• নিয়মিতকরণের দাবীতে আমরণ অনশনের হুমকি সর্ব শিক্ষার শিক্ষকদের
  • ফের চালু হচ্ছে পাশ ফেল প্রথা
  • অমরপুর মহারানিস্থিত শিব বাড়িতে শিবের আরাধনা
  • শিক্ষক কর্মচারীদের বছরে আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ ৬০ হাজার টাকা, চাপে সরকার
  • রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত কুমারঘাট মহকুমা সদর
  • আগুনে পুড়িয়ে গৃহবধূকে হত্যা, ধৃত স্বামী
  • শীঘ্রই শিক্ষক-কর্মচারীদের বদলিনীতি নিয়ে মুখ খুলতে চায় বিজেপি
  • বেহাল রাস্তার দরুন বিগত তিনদিন ধরে শ্রীমন্তপুরে আমদানি রপ্তানি ব্যবসা বন্ধ
  • তিপ্রাল্যান্ডের নামে আন্দোলনকারীদের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন এন.সি দেববর্মাঃ রাধাচরণ দেববর্মা
  • ১:১ ফর্মুলায় বিধানসভার নির্বাচনে প্রার্থী দেবে বিজেপি
  • সিপিএম ঘেরাও অমরেন্দ্রনগরে
  • বিজেপিতে যোগ দিতে দিল্লীমুখি ত্রিপুরার ছয় বিধায়ক
  • বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণে অভিযুক্ত যুবক গ্রেপ্তার
  • দুর্নীতিগ্রস্ত উপাচার্যের বরখাস্তের দাবীতে বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপকদের মুখে কালো বেঁধে প্রতিবাদ
  • কেন্দ্রীয় বরাদ্দ ঠিকমত না রাজ্যে না আসায় হতাশ অর্থমন্ত্রী
  • এনসি'র ফাঁকি ধরা পরে গেলো: অর্থমন্ত্রী
  • চাকরি দেবার নামে প্রতারণা
  • ভোমরাছড়া ভিলেজের মানুষের সার্বিক উন্নতিতে এগিয়ে এলো নবম টিএসআর বাহিনী
  • দ্রুত রেল পরিষেবা চালু করতে প্রশাসনিক স্তরে তৎপরতা শুরু
  • ত্রিপুরা কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্নীতি ঢাকতে তদন্তের দায়িত্ব অভিযুক্তদের হাতেই
  • নারী নির্যাতনের দায়ে অভিযুক্ত আইনজীবী বিদ্যুৎ ঘোষের অন্তর্বর্তী জামিন
  • বিজেপি-সিপিআইএম সংঘর্ষে মৃত ১, আজ লংতরাইভ্যালি ১২ ঘণ্টার বনধ
  • রাজ্যপালের প্রশংসা, মানিককে নৈতিকতার পাঠ বিপ্লবের
  • অবরোধ প্রত্যাহারের সম্ভাবনা নিয়ে অচলাবস্থা, ভাঙনের মুখে আইপিএফটি
  • আইপিএফটির অনির্দিষ্ট কালীন সড়ক ও রেল অবরোধের দশম দিনে প্রত্যাহারের সম্ভাবনা

স্পেশাল আর্টিকেল

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

ইক্সক্লোসিভ ভিডিও

ডেনমার্কে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম লম্বা ডিম! দেখুন কীভাবে লম্বা ডিম পাড়ে মুরগী

হোলির রাতে তৃণমূল কংগ্রেস এবং বিজেপির মধ্যে সংঘর্ষের পর সাংবাদিক সন্মেলনে বিপ্লব

চিটফান্ড ইস্যুতে রাজ্য ও কেন্দ্র সরকারকে তথ্য সহ বিঁধল সুদীপ

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

টপ ফাইভ

00310
কর্মচারীদের বঞ্চিত করতে অভূত ফর্মুলা নিয়েছে বামফ্রন্ট সরকারঃ বিজেপি

আগরতলা ১৬ই জুন (এ.এন.ই ): রাজ্য সরকারের কর্মচারীদের জন্য বর্ধিত বেতনক্রম নিয়ে বিজেপি বুধবার রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ তুললো। দলের মুখপাত্র ডাঃ অশোক সিনহা বিষয়টিকে বামফ্রন্ট সরকারের ধাপ্পাবাজির এক নতুন সংস্করণ বলে উল্লেখ করেছেন। বিজেপি'র মুখপাত্র ডাঃ অশোক সিনহা বলেছেন, কেন্দ্রীয় সরকার সপ্তম বেতন কমিশন দেবার পর সিপিআইএমের সর্বভারতীয় নেতারা প্রচণ্ড সমালোচনা 'করেছিলেন। তখন তাদের মনে হয়েছিল ওই বেতনক্রম খুবই কম মাত্র ১৪ শতাংশ হারে বেতন বৃদ্ধি হওয়াটা সে দিন তাদের কাছে বেমানান ছিল এবং কর্মচারীদের প্রতি দরদ উথলে উঠার ভান করেছিল। কিন্তু ত্রিপুরার বামফ্রন্ট সরকার গত মঙ্গলবার ত্রিপুরার কর্মচারীদের জন্য যে ধরনের ঘোষণা দিলো তা নিন্দার ভাষা রাখে না। তিনি বলেন, রাজ্য সরকারের কর্মচারীদের বেতনক্রম ১ শতাংশও বৃদ্ধি করা হয়নি। যেখানে দাঁড়িয়ে ছিলেন কর্মচারীরা ঠিক সেখানেই তারা রয়ে গেছেন। রাজ্য সরকারের কর্মচারীদের প্রকৃতপক্ষে বেতন ভাতা শূন্য শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। সিপিএমের এই গোলক ধাঁধা বুঝতে কর্মচারীদের যদিও কিছুটা সময় লেগেছে। বিজেপি'র প্রদেশ কার্যালয়ে ডাঃ অশোক সিনহা বলেন, ত্রিপুরার কর্মচারীদের সঙ্গে যে ধরনের প্রতারণা করা হয়েছে তাও একটি বিরলতম ঘটনা। ত্রিপুরার কর্মচারীদের ৩৭ শতাংশ মহার্ঘ্যভাতা বাকি ছিল\। কেন্দ্রীয় সরকার এই অর্থ বকেয়া রাখেনি। কেন্দ্রীয় সরকার নিয়মিত রাজ্যকে এই অর্থ দিয়ে গেছে। বিজেপি'র সংশ্লিষ্ট বিষয়ে অভিজ্ঞরা বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করেছেন। সে অনুযায়ী দেখা গেছে কর্মচারীদের মাইনে বাবদ কেন্দ্রীয় সরকারের দেওয়া অর্থের মধ্যে ১২০০ কোটি অব্যায়িত ছিল। ৩৭ শতাংশ মহার্ঘভাতার টাকা দিল্লী থেকে এনে তা জমিয়ে রাখ হয়েছিল। দীর্ঘদিনের জমানো এই টাকার সুদ কি পরিমাণে হতে পারে তা অনেকেই বুঝে গেছেন। ডাঃ অশোক সিনহা বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই বিজেপি কেন্দ্রীয় বেতনক্রমের জন্য রাজ্য সরকারের উপর চাপ দিয়ে আসছিল। কিন্তু পে এন্ড পেনশন রিভিশন কমিটির নামে রাজ্য সরকার প্রতারণার ছক কষছিল। আমলাদের সঙ্গে বিস্তর হিসাব নিকাশ করে রাজ্য সরকার ঠিক যত টাকা মহার্ঘভাতা পাওনা ছিল কর্মচারীরা সেই টাকাটাই দিয়ে বামফ্রন্ট সরকার ১৯ শতাংশ বেতনভাতা বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করে দেয়। তিনি বলেন, বামপন্থী কর্মচারী সংগঠনের নেতারা এসব ধাপ্পাবাজি বুঝতে পারছেন না এমনটা নয়। তাদের কাছেও সবই স্পষ্ট। এখন তারা নানা কারণে সিপিআইএমের বেড়াজাল থেকে বের হতে পারছেন না। কিন্তু সকলেই অসন্তুষ্ট। বামেদের দ্বিচারিতা চিরাচরিত বিষয়। কেন্দ্রের বেতনক্রমকে সিপিআইএমের কেন্দ্রীয় নেতারা খুবই কম হয়েছে বললেও এ রাজ্যের বিষয়ে, এ রাজ্যের কর্মচারীদের জন্য তারা মুখ খুলেন না। বিজেপি সরকার ক্ষমতায় এলে প্রথম ক্যাবিনেটেই সপ্তম বেতন কমিশন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে পার্টির সর্বভারতীয় সভাপতি আগেই জানিয়ে দিয়েছেন। পার্টি এই 'সিদ্ধান্তে অনড় রয়েছে।


Copyright © 2017 আগরতলা নিউজ এক্সপ্রেস. All Rights Reserved.