• বিশ্ব বিদ্যালয়ের কাণ্ডে ক্ষুব্ধ কংগ্রেসও
  • এসকর্টের ধাক্কায় গুরুতর আহত বৃদ্ধা
  • রাজ্যে আটক তিন বিদেশী অনুপ্রবেশকারী
  • কেরালায় বিজেপি কর্মীদের পাশে দাঁড়ালো ত্রিপুরা রাজ্য কমিটি
  • বিশ্ব বিদ্যালয় কাণ্ডে বেসামাল কর্তৃপক্ষ, বহিষ্কার ১
  • কদমতলায় আবাসিকে ষষ্ট শ্রেণীর ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু, এলাকায় চাঞ্চল্য
  • গর্তে পরে শিশুর মৃত্যু
  • সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বিশ্ব বিদ্যালয়ের কার্যকলাপ নিয়ে রাজ্যপালের ক্ষোভ
  • কলঙ্কিত ত্রিপুরা বিশ্ব বিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠান
  • ভারতীয়দের ডিএনএফএ ধর্মনিরপেক্ষতা: উপরাষ্ট্রপতি
  • ত্রিপুরায় সাংবাদিক হত্যাকাণ্ডে প্রশস্থ হল সিবিআই তদন্তের পথ
  • বন্যার পর নদীর ভাঙ্গনে অস্তিত্ব সংকটে বহু মানুষ
  • স্ত্রী, সন্তানদের পুরিয়ে মারার চেষ্টা কনস্টেবলের
  • জলাশয় থেকে এক ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার, তদন্তে পুলিশ
  • জি বি বাজারে বিলেতি মদ ভাসল নর্দমায়
  • দূর্নীতি গ্রস্থ কর্মী আধিকারিকদের কড়া বার্তা মুখ্যমন্ত্রীর
  • ত্রিপুরার দ্রুত উন্নয়নে আশাবাদী কেন্দ্রীয় রাষ্ট্রমন্ত্রী
  • দ্রুত উন্নয়নের পথে ত্রিপুরার সহায় কেন্দ্র
  • উদয়পুরে উদ্ধার হল অজগর সাপ
  • ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত থেকে উদ্ধার ফেন্সিডিল এবং গাজা
  • রাজধানীতে আক্রান্ত এক যুবক
  • প্রাইভেট টিউশন শেষে বাড়ি ফেরার পথে অপহরণ স্কুল ছাত্রী
  • মঙ্গলবার থেকে সূচনা হল আগরতলায় দ্বি-সাপ্তাহিক হামসফরের
  • প্রকাশিত হল উচ্চ মাধ্যমিকের বিজ্ঞান বিভাগের ফল, পাশের হার ৮৪.৩১ %
  • চন্ডিপুর সিপিআইএম এর পার্টি অফিস থেকে অস্ত্র উদ্ধার

ইক্সক্লোসিভ ভিডিও

ঘরেই বানিয়ে নিন লাইটিং লেন্টার্ন

ত্বকের উজ্বলতার জন্য ২০টি টিপস

ডেনমার্কে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম লম্বা ডিম! দেখুন কীভাবে লম্বা ডিম পাড়ে মুরগী

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

টপ ফাইভ

00310
সমাজ কল্যাণ দপ্তরের বহু লক্ষ টাকা গায়েব, অস্থতিতে প্রশাসন

আগরতলা ১৬ই জুন (এ.এন.ই ): সমাজ কল্যাণ দপ্তরের সালেমা সিডিপিও অফিসে ২০.১৬ লক্ষ টাকার হিসাব নেই। এজির অডিটে বিষয়টি উল্লেখ করা হলেও দপ্তর আজ পর্যন্ত এই টাকা ব্যয়ের হিসাব মেলাতে পারেনি। বরাদ্দ এই অর্থে সামাজিক ভাতা দেবার জন্য দেওয়া হয়েছিল। এজির অডিটে ধরা পরে সামাজিক ভাতার জন্য বরাদ্দ ২০. ১৬ লক্ষ টাকা দপ্তরের একজন সুপারভাইজার ঊষা দাসের ব্যক্তিগত ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে জমা হয়ে গেছে। অডিট রিপোর্টে বিষয়টি ধরা পড়ার পর তিনি দপ্তরে রিপোর্ট করেছেন ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ১৭.১০ লক্ষ টাকা তিনি নগদে বিলি করেছেন। কিন্তু বাকি ৩.০৬ লক্ষ তাকা সম্পর্কে কোনও রিপোর্টিং নেই। দপ্তরে ফেরতও দেওয়া হয়নি। ঘটনা ২০১১-১২ অর্থ বর্ষের। এজি রিপোর্টে এর উল্লেখ করা হয়েছে। কিন্তু এরপর দপ্তর আজ পর্যন্ত ২০.১৬ লক্ষ টাকার সন্তোষজনক হিসাব যেমন পায়নি, তেমনি সরকারী অর্থ নিয়ে অনিয়ম করার দায়ে কারোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও গ্রহণ করেনি। এই অবস্থায় আগামী ১৯ জুন রাজ্য অডিট দপ্তরের টিম যাচ্ছে অডিট করতে। অভিযোগ, তৎকালীন সিডিপিও সন্তোষ দাসের সঙ্গে সমঝোতার ভিত্তিতে সুপারভাইজর সরকারী টাকা ব্যক্তিগত ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে জমা করেছেন। কিন্তু দপ্তর রহস্যজনকভাবে সিডিপিও এবং সুপারভাইজরের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। উল্টো সিডিপিও সন্তোষ দাসকে অন্যত্র নিরাপদ স্থানে বদলি করে কলঙ্কমুক্ত করা হয়। অভিযোগে জানা গিয়েছে, বরাদ্দ অর্থের সিংহভাগ আত্মসাৎ হয়ে গেছে। এখন দেখার বিষয় রাজ্য সরকারের অডিট টিম আর্থিক অনিয়মের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণের পথে হাটে না ঘটনা ধামাচাপা দেবার পথ বের করে।


Copyright © 2017 আগরতলা নিউজ এক্সপ্রেস. All Rights Reserved.