• নিয়মিতকরণের দাবীতে আমরণ অনশনের হুমকি সর্ব শিক্ষার শিক্ষকদের
  • ফের চালু হচ্ছে পাশ ফেল প্রথা
  • অমরপুর মহারানিস্থিত শিব বাড়িতে শিবের আরাধনা
  • শিক্ষক কর্মচারীদের বছরে আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ ৬০ হাজার টাকা, চাপে সরকার
  • রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত কুমারঘাট মহকুমা সদর
  • আগুনে পুড়িয়ে গৃহবধূকে হত্যা, ধৃত স্বামী
  • শীঘ্রই শিক্ষক-কর্মচারীদের বদলিনীতি নিয়ে মুখ খুলতে চায় বিজেপি
  • বেহাল রাস্তার দরুন বিগত তিনদিন ধরে শ্রীমন্তপুরে আমদানি রপ্তানি ব্যবসা বন্ধ
  • তিপ্রাল্যান্ডের নামে আন্দোলনকারীদের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন এন.সি দেববর্মাঃ রাধাচরণ দেববর্মা
  • ১:১ ফর্মুলায় বিধানসভার নির্বাচনে প্রার্থী দেবে বিজেপি
  • সিপিএম ঘেরাও অমরেন্দ্রনগরে
  • বিজেপিতে যোগ দিতে দিল্লীমুখি ত্রিপুরার ছয় বিধায়ক
  • বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণে অভিযুক্ত যুবক গ্রেপ্তার
  • দুর্নীতিগ্রস্ত উপাচার্যের বরখাস্তের দাবীতে বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপকদের মুখে কালো বেঁধে প্রতিবাদ
  • কেন্দ্রীয় বরাদ্দ ঠিকমত না রাজ্যে না আসায় হতাশ অর্থমন্ত্রী
  • এনসি'র ফাঁকি ধরা পরে গেলো: অর্থমন্ত্রী
  • চাকরি দেবার নামে প্রতারণা
  • ভোমরাছড়া ভিলেজের মানুষের সার্বিক উন্নতিতে এগিয়ে এলো নবম টিএসআর বাহিনী
  • দ্রুত রেল পরিষেবা চালু করতে প্রশাসনিক স্তরে তৎপরতা শুরু
  • ত্রিপুরা কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্নীতি ঢাকতে তদন্তের দায়িত্ব অভিযুক্তদের হাতেই
  • নারী নির্যাতনের দায়ে অভিযুক্ত আইনজীবী বিদ্যুৎ ঘোষের অন্তর্বর্তী জামিন
  • বিজেপি-সিপিআইএম সংঘর্ষে মৃত ১, আজ লংতরাইভ্যালি ১২ ঘণ্টার বনধ
  • রাজ্যপালের প্রশংসা, মানিককে নৈতিকতার পাঠ বিপ্লবের
  • অবরোধ প্রত্যাহারের সম্ভাবনা নিয়ে অচলাবস্থা, ভাঙনের মুখে আইপিএফটি
  • আইপিএফটির অনির্দিষ্ট কালীন সড়ক ও রেল অবরোধের দশম দিনে প্রত্যাহারের সম্ভাবনা

স্পেশাল আর্টিকেল

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

ইক্সক্লোসিভ ভিডিও

ডেনমার্কে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম লম্বা ডিম! দেখুন কীভাবে লম্বা ডিম পাড়ে মুরগী

হোলির রাতে তৃণমূল কংগ্রেস এবং বিজেপির মধ্যে সংঘর্ষের পর সাংবাদিক সন্মেলনে বিপ্লব

চিটফান্ড ইস্যুতে রাজ্য ও কেন্দ্র সরকারকে তথ্য সহ বিঁধল সুদীপ

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

টপ ফাইভ

মুখ্যমন্ত্রীকে অবরুদ্ধ হওয়ার জন্য তৈরী থাকতে বললো বিজেপি

আগরতলা ১৭ই জুলাই (এ.এন.ই ): আইপিএফটির চলতি অবরোধ নিয়ে জটিলতার অবসানে মুখ্যমন্ত্রী যেভাবে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংএর উপর দায়িত্ব ছেড়ে দিলেন তাতে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন বিজেপি। বিজেপি মনে করেন মুখ্যমন্ত্রী তার দায়িত্ব এড়ানোর চেষ্টা করছে এবং মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যে স্পষ্ট হয়ে গেছে রাজ্যের শাসকদলের ইন্ধনেই এই অবরোধ চলছে। বিজেপির প্রদেশ প্রভারী তথা বিজেপির সর্বভারতীয় সম্পাদক সুনীল দেওধর বলেন, মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারের সাংবিধানিক বিষয় সম্পর্কে কোন ধারনা নেই। মুখ্যমন্ত্রীর জানা উচিৎ পৃথক রাজ্যের বিষয়টি যদিও কেন্দ্রীয় সরকারের আওতাধীন বিষয় কিন্তু সংশ্লিষ্ট বিষয়ে রাজ্য বিধানসভায় প্রস্তাব আসতে হয় এবং এই প্রস্তাব পাস হওয়ার পরই তা কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে পাঠানো হয়। নতুন রাজ্য গঠনের জন্য তখনই কেন্দ্রীয় সরকার বিবেচনা করতে পারে। রাজ্য সরকারের সিদ্ধান্ত ব্যাতিরেখে কেন্দ্রের কিছু করার এক্তিয়ারই নেই। এখন বিপাকে পরে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার তার দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর উপর দায়ভার চাপিয়ে দেবার চেষ্টা করেছেন। এই ধরনের চেষ্টা কোন মুখ্যমন্ত্রীকে শোভা পায় না। দেওধর আরও বলেন, বিজেপি আরও আগে থেকেই বলে আসছিলো এর পেছনে শাসক দলের মদত রয়েছে। অন্যথায় তাঁরা এই ধরনের আন্দোলন চালিয়ে যেতে পারে না। রাজ্য সরকার এই বিষয়ে তার দায়িত্ব এড়ানোর কোন সুযোগ নেই। অবরোধ মুক্ত করা, জনজীবন স্বাভাবিক রাখা রাজ্য সরকারের দায়িত্ব। এই দায়িত্ব থেকে পিছুপা হবার কোন সুযোগ নেই। কেন্দ্রের উপর দায়িত্ব তুলে দিলে হবে না। তিনি আরও জানান, বিজেপি আগেই ঘোষণা করেছে জাতীয় সড়ক ও রেলপথ অবরোধ মুক্ত করে জনজীবন স্বাভাবিক করতে হবে। কারণ আইন শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব রাজ্য সরকারের । বিজেপি ৪৮ ঘণ্টার সময় দিয়েছে। আর এই সময়সীমা অতিবাহিত হয়ে যাবার পর সড়ক ও রেলপথ অবরোধ মুক্ত না হলে মুখ্যমন্ত্রীকে অবশ্যই অবরুদ্ধ থাকার মজা বোঝানো হবে। বিজেপির ১০ হাজার কর্মী মুখ্যমন্ত্রীকে তার সরকারি আবাসেই ঘেরাও করে রেখে দেবে। রাজ্যের জনগণ যে সমস্যায় ভুগছে তার অনুভূতি তাকেও কিছুটা নিতে হবে। বিজেপি এই সিদ্ধান্ত অনড় এবং অবরুদ্ধ হওয়া থেকে রেহাই পেতে গেলে জাতীয় সড়ক ও রেলপথ অবরোধ মুক্ত করতে হবে বলেও তিনি জানান।

17-07-2017 03:32:14 pm

ক্ষমতায় এলেই এডিসিকে রাজ্য পরিষদে উন্নীত করবে বিজেপি

আগরতলা, ১৪ জুন(এ.এন.ই): বিজেপি রাজ্যে সরকার গঠন করলে উপজাতি প্রধান এলাকা গুলি নিয়ে গড়া স্বশাসিত জেলা পরিষদকে রাজ্য পরিষদে উন্নীত করবে বলে আবারও ঘোষণা দিয়েছে। একি সঙ্গে এই ইস্যুতে ক্ষমতাসীন সিপিএম এর তীব্র নিন্দাও করেছে বিজেপি। বিজেপির প্রবীণ উপজাতি নেতা জিষ্ণু দেববর্মা শনিবার সংবাদিকাদের বলেন, গতকাল সিপিএম এর রাজ্য সম্পাদক বিজন ধর রাজ্য পরিষদ সম্পর্কে যে মত ব্যক্ত করেছেন তা অপ্রাসঙ্গিক এবং তার জ্ঞানের পরিধির সীমাবদ্ধতাকে প্রমাণ করে। তিনি সংবিধানের যে অধ্যায় গুলির কথা উল্লেখ্য করেছে তাও ভ্রান্ত। রাজ্য রাজ্য পরিষদ অর্থাৎ স্টেট কাউন্সিল নিয়ে রাজ্য বিধানসভায়ও আলোচনা হয়েছে। যদিও রাজ্যও সরকার তখন তা নাকচ করে দেয়। তিনি আরও জানান, রাজ্যে টানা দুই দশকেও বেশি সময় ধরে সিপিএম এর ক্ষমতায় থাকলেও উপজাতি এলাকার উন্নয়ন হয়নি। অন্যথায় আজকের পরিস্থিতি তৈরি হতনা। উপজাতিদের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। এবং দীর্ঘ বঞ্চনার ফলেই এই ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। এই জন্য কোন ভাবেই রাজ্যে ক্ষমতাসীন দল সিপিআইএম তাদের দায় এরাতে পারেনা। আগামী দিনে উপজাতি প্রধান এলাকা গুলি উন্নয়নের জন্য এবং তাদের জীবন যাত্রা উন্নয়নের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের সরাসরি অর্থ বরাদ্দ দরকার। আর এই জন্যই এডিসিকে স্টেট কাউন্সিলে উন্নতি করা খুব প্রয়োজন। তিনি উল্লেখ্য করেন স্টেট কাউন্সিল বিষয়টি নতুন নয় উপিএ সরকার ক্ষমতায় থাকার সময় কেন্দ্র-থেকে একটি খসড়া বিল পাঠানো হয়েছিল যেটাতে স্টেট কাউন্সিল গঠনের কথা বলা হয়। কিন্তু রাজ্য সরকার তা নাকচ করে দেয়। পরবর্তীতে এন্ডিএ সরকার আসার পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজ নাথ শিং আরেকটি বিল প্রস্তুত করে রাজ্য সরকারের কাছে পাঠায়। ২০১৫ সালের ২৩ এপ্রিল পাঠানো সেই খসড়া বিলের জবাব এখনো দেয়নি রাজ্য সরকার।এই ধরনের কার্যকলাপ প্রমাণ করে সিপিআইএম পরিচালিত বাম সরকার রাজ্যের উপজাতিদের পতি কতটা দায়বদ্ধ। তিনি উল্লেখ করেন, বিজেপি ক্ষমতায় এলেই স্টেট কাউন্সিল গঠন করা হবে। সেই মর্মরে বিজেপি ইতি মধ্যে কেন্দ্রীয় উপজাতি কল্যাণ মন্ত্রক কে তথ্য বিসিক রিপোর্ট জমাদিয়েছে।

15-07-2017 07:54:53 pm

অবরোধমুক্ত করার জন্য রাজ্য সরকারকে ২৪ ঘণ্টার সময়সীমা নিদিষ্ট করেদিল কংগ্রেস

আগরতলা, ১৩ জুলাই (এ.এন.ই ): আগামী ২৪ ঘনটার মধ্যে আসাম-আগরতলার জাতীয় সড়কের অবরোধ মুক্ত করার জন্য রাজ্য সরকারকে কড়া বার্তা দিয়েছে প্রদেশ কংগ্রেস। এই সময়সীমার মধ্যে অবরোধ মুক্ত করা না হলে কংগ্রেস পাল্টা আন্দোলনে নামবে। বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রদেশ কংগ্রেস ভবনে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি বীরজীত সিনহা বলেন, জাতীয় সড়ক ও রেলপথ অবরোধের ফলে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। এই আন্দোলনে রাজ্যের সাধারণ মানুষের বিস্তর ক্ষতি হচ্ছে। আর আইপিএফটির এই অবরোধ কর্মসূচির পেছনে বিজেপির প্রত্যক্ষ মদত রয়েছে। তিনি বলেন, রাজ্যের শাসক দলের ভূমিকাও এখানে খুব একটা স্পষ্ট না। বিজেপি এবং সিপিআইএম উভয়ই রাজনৈতিক ফায়দা তোলার জন্য তৎপর হয়ে উঠেছে। বিজেপির ঘৃণ্য চক্রান্তের পাশাপাশি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারের অবস্থান যথেষ্ট সন্দেহজনক। বিজেপি এই ধরনের কার্যকলাপে অভ্যস্ত। মনিপুরেও বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই ধরনের পরিস্থিতির সৃষ্টি করা হয়েছিল। এখন এরাজ্যে তার প্রয়োগ করার চেষ্টা চলছে। তিনি আরও বলেন, রাজ্য সরকার চাইলেই এখন এপথকে অবরোধ মুক্ত করতে পারে। কিন্তু রাজ্য সরকার তা করছে না। তাই কংগ্রেস রাজ্য সরকারকে ২৪ ঘণ্টা সময় দিয়েছে। এই অবরোধ প্রত্যাহার করার জন্য। অন্যথায় কংগ্রেস সাড়া রাজ্যে ব্যাপক পাল্টা আন্দোলন গড়ে তুলবে। তিনি অভিযোগ করেন, প্রশাসনিকভাবে পরিস্থিতির মোকাবেলা করার উচিৎ ছিল। কিন্তু জাতীয় সড়ক ও রেলপথ বন্ধ করে এই আন্দোলন ক্রমেই পরিস্থিতিকে বিষিয়ে তুলেছে।

13-07-2017 06:05:38 pm

অবরোধ প্রত্যাহার করার জন্য রাজ্য সরকারকে ২৪ ঘণ্টার সময়সীমা নিদিষ্ট করেদিল কংগ্রেস

আগরতলা, ১৩ জুলাই (এ.এন.ই ): আগামী ২৪ ঘনটার মধ্যে আসাম-আগরতলার জাতীয় সড়কের অবরোধ মুক্ত করার জন্য রাজ্য সরকারকে কড়া বার্তা দিয়েছে প্রদেশ কংগ্রেস। এই সময়সীমার মধ্যে অবরোধ মুক্ত করা না হলে কংগ্রেস পাল্টা আন্দোলনে নামবে। বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রদেশ কংগ্রেস ভবনে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি বীরজিৎ সিনহা বলেন, জাতীয় সড়ক ও রেলপথ অবরোধের ফলে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। এই আন্দোলনে রাজ্যের সাধারণ মানুষের বিস্তর ক্ষতি হচ্ছে। আর আইপিএফটির এই অবরোধ কর্মসূচির পেছনে বিজেপির প্রত্যক্ষ মদত রয়েছে। তিনি বলেন, রাজ্যের শাসক দলের ভূমিকাও এখানে খুব একটা স্পষ্ট না। বিজেপি এবং সিপিআইএম উভয়ই রাজনৈতিক ফায়দা তোলার জন্য তৎপর হয়ে উঠেছে। বিজেপির ঘৃণ্য চক্রান্তের পাশাপাশি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারের অবস্থান যথেষ্ট সন্দেহজনক। বিজেপি এই ধরনের কার্যকলাপে অভ্যস্ত। মনিপুরেও বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই ধরনের পরিস্থিতির সৃষ্টি করা হয়েছিল। এখন এরাজ্যে তার প্রয়োগ করার চেষ্টা চলছে। তিনি আরও বলেন, রাজ্য সরকার চাইলেই এখন এপথকে অবরোধ মুক্ত করতে পারে। কিন্তু রাজ্য সরকার তা করছে না। তাই কংগ্রেস রাজ্য সরকারকে ২৪ ঘণ্টা সময় দিয়েছে। এই অবরোধ প্রত্যাহার করার জন্য। অন্যথায় কংগ্রেস সাড়া রাজ্যে ব্যাপক পাল্টা আন্দোলন গড়ে তুলবে। তিনি অভিযোগ করেন, প্রশাসনিকভাবে পরিস্থিতির মোকাবেলা করার উচিৎ ছিল। কিন্তু জাতীয় সড়ক ও রেলপথ বন্ধ করে এই আন্দোলন ক্রমেই পরিস্থিতিকে বিষিয়ে তুলেছে।

13-07-2017 04:55:52 pm

আলোচনার জন্য না ডাকা পর্যন্ত অবরোধ বহাল থাকার হুমকি : এন সি দেববর্মা

আগরতলা, ১৩ জুলাই (এ.এন.ই ): আলোচনার জন্য না ডাকা পর্যন্ত অবরোধ বহাল থাকার হুমকি পৃথক তুইপ্রাল্যাণ্ড রাজ্যের দাবীতে আইপিএফটির । আইপিএফটির রাজ্য সভাপতি নরেন্দ্র চন্দ্র দেববর্মা আজ জানিয়েছেন, এই ইস্যুতে সরকার পক্ষ আলোচনার জন্য না ডাকা পর্যন্ত অবরোধ বহাল থাকবে।এদিকে, আইপিএফটির ডাকা অনির্দিষ্টকালের জাতীয় সড়ক এবং রেল অবরোধ আজ চতুর্থ দিনে পড়েছে। গতকাল রাত থেকে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। তবে অচলাবস্থা বজায় রয়েছে। আইপিএফটির দুই সদস্যের এক প্রতিনিধিদল আজ দিল্লি যাচ্ছেন। তারা প্রধানমন্ত্রীর দফতরের রাষ্ট্র মন্ত্রী ডাঃ জিতেন্দ্র সিং'এর সঙ্গে সাক্ষাত করবেন।আইপিএফটির দুই সদস্যের এই প্রতিনিধিদলে থাকছেন দলের সাধারণ সম্পাদক মেবার কুমার জমাতিয়া এবং দলের যুব সংগঠনের সভাপতি বীরেন্দ্র রিয়াং। আইপিএফটির রাজ্য সভাপতি নরেন্দ্র চন্দ্র দেববর্মা আজ জানিয়েছেন, দুইজন দিল্লি যাচ্ছেন। “তারা সেখানে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর দফতরে যাবেন। প্রধান মন্ত্রীর দফতরের রাষ্ট্র মন্ত্রী ডাঃ জিতেন্দ্র সিং'এর সঙ্গে সাক্ষাত করবেন। কারণ পৃথক রাজ্যের দাবীতে আগে তার কাছেই দাবী সনদ পেশ করা হয়েছিল। এখন এই বিষয়ে তৎপরতা বৃদ্ধির জন্য এবং রাজ্যের উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে অলোচনার জন্য তারা দিল্লি যাচ্ছেন”।তিনি আরও বলেন, “দল ইতিমধ্যেই পৃথক রাজ্যের দাবীতে আন্দোলনরত দেশের অন্যান্য প্রান্তের সবকটি দলের নেতাদের সঙ্গে কথাবার্তা হয়েছে। এই দল গুলোর জাতীয় স্তরে একটি সংগঠনও রয়েছে। তারা প্রত্যেকেই ত্রিপুরায় পৃথক রাজ্য তুইপ্রাল্যাণ্ড’এর দাবীতে আইপিএফটির আন্দোলন কে সমর্থন করেছে। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে কেন্দ্র বা রাজ্য কারোর ভূমিকাই সদর্থক নয়”।তিনি জানিয়ে দেন এই ইস্যুতে সরকার পক্ষ আলোচনার জন্য না ডাকা পর্যন্ত অবরোধ বহাল থাকবে।তবে তিনি উল্লেখ করেছেন গতকাল কতিপয় আন্দোলনকারী যে ভাবে উলঙ্গ হয়ে উশৃঙ্খল আচরণ করে তা উচিত হয়নি। যদিও সরকারের নেতিবাচক অবস্থানে ক্ষোভ বাড়ছে।

13-07-2017 03:47:25 pm

পৃথক রাজ্য তুইপ্রাল্যাণ্ডের দাবীতে দিল্লি যাচ্ছে আইপিএফটির প্রতিনিধিদল

আগরতলা, ১৩ জুলাই (এ.এন.ই ): পৃথক রাজ্য তুইপ্রাল্যাণ্ড’এর দাবীতে আইপিএফটির ডাকা অনির্দিষ্টকালের জাতীয় সড়ক এবং রেল অবরোধ আজ চতুর্থ দিনে পড়েছে। গতকাল রাত থেকে আজ সকাল পর্যন্ত কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। তবে অচলাবস্থা বজায় রয়েছে। এদিকে, পৃথক রাজ্য তুইপ্রাল্যাণ্ড’এর দাবীতে আইপিএফটির দুই সদস্যের এক প্রতিনিধিদল আজ দিল্লি যাচ্ছেন। তারা প্রধানমন্ত্রীর দফতরের রাষ্ট্র মন্ত্রী ডাঃ জিতেন্দ্র সিং'এর সঙ্গে সাক্ষাত করবেন।

13-07-2017 03:46:00 pm

পৃথক রাজ্যের ভাবনা জনজাতিদের মাথায় প্রথমে ঢুকিয়েছে সিপিএমইঃ বিজেপি

আগরতলা ১৩ই জুলাই (এ.এন.ই ): পৃথক রাজ্যের ভাবনা জনজাতিদের মাথায় প্রথমে ঢুকায় সি পি এমই। ১৯৯৩ সালে দল নির্বাচনী ইস্তাহারে এডিসি এলাকায় ইনার লাইন পারমিট চালুর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। সেই থেকেই পৃথক রাজ্যের দাবীর প্রতি জনজাতিদের মধ্যে আবেগ জমাট বাধতে শুরু করে। এই মন্তব্য করেছেন বিজেপির সহ সভাপতি সুবল ভৌমিক। তিনি জোলাইবাড়ি মণ্ডলের কর্মী সম্মেলনে ভাষণ রাখতে গিয়ে এই মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, ১৯৯০ সালে বিধানসভায় দাঁড়িয়ে তৎকালীন বিরোধী দলনেতা দাবী করেছিলেন এ ডি সি কে আরও বেশী ক্ষমতা দেওয়া হোক। আর্থিক ক্ষমতা এবং সরাসরি কেন্দ্রীয় অর্থ বরাদ্দের দাবী করেছিলেন। তারপর ১৯৯৩ বিধানসভা নির্বাচনের ম্যানিফেস্টোতে ক্ষমতায় এলে ইনার লাইন পারমিট চালুর প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল। ক্ষমতায় আসার পর সব ভুলে যায় সিপিএম। বিরোধীরা এডিসিতে সরাসরি কেন্দ্রীয় অর্থ বরাদ্দের দাবী তুললে মানিকবাবুর সরকার বলছেন রাজ্য সরকারকে এড়িয়ে এডিসিতে অর্থ বরাদ্দ দেওয়া সমীচিন নয়। রাজ্যের ৩১ শতাংশ জনজাতির জন্য বাজেটে বরাদ্দ রাখা হয় মাত্র ৪ শতাংশ অর্থ। যার ফলে পাহাড়ে দিনের পর দিন কোনও উন্নয়নই হয়নি। অনুন্নয়নের কারণে জনজাতিরা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন সভ্যতা থেকে। তারই প্রতিফলন এখন দেখা যাচ্ছে। জাতীয় সড়ক ও রেল অবরোধ সিপিএমেরই শোষণনীতির ফল। চারদিন ধরে অবরোধ চলছে অথচ দর্শকের ভূমিকায় সরকার। পরিকল্পিতভাবে রাজ্যে অস্থিরতা সৃষ্টি করে বিরোধীদলে গায়ে কালি ছিটানোর চেষ্টা করছে সরকার। শ্রী ভৌমিক বলেন, উপাধ্যক্ষ পবিত্র কর আমাদের কেন্দ্রীয় হস্তক্ষেপের দাবীর যৌক্তিকতা স্বীকার করেছেন। তিনি বলেছেন রেল ও জাতীয় সড়ক সচল রাখার দায়িত্ব কেন্দ্রীয় সরকারের। আমরা বলছি রাজ্য সরকার আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় ব্যর্থ। কেন্দ্রীয় সরকারের হাতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব দেওয়া হলে এ ধরনের অবরোধ হতেই পারত না। পবিত্র বাবু যা বলেছেন ১০০ শতাংশ যুক্তিযুক্ত।

13-07-2017 03:14:15 pm

অবরোধের চতুর্থ দিনেও স্তব্ধ রেল ও সড়ক, যাত্রীদের দুর্ভোগ চরমে

আগরতলা ১৩ই জুলাই (এ.এন.ই ): আইপিএফটির একটি গোষ্ঠীর দাকে টানা চতুর্থদিনের জাতীয় সড়ক ও রেলপথ অবরোধের ফলে প্রচণ্ড দুর্ভোগে পড়েছেন মানুষ। দূরপাল্লার রেলযাত্রীরা বদরপুর থেকে রাজ্যের বিভিন্ন অংশে আসতে গিয়ে সমস্যার মুখে পড়ছেন। সমস্যার মুখে প্যাসেঞ্জার ট্রেনের নিত্য রেলযাত্রীরা। ট্রেন চলাচল কার্যত বন্ধ থাকায় বিমানভাড়া অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে। ফলে দুর্ভোগ আরও বাড়ছে। বিশেষত সাধারণ খেটেখাওয়া শ্রেণীর মানুষের দুর্ভোগের সীমা পরিসীমা থাকছে না। ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় আগরতলা স্টেশনে চারদিন ধরে অপেক্ষমাণ বেশ কয়েকজন যাত্রী দুর্বিষহ অবস্থার মধ্যে পড়েছেন। ত্রিপুরাসুন্দরী, কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসের মতো দূরপাল্লার ট্রেনে চলার অপেক্ষায় রয়েছেন তাঁরা। যাত্রী সহ বিভিন্ন মহল থেকে এক্ষেত্রে রাজ্য সরকার ও রেলের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। তাঁদের বক্তব্য, রাজ্য সরকার এক্ষেত্রে কার্যত কোন কাজই করছেন না। মানুষের দুর্ভোগ দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে উপভোগ করছে। রেলপথ স্তব্ধ হয়ে পরায় রাজ্যের খাদ্য ও বিভিন্ন সামগ্রীর যোগান প্রচন্ডভাবে ব্যাহত হচ্ছে। ফলে খাদ্য ও অন্য সামগ্রীতে টান পরার আশঙ্কা সৃষ্টি হয়েছে। পাশাপাশি এ অবরোধ ভবিষ্যতে রাজ্যের নতুন দূরপাল্লার যাত্রীট্রেন পাবার ক্ষেত্রে বড় বাঁধা হয়ে দাঁড়াতে পারে।

13-07-2017 03:13:20 pm

রাজ্যের নিম্ন আদালতে কিছু বিচারকের কাজকর্মে প্রচন্ড অখুশি মুখ্য বিচারপতি

আগরতলা ১৩ই জুলাই (এ.এন.ই ): রাজ্যের নিম্ন আদালতগুলির কিছু সংখ্যক বিচারকের কাজকর্মে প্রচন্ড অখুশি ও অসন্তোস্ট ত্রিপুরা উচ্চ আদালতের প্রধান বিচারপতি। নিম্ন আদালতের বিচারকদের কাজকর্মের প্রাথমিক পর্যালোচনা করার পর অসন্তোস্ট প্রধান বিচারপতি দুইজন গ্রেড ওয়ান পদ মর্যাদার বিচারককে শোকজ করেছেন গত ৩০শে জুন ২০১৭ইং। পরবর্তী দুই ;সপ্তাহের মধ্যে তাঁদের জবাব দেওয়ার সময় সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছে। উচ্চ আদালত সূত্রে জানা গেছে, গ্রেড ওয়ান পদমর্যাদার বিচারকদের যখন তখন কর্মস্থল ত্যাগ করার বিষয়টি হলো এর মধ্যে অন্যতম। ১৭-০৭-২০১৫ইং একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছিল। এতে সকল বিচারকদের কাজকর্মের পদ্ধতি কি হবে এর একটি নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছিল। যার মধ্যে সুনির্দিস্ট ভাবে বলা হয়েছিল ব্যক্তিগত বা যে কোন কাজের জন্য কর্মস্থল ত্যাগ করার আগে উচ্চ আদালতের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে করে দেওয়া নিয়ম অনুযায়ী আগাম অনুমতি নেতে হবে। কিন্তু গত ৬-৭ মাস ধরে সেই নির্দেশিকা মেনে অনেকেই চলছেন না বলে অভিযোগ। ছুটি সংক্রান্ত বিষয়ে সকলের অবেদনপত্র পরীক্ষা নিরীক্ষা করার পর অসন্তোস্ট প্রধান বিচারপতি দুইজনকে শোকজ বা কারণ দর্শানোর নির্দেশ দেন। তাঁদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে পরবর্তী দুই সপ্তাহের মধ্যে প্রত্যেকের জবাব দেওয়ার জন্য। এছাড়া উচ্চ আদালতের পক্ষ থেকে উশ্মা প্রকাশ করা হয় যে আদালতে বিচার প্রার্থী হয়ে আসা লোকজন এবং প্রতিপক্ষ বা মামলাকারী লোকজনেরাও তাঁদের প্রাপ্য সুযোগ সুবিধাগুলিও সঠিকভাবে পাচ্ছেন না অনেক আদালত চত্বরে। এই কারনেই পুঙ্খানুপুঙ্খ নিয়ম মেনে, নিয়মানুবর্তী হয়ে কাজ পরিচালনা করার প্রতি দৃষ্টি নিবন্ধ করেছেন ত্রিপুরা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি।

13-07-2017 01:46:28 pm

উলঙ্গ হয়ে সম্পূর্ণ অভব্য কায়দায় আন্দোলন, উত্তেজনা

আগরতলা,১২ জুলাই(এ.এন.ই): পৃথক রাজ্যের দাবীতে আইপিএফটির ডাকা অনির্দিষ্টকালের জাতীয় সড়ক এবং রেল অবরোধ দুপুরে আচমকা অদ্ভুত রূপ নেয়। উলঙ্গ হয়ে সম্পূর্ণ অভব্য কায়দায় একদল আন্দোলনরত যুবক আচমকা তীব্র আক্রোশ প্রদর্শন শুরু করে। আচমকা উশৃঙ্খলতা চরমে উঠছে।কারযত বিব্রত হয়ে পরেন সুরক্ষা ক্রমীরাও। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে জেলাশাসক আন্দোলন স্থল খামথিং বাড়িতে ছুটে আসেন। সমগ্র এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।আচমকাই জাতীয় সড়কের উপর বেরিকেইড তৈরি করে আন্দোলনে সামিল ১৮থেকে ২০জন যুবক সরকারের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে-দিতে তাদের পরিধেয় বস্ত্র খুলে নেয়। সম্পূর্ণ উলঙ্গ অবস্থায় তারা পুলিশ ও সধারণ প্রশাসনের আধিকারিকদের দিকে এগিয়ে গিয়ে পৃথক রাজ্য এবং সরকার বিরোধী স্লোগান দিতে থাকে। সমগ্র এলাকার পরিস্থিতি আচমকা উত্তপ্ত হয়ে উঠে। অন্যদিক থেকে প্রচুর সংখ্যক আন্দোলনকারী ঘটনা স্থলে এসে হাজির হয়। ইতিপূর্বে সকালে অসুস্থতার কারণে বেশকিছু আন্দোলনকারীকে স্থানান্তরিত করা হয়। ফলে সংখ্যা কিছুটা হ্রাস পায়। কিন্তু দুপুরে তা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেতে থাকে। পাল্লা দিয়ে বাড়ে উত্তেজনাও। একই সঙ্গে অজ্ঞাত স্থান থেকে আসতে থাকে প্রচুর পরিরিমানে খাবারদাবারও।ওষধও আসে চাহিদামত। উলঙ্গ হয়ে উশৃঙ্খল ভাবে আক্রোশ প্রদর্শন বেশ কিছুক্ষণ চলতে থাকে। পরিস্থিতি খারাপের দিকে যাচ্ছে বুঝে পুলিশ ও সাধারণ প্রশাসনের আধিকারিকেরা আইপিএফটির শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে ফোনে সম্পর্ক করেন।তারা এই উলঙ্গ হয়ে উশৃঙ্খলতা প্রদর্শনকারী অবরোধকারীদের দ্রুত সরিয়ে নেবার আবেদন করেন। এরপর দলের কয়েকজন নেতা এসে তাদের সরিয়ে নিয়ে যান।পরিস্থিতি আপাতত নিয়ন্ত্রণে এসেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

12-07-2017 07:55:11 pm

বিভেদ তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছে সিপিআইএম: আইপিএফটির অবরোধ ইস্যুতে বিজেপি

আগরতলা, ১২ জুলাই (এ.এন.ই ): বিজেপি আজ সরাসরি অনির্দিষ্টকালীন অবরোধের জন্য ক্ষমতাসীন সিপিআইএম' কে দায়ী করেছে। বিজেপি সিপিআইএমের বিরুদ্ধে দাঙ্গা বাঁধানোর অভিযোগও তুলেছে। বিজেপির রাজ্য সভাপতি বিপ্লব কুমার দেব বুধবার সকালে বলেন, ''পুরো পরিকল্পনার পেছনে ক্ষমতাসীন সিপিআইএম যুক্ত।আই পি এফ টির অনির্দিষ্টকালের জাতীয় সড়ক এবং রেল অবরোধ নিয়ে সব চাইতে বেশি প্রচার করেছে বামফ্রন্ট। আই পি এফ টির তো একবার সাংবাদিক সম্মেলন করে বিষয়টির জানান দিয়েছে মাত্র। সিপিআইএম লাগাতর প্রচার চালিয়েছে। রাজ্য জুড়ে মিছিল মিটিং সভা করেছে''। তিনি আরও বলেন, ''অবরোধ শুরুর আগে মিছিল মিটিং করেছে সিপিআইএম। কিন্তু অবরোধ শুরুর পর এর বিরুদ্ধে আর কোন প্রচার নেই। অবরোধকারীরা এখন গ্রেফতার বরন করতে চাইছে। কিন্তু তাদের সরিয়ে বামফ্রন্ট পরিচালিত প্রশাসন অবরোধ মুক্ত করতে চাইছে না''। তিনি আরও অভিযোগ করেন, ''সিপিআইএম অবরোধ দীর্ঘস্থায়ী করতে চাইছে। জাতি-উপজাতির মধ্যে বিদ্বেষ, সংঘাত চাইছে, রাজ্যে দাঙ্গা বাধিয়ে অস্থিরতা সৃষ্টি করছে চাইছে। বিভেদ তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছে ক্ষমতাসীন সিপিআইএম। ঘৃণ্য ভাবে মানুষের মনে আতঙ্ক ছড়ানোর চেষ্টা করছে"।এর আগে রাজ্য সরকার অবরোধকারীদের বার্তা দিয়ে দিয়েছে, তারা তাদের গ্রেফতার করবে না। তারা কতদিন আন্দোলন চালিয়ে যেতে পারে তা তারাই দেখে নিক। ফলে অবরোধ দীর্ঘ মেয়াদি হতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে। এদিকে, অবরোধ ইস্যুতে রাজ্যপালের দ্বারস্থ হয়েছে আইপিএফটি। দল কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারকে নিয়ে ত্রিপাক্ষিক বৈঠকের দাবী করেছে।আলোচনার আশ্বাস দিলেই অবরোধ প্রত্যাহার করবে বলেও ঘোষণা করা হয়েছে।

12-07-2017 04:46:10 pm

বিশ্ববিদ্যালয়ে বঞ্চনার শিকার ছাত্রীরা, অভিযোগ

আগরতলা, ১২ জুলাই (এ.এন.ই ): রাজ্যের ছাত্রীরা বঞ্চিত হচ্ছে ত্রিপুরা কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে। কিন্তু ছাত্রীদের পক্ষে ওঠা অভিযোগের মর্যাদা প্রদান তো দূর অস্ত, এ বিষয়গুলিতে কর্ণপাত করতেও নারাজ ত্রিপুরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ফলে সম্পূর্ণ বিপাকে পড়েছে রাজ্যের ছাত্রীরা। যদিও ত্রিপুরা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রীদের জন্য রয়েছে উইমেন্স গ্রিভেন্স সেল। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদাসীনতার জন্য এই শাখাটি সম্পূর্ণ সাইনবোর্ডে পরিণত। এইদিকে বিগত কয়েক বছর ধরে ত্রিপুরা বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠরত ছাত্রীদের কাছ থেকে একটি সংগঠনের সভ্যপদ গ্রহণের নামে ৬০০ টাকা বলপূর্বক নেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ। অনিচ্ছা সত্ত্বেও ছাত্রীদের এই অর্থে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাংশ আমোদ প্রমোদে ব্যস্ত। কিন্তু অন্যদিকে সম্পূর্ণ কুম্ভনিদ্রায় আচ্ছন্ন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এদিকে, সম্প্রতি এক হটকারী সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়ে পুনরায় প্রমাণিত হল ছাত্রীরা বঞ্চিত ত্রিপুরা বিশ্ববিদ্যালয়ে। কারণ ২০১৬ সালে সংস্কৃত বিভাগের এক গবেষক ছাত্রীর পক্ষে একজন শিক্ষকের বিরুদ্ধে "অভব্য আচরণ'' সংক্রান্ত অভিযোগ করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ওই সময় গবেষক ছাত্রীর তরফে উপাচার্যের কাছে অভিযোগ করা হয়। কিন্তু সাময়িক বরখাস্ত করা হয়নি। এমনকি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়নি। ফলে আবারও তদন্তের নামে বঞ্চিত হয় গবেষক ছাত্রী।

12-07-2017 03:38:00 pm

অবরোধ দীর্ঘ মেয়াদি হওয়ার আশঙ্কা

আগরতলা, ১২ জুলাই (এ.এন.ই ): পৃথক রাজ্যের দাবীতে আইপিএফটির ডাকা অনির্দিষ্টকালের জাতীয় সড়ক এবং রেল অবরোধ আজ তৃতীয় দিনে পড়েছে। পরিস্থিতি ক্রমেই অন্য খাতে বইতে শুরু করেছে। রাজ্য সরকার অবরোধকারীদের বার্তা দিয়ে দিয়েছে, তারা তাদের গ্রেফতার করবে না। ফলে অবরোধ দীর্ঘ মেয়াদি হতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে। রাজ্য সরকার অবরোধকারীদের বার্তা দিয়ে দিয়েছে, তারা তাদের গ্রেফতার করবে না। তারা কতদিন আন্দোলন চালিয়ে যেতে পারে তা তারাই দেখে নিক। ফলে অবরোধ দীর্ঘ মেয়াদি হতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে। যদিও আগে গ্রেফতার বরন করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। প্রথম দিকে আইপিএফটি নেতৃত্ব তা না মানলেও পরে মেনে নিয়েছে। কিন্তু এখন প্রশাসন এসব কিছুই করতে নারাজ। এদিকে অবরোধ স্থল খামথিংবড়িতে অবরোধকারীদের অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েছে। টানা দুইদিন বিরূপ আবহাওয়ার মধ্যে পথে বসে থেকে অনেকেরই জ্বর ও পেটের অসুখ শুরু হয়েছে বলে জানা গেছে।

12-07-2017 02:18:50 pm

অবরোধের কারণে আগরতলা-গুয়াহাটির অস্বাভাবিক বিমানভাড়া

আগরতলা ১২ই জুলাই (এ.এন.ই ): পৃথক তিপ্রাল্যান্ডের দাবিতে আইপিএফটির এজটি গোষ্ঠীর ডাকা অনির্দিষ্টকালের সড়ক ও রেলপথ অবরোধের প্রভাব পড়েছে বিমান ভাড়ার উপরও। অবরোধের কারণে আগরতলা-গুয়াহাটির উভয় দিকে সড়ক ও রেলপথ যানবাহন ও রেল চলাচল মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিনেও পুরো বন্ধ ছিল। এরফলে সাধারণ মানুষ সম্পূর্ণভাবে বিমানের উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছেন। আর তার পুরো সুযোগ নিয়ে বিমান সংস্থাগুলি যথেচ্ছভাবে যাত্রীর পকেট কাটছে। আগরতলা-গুয়াহাটির আকাশ পথের উভয় দিকে বিমানে মঙ্গলবার থেকে অস্বাভাবিক টিকিটের মূল্য বৃদ্ধি করে দিয়েছে। সাধারণত এই রুটে বিমানে একটি টিকিটের মূল্য তিন হাজার টাকার মধ্যে থাকে। কিন্তু এই অবরোধের ফলে এই রুটে এখন ভাড়া হয়েছে ছয় থেকে সাত হাজারের মত। বিমান সংস্থাগুলি এই অবরোধের ফলে বিমানের ভাড়া অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি করার ফলে অসহায় যাত্রীর ঘাড়ে কোপ বসিয়েছে বলে বিমানযাত্রীরা অভিযোগ করেন। বিস্ময়ের ব্যাপার, কেন্দ্রীয় সরকারের কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রক বিমান সংস্থাগুলির যথেচ্ছ যাত্রীদের পকেট কাটার বিষয়টি দেখভালের কথা থাকলেও সেদিকে কোনও নজর নেই বলেও অভিযোগ উঠেছে। তাছাড়া সুযোগে বিমান টিকিটের কালোবাজারিও করছে একটি চক্র বলে অভিযোগ উঠেছে। তাছাড়া শহর ও শহরতলির আরও দু-তিনটি ট্র্যাভেল এজেন্সির বিরুদ্ধেও গ্রুপ টিকিটে কালোবাজারি করার অভিযোগ উঠেছে।

12-07-2017 01:43:43 pm

মন্ত্রীসভায় বৈঠকে বাড়লও ভাতা, অনুমোদিত হল আরোপি

আগরতলা, ১১ জুলাই (এ.এন.ই ): রাজ্য সরকারের কর্মচারীদের বর্ধিত বেতনক্রম নিয়ে আজ রাজ্য মন্ত্রীসভা আরোপি অনুমোদন করলো। একেই সঙ্গে কয়েকটি ক্ষেত্রে ভাতার পরিমান বৃদ্ধি করা হয়েছে। রাজ্য মন্ত্রীসভায় বৈঠকের পর তথ্য সংস্কৃতি মন্ত্রী ভানুলাল সাহা জানিয়েছেন, বর্ধিত বেতনক্রম নিয়ে আরোপি তৈরি করা হয়েছে একেই কমোটেশন ও গ্রেচুয়েটি নিয়ে তিনটি নতুন রুলস চালু করা হয়েছে। ৮০ বছরের ঊর্ধ্ব পেনশনারদের ভাতার পরিমাণ বৃদ্ধির করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। একেই সঙ্গে বেতনভাতা নিয়ে কর্মচারী পেনশনাদের বিভিন্ন জটিলতা দূর করার জন্য পে-রিভিউ সেল গঠন করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, মন্ত্রীসভা সিদ্ধান্ত নিয়েছে গত ১৯৮৯ সাল থেকে মিড-ডে মিল প্রকল্পে ১১,১০৯ জন হেল্পার নিযুক্ত ছিলেন। এই সংখ্যা বিভিন্ন সময়ে আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু তাদের ভাতা মাসিক ১০০০ টাকাই ছিল। এখন তা ৫০০ টাকা বাড়ানো হয়েছে। অন্যদিকে স্পেশাল পুলিশ অফিসারদের ভাতার পরিমাণ আরও ৫০০ টাকা বাড়ানো হয়েছে। গত এপ্রিল মাসে তাঁদের ভাতা ৫০০ টাকা বাড়ানোর ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল। আজকের ঘোষণায় অতিরিক্ত ফলে তাঁদের ভাতা ১০০০ টাকা বৃদ্ধি পাবে। বর্তমানে তাঁরা ৫১৫৬ টাকা পেয়ে থাকেন।

11-07-2017 07:22:24 pm

সিপিআইএমের পার্টি অফিস ভস্মীভূত

আগরতলা, ১১ জুলাই (এ.এন.ই ): কুমারঘাটে ক্ষমতাসীন সিপিআইএমের পার্টি কার্যালয় পুরিয়ে দেবার পর এলাকায় রাজনৈতিক উত্তেজনা বৃদ্ধি পেয়েছে। বিভিন্ন উত্তেজনা প্রবণ এলাকায় অতিরিক্ত সুরক্ষা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। কুমারঘাট থানা সূত্রে পাওয়া খবরে জানা গেছে, কুমারঘাটে রাখালতলি পার্টি অফিসটিতে গতকাল গভীর রাতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। এবিষয়ে একটি অভিযোগ লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। ধারনা করা হচ্ছে নাশকতা সৃষ্টির উদ্দেশ্যে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। এই ঘটনার পর থেকে এলাকায় ক্ষমতাসীন সিপিআইএম এবং বিজেপির মধ্যে তীব্র উত্তেজনার পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। উত্তেজনা প্রবণ এলাকা গুলিতে অতিরিক্ত সুরক্ষা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

11-07-2017 07:20:55 pm

আইপিএফটির অবরোধ নিয়ে সিপিআইএম-বিজেপি চাপানউতোর শুরু

আগরতলা, ১১ জুলাই (এ.এন.ই ): পৃথক রাজ্যের দাবীতে ত্রিপুরায় আইপিএফটির ডাকা অনির্দিষ্টকালের জাতীয় সড়ক এবং রেল অবরোধ নিয়ে রাজনৈতিক চাপানউতোর শুরু । শাসক দল সিপিআইএম ও বিরোধী বিজেপি একে অন্যের ঘাড়ে দোষ চাপাতে শুরু করেছে। তবে উভয় পক্ষই মনে করে আন্দোলন ব্যর্থ । ত্রিপুরা রাজ্যের এডিসি এলাকাকে নিয়ে পৃথক তিপ্রাল্যান্ড রাজ্য গঠনের দাবিতে আদিবাসী ভিত্তিক রাজনৈতিক দল আইপিএফটি-র এন সি দেববর্মা গোষ্ঠীর উদ্যোগে সোমবার সকাল ৬টা থেকে ৪৪ নম্বর জাতীয় সড়ক ও রেলপথ অবরোধ শুরু হয়েছে। তারা খোয়াই জেলার বড়মুড়া পাহাড়ের খামথিং বাড়ি এলাকায় জাতীয় সড়ক অবরোধ করেছে। আজ সকাল থেকেই দলের কর্মী সমর্থকরা জাতীয় সড়ক অবরোধ করে নিজেদের দাবির সমর্থনে স্লোগান দেন। অবরোধ আন্দোলনে যোগ দিতে প্রত্যন্ত এলাকা গুলো থেকে বহুসংখ্যক উপজাতি যুবক বড়মুড়া পাহাড়ের খামথিং বাড়িতে এসে জড়ো হয়েছে। রবিবার রাত থেকে বেশ কয়েকবার সুরক্ষা বাহিনীর সঙ্গে আন্দোলনকারীদের উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হলেও। এখনও কোনও প্রকার অপ্রীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হয় নি। এই অবস্থায় আন্দোলনকারীদের আলোচনার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে প্রশাসনের তরফে। আন্দোলনের নেতা আলোচনার প্রস্তাব খারিজ না করলেও অবরোধ তুলে নেওয়া হচ্ছে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন। অবরোধ আন্দোলনের জেরে কার্যত স্বব্ধ ত্রিপুরা। অন্যান্য রাজ্য ও ত্রিপুরার ভিতরে বিভিন্ন অংশের সঙ্গে যোগাযোগ করা যাচ্ছে না। পরিস্থিতি নিয়ে উপজাতি অঞ্চলের মানুষের মনে উত্তেজনা রয়েছে। এরই মধ্যে এই অন্দোলন নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর শুরু। এক দিকে রাজ্য বিজেপি সভাপতি বলেছেন, ''আন্দোলন ব্যর্থ হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারের উপর চাপ সৃষ্টির জন্য রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল সিপিআইএম এই অবরোধে মদত দিয়েছে। কিন্তু পৃথক রাজ্যের দাবীতে জনগণের সমর্থন ছিল না। ফলে তা ব্যর্থ হতে চলেছে''। এদিকে সিপিআইএম রাজ্য সম্পাদক বিজন ধর বলেন, ''আন্দোলন ব্যর্থ হবেই। তবে রাজ্যে অস্থিরতা সৃষ্টির জন্য বিজেপি'র মদতে আন্দোলন-আন্দোলন খেলা শুরু হয়েছে। এর পেছনে উপজাতি অংশের মানুষের কোন সমর্থন নেই''।

11-07-2017 04:26:56 pm


Copyright © 2017 আগরতলা নিউজ এক্সপ্রেস. All Rights Reserved.