ১৯শে মার্চ (এ.এন.ই ): ভারত বাংলাদেশ সেনা বাহিনীর সন্ত্রাসবাদ প্রতিরোধে যৌথভাবে দু-দেশের জনগনকে সচেতন করার উদ্যোগ নিয়েছে। আগামী ২২শে মার্চ দু-দেশের সেনা বাহিনী রাজধানী আগরতলায় পথসঞ্চালন করবে। এলক্ষে বাংলাদেশের সেনাবাহিনীর ১৯ জনের এক প্রতিনিধি দল রাজ্যে এসেছেন। তাদের স্বাগত জানাতে সীমান্তে ভারতীয় সেনা বাহিনীর আধিকারিকরা উপস্থিত ছিলেন। ২২শে মার্চ প্রস্তাবিত দু-দেশের সেনাবাহিনীর পথ সঞ্চলন কে আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। রাজ্যে এধরনের দু-দেশের সেনাবাহিনীর যৌথ প্রদর্শন এই প্রথম। রাজ্যস্থিত ভারতীয় সেনা বাহিনীর আধিকারিক জানিয়েছেন বাংলাদেশের সেনাবাহিনীর প্রতিনিধি দলের একটি অংশ ভারতীয় সেনাবাহিনীর জোয়ানদের সঙ্গে রাজধানীর আগরতলায় একটি সাইকেল র‍্যালিতে উদ্যোগ নেবেন। দু-দেশের মধ্যে সন্ত্রাসবাদ দমন এবং সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে দু-দেশের মানুষদের কে আরো বেশী করে সজাগ করে তোলার জন্য এই ধরনের প্রয়াস নেওয়া হয়েছে। ভারত বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে ঢাকায় অনুষ্ঠিত বৈঠকের পর সন্ত্রাসবাদ দমনে দু-দেশের ঐক্যবধ্য ভাবে প্রয়াস চালানোর ঘোষণা দিয়েছেন। যার এরেই অংশ হিসাবে দু-দেশের সেনাবাহিনী যৌথ প্রদর্শন সীমান্ত রাজ্য ত্রিপুরার রাজধানী আগরতলায়।

19-03-2017 04:21:54 pm

ত্রিপুরায় ক্রমবর্ধমান রাজনৈতিক সন্ত্রাসের অভিযোগ নিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সতর্কবার্তা

আগরতলা ১৯শে মার্চ (এ.এন.ই ): ত্রিপুরায় ক্রম বর্ধমান রাজনৈতিক সন্ত্রাসের অভিযোগ কে কেন্দ্র করে ক্ষমতাসীন সিপিআইএম এবং বিরোধী বিজেপির মধ্যে সংহাত আরও তীব্র হওয়ার সম্ভবনা দেখা দিয়েছে। বিষয়টি কেন্দ্র রাজ্য সম্পর্কে অবনতি ঘটাতে পারে বলে অনুমান করা হচ্ছে। রাজ্য সফররত কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী রাধামোহন সিং শনিবার রাতে সরকারী অতিথিশালায় প্রদেশ বিজেপি নেতাদের নিয়ে কয়েকদফা বৈঠক করেছেন। ক্রমবর্ধমান রাজনৈতিক সন্তাসের অভিযোগ নিয়েই মুলত আলোচনা হয়েছে। বৈঠক গভীর রাত অব্দি চলে বলে জানা গেছে। বৈঠকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজ্য নেতৃত্ব কে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি বিষয়গুলি আগামীকাল দিল্লীতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং এর সঙ্গে কথা বলবেন। জানা গেছে রবিবার সকালে তিনি সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে রাজ্যের রাজ্যপাল তথাগত রায়ের সঙ্গে এক বৈঠকে মিলিত হন। বৈঠক শেষে তিনি সোজা চলে যান আগরতলা সরকারী মেডিক্যাল কলেজে। সেখানে সম্প্রতি সিপিআইএম এর ক্যাডার বাহিনী কথিত আক্রমণে আহত চিকিৎসাধীন বিজেপি কর্মীদের শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নেন। তিনি কর্তব্যরত চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মীদের সঙ্গেও কথা বলেন। পরে জিবি হাসপাতালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাধামোহন সিং বলেন সিপিআইএম এখন বর্বরোচিত কার্য্যকলাপে নেমেছে। এইধরনের কার্য্যকলাপ সহ্য করা যায়না। কোন ধরনের প্ররোচনা ছারাই বিজেপি কর্মীদের উপর হামলা চালানো হচ্ছে। রাজ্য সরকারের জন্যও এটা লজ্জা জনক। ক্ষমতাসীন দল মানবাধিকার হনন করছে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আরো বলেন অনেক হয়ে গেছে। অনেক বিজেপি কর্মীর প্রাণ গেছে, নানা ভাবে পরিবারের লোকজন কে লাঞ্ছিত করা হয়েছে। এখন আর বিষয়টি হাল্কাভাবে নেওয়া যাবে না। আর এই ধরনের ঘটনা ঘটলে রাজ্যের শাসকদল এবং বামফ্রন্ট সরকার এর পরিনামের জন্য দায়ী থাকবে। শনিবার ২ দুদিনের রাজ্য সফরে এসে কেন্দ্রীয় কৃষি মন্ত্রী রাধামোহন সিং ইতিমধ্যেই বিভিন্ন কেন্দ্রীয় প্রকল্পে বাস্তবায়ন এরাজ্যে সঠিক ভাবে হচ্ছে কিনা তা খোঁজ খবর নিয়ে দেখেন।

19-03-2017 01:17:00 pm



স্পট লাইট


Deprecated: mysql_connect(): The mysql extension is deprecated and will be removed in the future: use mysqli or PDO instead in /home/ad934d83/public_html/connect/connect.php on line 7

সাপ্তাহিক রাশিফল

হোয়াটস্ অ্যাপ

Copyright © 2012 আগরতলা নিউজ এক্সপ্রেস. All Rights Reserved.