• নিয়মিতকরণের দাবীতে আমরণ অনশনের হুমকি সর্ব শিক্ষার শিক্ষকদের
  • ফের চালু হচ্ছে পাশ ফেল প্রথা
  • অমরপুর মহারানিস্থিত শিব বাড়িতে শিবের আরাধনা
  • শিক্ষক কর্মচারীদের বছরে আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ ৬০ হাজার টাকা, চাপে সরকার
  • রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত কুমারঘাট মহকুমা সদর
  • আগুনে পুড়িয়ে গৃহবধূকে হত্যা, ধৃত স্বামী
  • শীঘ্রই শিক্ষক-কর্মচারীদের বদলিনীতি নিয়ে মুখ খুলতে চায় বিজেপি
  • বেহাল রাস্তার দরুন বিগত তিনদিন ধরে শ্রীমন্তপুরে আমদানি রপ্তানি ব্যবসা বন্ধ
  • তিপ্রাল্যান্ডের নামে আন্দোলনকারীদের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন এন.সি দেববর্মাঃ রাধাচরণ দেববর্মা
  • ১:১ ফর্মুলায় বিধানসভার নির্বাচনে প্রার্থী দেবে বিজেপি
  • সিপিএম ঘেরাও অমরেন্দ্রনগরে
  • বিজেপিতে যোগ দিতে দিল্লীমুখি ত্রিপুরার ছয় বিধায়ক
  • বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণে অভিযুক্ত যুবক গ্রেপ্তার
  • দুর্নীতিগ্রস্ত উপাচার্যের বরখাস্তের দাবীতে বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপকদের মুখে কালো বেঁধে প্রতিবাদ
  • কেন্দ্রীয় বরাদ্দ ঠিকমত না রাজ্যে না আসায় হতাশ অর্থমন্ত্রী
  • এনসি'র ফাঁকি ধরা পরে গেলো: অর্থমন্ত্রী
  • চাকরি দেবার নামে প্রতারণা
  • ভোমরাছড়া ভিলেজের মানুষের সার্বিক উন্নতিতে এগিয়ে এলো নবম টিএসআর বাহিনী
  • দ্রুত রেল পরিষেবা চালু করতে প্রশাসনিক স্তরে তৎপরতা শুরু
  • ত্রিপুরা কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্নীতি ঢাকতে তদন্তের দায়িত্ব অভিযুক্তদের হাতেই
  • নারী নির্যাতনের দায়ে অভিযুক্ত আইনজীবী বিদ্যুৎ ঘোষের অন্তর্বর্তী জামিন
  • বিজেপি-সিপিআইএম সংঘর্ষে মৃত ১, আজ লংতরাইভ্যালি ১২ ঘণ্টার বনধ
  • রাজ্যপালের প্রশংসা, মানিককে নৈতিকতার পাঠ বিপ্লবের
  • অবরোধ প্রত্যাহারের সম্ভাবনা নিয়ে অচলাবস্থা, ভাঙনের মুখে আইপিএফটি
  • আইপিএফটির অনির্দিষ্ট কালীন সড়ক ও রেল অবরোধের দশম দিনে প্রত্যাহারের সম্ভাবনা

স্পেশাল আর্টিকেল

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

ইক্সক্লোসিভ ভিডিও

ডেনমার্কে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম লম্বা ডিম! দেখুন কীভাবে লম্বা ডিম পাড়ে মুরগী

হোলির রাতে তৃণমূল কংগ্রেস এবং বিজেপির মধ্যে সংঘর্ষের পর সাংবাদিক সন্মেলনে বিপ্লব

চিটফান্ড ইস্যুতে রাজ্য ও কেন্দ্র সরকারকে তথ্য সহ বিঁধল সুদীপ

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

ত্রিপুরা খবর

নিয়মিতকরণের দাবীতে আমরণ অনশনের হুমকি সর্ব শিক্ষার শিক্ষকদের

আগরতলা ২৪ই জুলাই (এ.এন.ই ): রাজ্যের সর্ব শিক্ষার নিযুক্ত শিক্ষকরা তাঁদের শিক্ষা দপ্তরে নিয়মিতকরনের দাবীতে প্রকল্প অধিকর্তাকে ঘেরাও করলেন। যদিও চলতি মাস পর্যন্ত সময় দিয়ে তাঁদের দাবী মানা না হলে আগামী ১লা আগস্ট থেকে আমরণ অনশনের বসার হুমকি দিয়েছে সর্বশিক্ষায় নিযুক্ত শিক্ষকরা। সোমবার দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া স্বত্তেও রাজ্যের বিভিন্ন স্থানে কর্মরত সর্বশিক্ষায় নিযুক্ত শিক্ষকরা রাজধানী আগরতলায় সর্বশিক্ষা প্রকল্প অধিকর্তা কুন্তল দাসকে ঘেরাও করেন। দীর্ঘদিন ধরে দাবী সত্ত্বেও তাঁদের দাবী পূরণ করা হচ্ছে না বলে তাঁরা অভিযোগ করেন। পরে প্রকল্প অধিকর্তা কুন্তল দাসের সঙ্গে তাঁদের আলোচনা হয় তাঁদের দাবী উদ্বর্তন কর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছে দেবার আশ্বাস পেয়ে তাঁরা ঘেরাও প্রত্যাহার করে নেন। পরে সর্বশিক্ষায় নিযুক্ত শিক্ষকদের নেতা বাস্তব দেববর্মা সাংবাদিকদের জানান তাঁদের নিয়ে ছিনিমিনি খেলা হচ্ছে। রাজ্য সরকার তাঁদের ভবিষ্যৎ সম্পর্কে সম্পূর্ণ উদাসীন। যদিও রাজ্যের শিক্ষা ব্যবস্থায় তাঁদের যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে। তিনি বলেন, চলতি মাস পর্যন্ত রাজ্য সরকারের কাছে সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে তাঁদের নিয়মিতকরণের প্রক্রিয়া গ্রহণ করা না হলে আগামী ১লা আগস্ট থেকে সর্বশিক্ষায় নিযুক্ত শিক্ষকরা আমরণ অনশনে বসবেন। রাজ্য সরকারের উদাসীনতা আর বরদাস্ত করা যাবে না। তিনি বলেন, দেশের অন্যান্য রাজ্যে এই প্রকল্পে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে আসায় শিক্ষকদের নিয়মিত করা হয়েছে। ত্রিপুরাই এর ব্যতিক্রম। শুধু তাই নয় এই প্রকল্পে দেওয়া কেন্দ্রীয় অর্থ নিয়ে বড় ধরনের দুর্নীতিও হয়েছে। নিয়মিত করার উপযুক্ত আইনি ভিত্তি থাকা সত্ত্বেও রাজ্য সরকার উপযুক্ত ব্যবস্থা নিচ্ছে না। সর্ব শিক্ষায় নিযুক্ত শিক্ষকরা দীর্ঘদিন ধরেই নিয়মিতকরনের দাবী জানিয়ে আসছিল। এবিষয়ে তাঁরা রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী থেকে শুরু করে মুখ্যমন্ত্রী পর্যন্ত বিভিন্ন সময় সাক্ষাত করে তাঁদের দাবী পেশ করেছেন। যদিও এখনো পর্যন্ত তেমন কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি।

24-07-2017 04:04:03 pm

ফের চালু হচ্ছে পাশ ফেল প্রথা

আগরতলা ২৪ই জুলাই (এ.এন.ই ): ফের চালু হচ্ছে পাশ ফেল প্রথা, ''নো ডিটেনশন পলিসি" প্রথা তুলে নেওয়া হচ্ছে বলে জানা যায়। কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী প্রকাশ জ্যাভেরেকর এমনটাই জানালেন। সংসদে এই বিলটি খুব শীঘ্রই আসছে। মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী প্রকাশ জ্যাভেরেকর বলেন, পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত যেসমস্ত ছাত্রছাত্রীরা আগামী মার্চ মাসে পরীক্ষায় অকৃতকার্য হবে, তাঁরা মে মাসে একবার পুনরায় পরীক্ষায় বসার সুযোগ পাবে। এতে পুনরায় যদিও অকৃতকার্য হয়, তাহলে তাঁকে আটকে দেওয়া হবে। বর্তমানে ''নো ডিটেনশন পলিসি" অনুযায়ী অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত ছাত্রছাত্রীদের ফেল করানো হয় না। এর ফলে ছাত্র ছাত্রীরা পরবর্তী সময় নবম ও দশম শ্রেণী পাশা করা কষ্টসাধ্য হয়ে উঠে। শিক্ষার আইনে ১৬নং ধারায় আছে অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত কোন ছাত্র ছাত্রীকে ফেল করানো যাবে না এবং কোন কারণবশত ছাত্র ছাত্রীকে শিক্ষা থেকে বহিষ্কার করা যাবে না। দেশের অধিক সংখ্যক রাজ্য বর্তমানে চায় পুনরায় পাস ফেল প্রথা চালু হোক এবং ''নো ডিটেনশন পলিসি" তুলে নেওয়া হোক।

24-07-2017 02:23:53 pm

অমরপুর মহারানিস্থিত শিব বাড়িতে শিবের আরাধনা

অমরপুর (অনিকেশ দাস) ২৪ই জুলাই (এ.এন.ই ): শ্রাবণ মাসে শিবের জন্ম মাস। এছাড়া জন্ম হয়েছিলো সোমবারে। আর শ্রাবণের প্রথম সোমবারকে শিবের জন্ম দিন ধরে রাজ্য ব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠান করা হচ্ছে শিব মন্দির গুলিতে। তারেই অঙ্গ হিসাবে অমরপুর মহকুমা শিব ভক্ত কমিটি পক্ষ থেকে এক র‍্যালি সংগঠিত করে যা মহকুমা থেকে পায়ে হেটে মহারানিস্থিত শিব বাড়িতে যান প্রায় ৪০ জনেরও বেশী ভক্ত। এই পদযাত্রায় যুবক থেকে শুরু করে মধ্য বয়সী পর্যন্ত লোক অংশগ্রহণ করেন। এই অনুষ্ঠানের পেছনে উদ্দেশ্য বলতে গিয়ে এক ভক্ত বলেন সমাজের এবং নিজের পাপ মুচনের জন্যই এই পদ যাত্রা। এছাড়া এই মাস থেকে ১৬ সোমবার শিবের পূজা করলে মনের বাসনা পূর্ণ হয় বলে মনে করেন ভক্তরা।

24-07-2017 02:02:33 pm

শিক্ষক কর্মচারীদের বছরে আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ ৬০ হাজার টাকা, চাপে সরকার

আগরতলা ২৪ই জুলাই (এ.এন.ই ): রাজ্যের সরকারী শিক্ষক কর্মচারীদের বেতনক্রম নির্ধারণে রাজ্য বামফ্রন্ট সরকার লাগাতর বঞ্চনা করে চলেছে। কেন্দ্রীয় সরকারী শিক্ষকদের থেকে প্রায় পাঁচ, ছয় ধাপ নামিয়ে বেতনক্রম নির্ধারণ করেছে রাজ্য সরকার। এই জায়গায় ফিটমেন্ট ফ্যাক্টর ২.৫৭ না দিয়ে ২.২৫ কার্যকর করার গড়ে রাজ্যের প্রত্যেক কর্মচারী বছরে বেসিকেই ৪৮ হাজার টাকা থেকে ৮ লক্ষ টাকা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। অর্থ দপ্তরের হিসেব মতো পেনশনাররা আর্থিকভাবে 'ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন গড়ে ৬ লক্ষ টাকা থেকে সাড়ে ৬ লক্ষ টাকা। সবচেয়ে বেশি আর্থিক ক্ষতির শিকার হয়েছেন যেসব কর্মচারী ২০১৬ সালের ১লা জানুয়ারী থেকে ২০১৭ সালের ৩১ মার্চের মধ্যে অবসরে গেছেন। এই সব অবসরে যাওয়া কর্মচারীরা বিভিন্ন স্তরে ৮ থেকে ২৩ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আর্থিক 'ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এদিকে অর্থদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ১লা জানুয়ারী থেকে পে-অ্যান্ড পেনশন রিভিশন কমিটির সুপারিশ কার্যকর না করায় ১৫ মাসের বর্ধিত ৭৫ হাজার ১১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বেতনের এরিয়ার পাননি শিক্ষক কর্মচারীরা। বঞ্চিত হয়েছে একটি ইনক্রিমেন্ট থেকেও। তাছাড়া তিন কিস্তি ডিএ থেকেও বঞ্চিত হয়েছেন শিক্ষক কর্মচারীরা।

24-07-2017 01:32:21 pm

রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত কুমারঘাট মহকুমা সদর

আগরতলা ২৪ই জুলাই (এ.এন.ই ): সামান্য ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে পড়েছে কুমারঘাট মহকুমা সদর। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে সিপিএমের প্রধান প্রতিপক্ষ হল বিজেপি। সিপিএম দলের অভিযোগ বিজেপির কর্মী সমর্থকরা তাঁদের সমর্থকদের উপর হামলা হুজুতি শুরু করেছে। অপরদিকে বিজেপি পাল্টা অভিযোগ এনেছে সিপিএমের কর্মী সমর্থকেরা বিজেপি কর্মীদের উপর আক্রমণ শুরু করেছে। বিজেপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে এই ঘটনায় তাঁরা বৃহত্তর আন্দোলনে নামতে পিছুপা হবে না। উল্লেখ্য দীর্ঘ বাম শাসনে এক চিলতে জমি ছাড়তে নারাজ বামফ্রন্ট। অন্যদিকে নির্বাচন যতই দোরগোড়ায় আসছে ততই বিরোধী ভোটব্যাঙ্ক বিজেপি দলের অনুকূলে যাচ্ছে বলে বিজেপি নেতৃত্ব আশাবাদী।

24-07-2017 01:29:35 pm

আগুনে পুড়িয়ে গৃহবধূকে হত্যা, ধৃত স্বামী

আগরতলা ২৪ই জুলাই (এ.এন.ই ): আগুনে পুড়িয়ে গৃহবধূকে খুনের অভিযোগ উঠলো স্বামী এবং শ্বশুর বাড়ি লোকেদের বিরুদ্ধে। এমর্মে উদয়পুর কাকড়াবন থানায় মামলা করা হয়েছে। সেই মামলার ভিত্তিতে জিবি ফাঁড়ির পুলিশ অভিযুক্ত স্বামী কে গ্রেপ্তার করেছে। ধৃত স্বামীর নাম সজল সরকার (২৮)। তাঁর বাড়ি উদয়পুরের মির্জাতে। ঘটনার বিবরণে জানা গেছে, শনিবার সন্ধ্যারাতে শ্বশুর বাড়িতে রহস্যজনকভাবে আগুনে পুড়ে যায় গৃহবধূ টুম্পা সরকার (১৯)। গুরুতর আহত অবস্থায় রাতে তাঁকে জিবি হাসপাতালে আনা হয়। রাতেই টুম্পার মৃত্যু হয়। এই ঘটনার পরই টুম্পার ভাইসহ বাপের বাড়ির লোকজন স্বামী সজল সরকার এবং শ্বশুর বাড়ির লোকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে। অভিযোগে, বিয়ের পর থেকে পণের জন্য স্বামী এবং শ্বশুর বাড়ির লোকজন টুম্পার উপর নির্যাতন করতো। টূম্পার ভাই জানায়, কিছুদিন আগে টুম্পার শ্বশুর বাড়ি থেকে চাপ দিতে থাকে যাতে 'করে বাপের বাড়ি থেকে জমি বিক্রি করে টাকা এনে দিতে। এটা না করাতেই টুম্পার স্বামী তাঁর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগায় বলে অভিযোগ। এমর্মে মামলা নিয়ে কাকরাবন থানার পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে বলে খবর।

24-07-2017 01:27:56 pm

শীঘ্রই শিক্ষক-কর্মচারীদের বদলিনীতি নিয়ে মুখ খুলতে চায় বিজেপি

আগরতলা ২৪ই জুলাই (এ.এন.ই ): অতি শীঘ্রই রাজ্য সরকারের শিক্ষক-কর্মচারীদের বিভিন্ন ইস্যুতে মাঠে নামতে চায় বিজেপি। তাঁর মধ্যে রাজ্য সরকারের বদলি নীতির বিষয়টিও থাকবে। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, রাজ্য সরকার বিভিন্ন দপ্তরে কর্মচারীদের ক্ষেত্রে মর্জি মাফিক বদলি নীতি জারি রেখে যাচ্ছে। আর্থিক দিক দিয়ে বঞ্চনার পাশাপাশি বদলি নীতি নিয়েও চূড়ান্ত রাজনীতি করে যাচ্ছে শাসকদল সিপিআইএম। এমনকি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার জেরেও বিভিন্ন প্রত্যন্ত অঞ্চলে বদলি করে কর্মচারীদের বঞ্চনার মুখে ফেলে দেওয়া হচ্ছে। এক্ষেত্রে বিজেপি দল মনে করছে, শাসকদল তাঁদের মুখ দেখে-দেখেই বদলি তালিকা তৈরি করছে ঘরে বসে। যে কারণে বহু শিক্ষক কর্মচারী এমনকি আমলারাও চাকুরী সূত্রে কর্মজীবনের রেকর্ড বুক ভালো থাকা সত্ত্বেও বছরের পর বছর রাজ্যের প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলিতে কাটাচ্ছে। অথচ শাসকদলীয় মদতপুস্ট হয়ে কিংবা হগব নেতা কর্মী হবার সুবাদে বছর পর বছর অফিস কামাই করা অনেক শিক্ষক কর্মচারীই এখন রাজধানীতে এসে দলীয় কাজে ব্যস্ত থাকছে এমনটাই অভিযোগ করে বলেছে বিজেপি নেতারা। তবে অতি শীঘ্রই এব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে। এদিকে রাজ্য সরকার পে অ্যান্ড পেনশন রিভিশন কমিটির রিপোর্ট অনুযায়ী শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন বৃদ্ধি করায়, ইতিমধ্যেই প্রথম মাসের বর্ধিত বেতন শাসকদলীয় ফান্ডে জমা দেবার যে হুলিয়া জারি করা হয়েছে তাতে তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বিজেপি। বিজেপি'র দাবী রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে ধিক্কার জানিয়ে যেখানে ৭ম বেতন কমিশনের দাবী করা হচ্ছে, সেক্ষেত্রে বেতন কমিশন না দিয়ে এধরনের হুলিয়া জারি করা তাঁদের কাছেও যথেষ্টই নিন্দনীয়।

24-07-2017 01:27:05 pm

১:১ ফর্মুলায় বিধানসভার নির্বাচনে প্রার্থী দেবে বিজেপি

আগরতলা ২৩ই জুলাই (এ.এন.ই ): রবিবার বিজেপির একদিনের রাজ্য কমিটির বৈঠক শুরু হয়েছে। বৈঠকে বিধানসভায় নির্বাচনের জন্য রণনীতি চূড়ান্ত করা হবে। সকাল ১০টা থেকে এই বৈঠক শুরু হয়েছে। ধারনা করা হচ্ছে রাত পর্যন্তই এই বৈঠক চলবে। বৈঠকের মাঝপথে রাজ্য বিজেপির সভাপতি বিপ্লব কুমার দেব সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরে জানান, আগামী বিধানসভা নির্বাচনের সিপিআইএমের বিরুদ্ধে সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। ১:১ পদ্ধতিতে লড়াইয়ের জন্য বিজেপি চেষ্টা করছে। যাতে বামবিরোধী ভাগের সুফল সিপিআইএম কুরিয়ে নিতে না পারে। তিনি আরও বলেন, বিজেপি এই রণনীতি নিয়ে আরও আগেই কাজ শুরু করেছে। এখন এক্ষেত্রে যথেষ্ট সাফল্য এসেছে। কয়েকটি ক্ষেত্রে সমস্যা থাকলেও তা দ্রুত মিটিয়ে নেওয়া হবে। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে সিপিআইএম এর পতন প্রায় সুনিশ্চিত। বিজেপির রাজ্য কমিটির বৈঠকে সব শীর্ষ স্থানীয় নেতারাই উপস্থিত রয়েছেন।

23-07-2017 03:40:36 pm

সিপিআইএমের পলিটব্যুরো কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক শুরু, সর্বাধিক প্রাধান্য ত্রিপুরা

আগরতলা ২৩ই জুলাই (এ.এন.ই ): আজ থেকে সিপিআইএমের পলিটব্যুরো বৈঠক শুরু হয়েছে। আগামীকাল থেকে তিনদিনের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক শুরু হচ্ছে। দিল্লীর এ.কে গোপালন ভবনে আয়োজিত এই বৈঠকে সর্বাধিক প্রাধান্য পাচ্ছে ত্রিপুরা সংক্রান্ত বিষয়। পলিটব্যুরো বৈঠকে যোগ দিতে গত কালকেই দিল্লী উড়ে গেছেন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার। আগামীকাল থেকে তিন দিনের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে তিনি উপস্থিত থাকবেন। কেন্দ্রীয় কমিটির বাকি সদস্যরা আজ দিল্লী গেছেন। পার্টির এক শীর্ষ স্থানীয় নেতা জানিয়েছেন, ত্রিপুরায় নির্বাচন আসন্ন। আর এই বৈঠকে সর্বাধিক প্রাধান্য পাবে ত্রিপুরা সংক্রান্ত বিষয়। পার্টির রাজ্য কমিটির এই শীর্ষস্থানীয় নেতা জানিয়েছে, পার্টি সর্বভারতীয় নেতৃত্ব মনে করে ত্রিপুরাই বামেদের এখনো শক্তিশালী ভিত। কেলারায় পার্টি ক্ষমতায় থাকলেও সাংগঠনিক শক্তি ত্রিপুরায় তুলনায় অনেকটাই দূর্বল। বামেদের জনহিত ত্রিপুরাতেই বেশী ফলে ত্রিপুরায় বিরূপ পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে জাতীয় স্তরে পার্টির অস্তিত্ব ধরে রাখাই কঠিন হয়ে যাবে ফলে পার্টির সর্বভারতীয় নেতৃত্ব ত্রিপুরায় নির্বাচনকে হালকা ভাবে নিচ্ছে না। ঐ নেতা বলেন, ত্রিপুরায় রাজনৈতিক অবস্থায় বিস্তর পরিবর্তন হয়েছে। বিজেপি প্রধান বিরোধী দল সিপিআইএমের জন্য চ্যালেঞ্জ সৃষ্টি হয়েছে। ত্রিপুরায় এর আগে কখনই এই শক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করতে হয়নি। ফলে নয়া রাজনৈতিক কৌশল নিতে হবে। জানা গেছে, ইতিমধ্যেই পার্টির সর্বনিম্ন স্তরের অঞ্চল কমিটি থেকে শুরু করে মহকুমা, জেলা হয়ে রাজ্য সম্পাদক মণ্ডলীতেও বিভিন্ন বিধানসভা কেন্দ্র ভিত্তিক সাংগঠনিক অবস্থায় বিচার বিশ্লেষণ করা হয়েছে। আর তাঁর ভিত্তিতেই কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে রাজ্যের তরফে উদ্ভূত পরিস্থিতির সম্পর্কে রিপোর্ট দ্রুত পেশ করা হবে।

23-07-2017 03:00:32 pm

জিবি'র জেনেরিক কাউন্টারে নেই পর্যাপ্ত ওষুধ, কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কাছে অভিযোগ

আগরতলা ২৩ই জুলাই (এ.এন.ই ): রাজ্যের প্রধান রেফারেল হাসপাতাল জিবিতে ঘটা করে জেনেরিক মেডিসিন কাউন্টার খোলা হলেও আজ পর্যন্ত তাতে পাওয়া যাচ্ছে না ওষুধ। জিবি হাসপাতালে পরিদর্শনে রোগীর আত্মীয় পরিজনদের অভিযোগের মুখোমুখি হন কেন্দ্রীয় ভূতল পরিবহন রাষ্ট্রমন্ত্রী মানসুখ মানধাবিয়া। এদিন ছামনুতে সিপিএম বিজেপি সংঘর্ষে আহত বিজেপি কর্মীদের দেখতে জিবি হাসপাতালে গিয়েছিলেন এই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। সেখান থেকে জেনেরিক মেডিসিন কাউন্টার পরিদর্শন পরিদর্শনে যান তিনি। সেখানে গেলেই স্বাস্থ্য পরিষেবার বেহাল চিত্র নিয়ে মন্ত্রীর কাছে ক্ষোভ উগড়ে দেন রোগীর আত্মীয় পরিজনেরা। তাঁদের অভিযোগ কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যের প্রতিটি হাসপাতালে জেনেরিক মেডিসিন কাউন্টার খুলে দিয়েছে যাতে করে সাধারণ মানুষ কম দামে ওষুধ কিনতে পারে। সেই সাথে জিবি হাসপাতালেও ঘটা করে খোলা হয়েছিল জেনেরিক কাউন্টার কিন্তু এখন পর্যন্ত পর্যাপ্ত পরিমাণে ওষুধ পাওয়া যাচ্ছে না। রোগীর আত্মীয়দের অভিযোগ প্রায় বেশির ভাগ ওষুধই খোলা বাজার থেকে কিনতে হচ্ছে 'তাঁদের। আর তাতে করে চড়া দাম দিতে হচ্ছে। সমস্ত অভিযোগ শোনার পর কেন্দ্রীয় ভূতল পরিবহণ মন্ত্রী হাসপাতালের সুপারের সাথে এবিষয়ে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে পরামর্শ দেন বলে জানা গেছে।

23-07-2017 02:57:56 pm

স্মার্ট সিটি, প্রথম কিস্তিতে ৬৫ কোটি টাকার অব্যহিত

আগরতলা ২৩ই জুলাই (এ.এন.ই ): কেন্দ্রীয় সরকারের স্বপ্নের স্মার্ট সিটি প্রকল্পে আগরতলাকে স্মার্ট সিটি বাস্তব রূপায়ন দিতে প্রথম কিস্তিতে ৬৫ কোটি টাকা দেয়া হয়েছে। কিন্তু এই অর্থ রাজ্য সরকারের হাতে এসে পৌঁছুলেও এখনো পর্যন্ত ইমপ্লিমেন্টিং এজেন্সি চূড়ান্ত করতে পারেনি রাজ্য সরকার। আর এ কারণে কাজও শুরু করা যাচ্ছে না। স্মার্ট সিটি প্রকল্পে নাগরিকদের জীবনমানের উন্নতির জন্য যে সমস্ত বিষয়কে আবশ্যিক হিসাবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে সেগুলি হল, পর্যাপ্ত পানীয় জলের সুবন্দোবস্ত করা, নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পরিষেবা প্রদান করা, পয়ঃপ্রণালী ব্যবস্থার উন্নয়ন, শহরের দরিদ্র অংশের জন্য আবাসনের ব্যবস্থা করা, গণ পরিবহন ব্যবস্থার সম্প্রসারণ, পরিবেশের উন্নয়ন, নাগরিক পরিষেবার মানোন্নয়ন, সর্বোপরি তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবস্থার সম্প্রসারণ সহ আরও একাধিক বিষয়। এই ব্যবস্থায় আগরতলা শহরের সমস্ত যানবাহনে বিশেষ করে অটো-রিকশা, ই-রিকশায় এবং টাউন বাসগুলিতে জিপিএস, জিপিআরএস ব্যবস্থা স্থাপন, স্মার্ট ট্রাফিক সিগনালিং ব্যবস্থা, বিভিন্ন স্তরের যানবাহনের জন্য পার্কিং ব্যবস্থা, টেলি মেডিসিন ব্যবস্থা চালু করতে হবে। স্মার্ট সিটি প্রজেক্টের অন্যতম শর্ত রয়েছে শহরের মোট প্রয়োজনীয় বিদ্যুৎতের ১০ শতাংশ যোগানের ব্যবস্থা করতে হবে সৌরশক্তি থেকে। আর সেই অনুযায়ী আগরতলা শহরে একটি ২ মেগাওয়াটের সৌরশক্তি সম্পন্ন বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করতে হবে। প্রকল্পের শর্ত অনুযায়ী আগামী তিন বছরের মধ্যে স্মার্ট সিটি প্রকল্পের কাজ সম্পূর্ণ করতে হবে। সেইমত কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যকে প্রথম কিস্তিতে ৬৫ কোটি টাকা দিয়ে দিয়েছে। ইতিমধ্যে কয়েকমাস অতিক্রান্ত হয়ে গেলেও রাজ্য সরকার এখনো এজেন্সির নামই চূড়ান্ত করতে পারেনি। এজেন্সি চূড়ান্ত করে এরপর সমস্ত কাজ একসাথে শুরু করে নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে কাজ সম্পূর্ণ করা আদৌ কতটা সম্ভব হবে তা নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা। আগরতলা পুর নিগম সূত্রে জানা গেছে, রাজ্য সরকার এই স্মার্ট সিটি প্রকল্পটি নিয়ে খুব বেশি আগ্রহ দেখাতে চাইছে না। তাঁর প্রধান কারণ কেন্দ্র রাজ্যের শেয়ার নিয়ে দ্ব্যর্থ। যদিও রাজ্য সরকার এরমধ্যে স্মার্ট সিটি প্রকল্প রূপায়নের জন্য শর্ত অনুযায়ী আগরতলা স্মার্ট সিটি লিমিটেড নামে একটি কোম্পানি গঠন করেছে। কিন্তু সরকারের এই ধীরে চলো নীতির কারণে এই প্রকল্পের কাজের কোনও অগ্রগতিই দেখা যাচ্ছে না বলে তথ্যাভিজ্ঞ মহলের অভিমত।

23-07-2017 02:54:57 pm

সিপিএম ঘেরাও অমরেন্দ্রনগরে

আগরতলা ২৩ই জুলাই (এ.এন.ই ): সিপিএমের শান্তি-সম্প্রীতির মিছিলকে কেন্দ্র করে অশান্তি ছড়াল বিশ্রামগঞ্জ থানাধীন অমরেন্দ্রনগরে। আইপিএফটিকে কটাক্ষ করে স্থানীয় বিধায়ক বক্তব্য রাখতেই ক্ষুব্ধ আইপিএফটি সমর্থকরা এদিন বিধায়ক সমেত শাসক দলীয় কর্মী-সমর্থকদের ঘেরাও করে ফেলে। যদিও ঘটনাস্থলে পুলিশ উপস্থিত থাকায় ঘটনা বেশিদূর এগুতে পারেনি। তবে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত রাস্তা অবরোধ করে রাখে আইপিএফটি। ঘটনার বিবরণে জানা গেছে, শনিবার বিকেল ৩টা নাগাদ গোলাঘাটির বিধানসভা কেন্দ্রের অমরেন্দ্রনগরে আয়োজন করা হয়েছিল সিপিএমের উদ্যোগে একটি শান্তি মিছিল। মিছিলের পর সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে প্রধান 'বক্তা ছিলেন এই কেন্দ্রের বিধায়ক কেশব দেববর্মা। এছাড়াও ছিলেন সিপিআইএমের সিপাহীজলার জেলা কমিটির সম্পাদক গোরা চক্রবর্তী। ভাষণ চলাকালে আইপিএফটিকে কটাক্ষ করে কিছু বলতেই আশেপাশে থাকা এই দলের কর্মীরা সিপিএমের সভাকে ঘেরাও করে ফেলে। এরপর দুই দলের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে। উপস্থিত পুলিশ কর্মীরা তখন উভয় পক্ষকে নিরস্ত্র করার চেষ্টা করে। পুলিশের হস্তক্ষেপে তখন সেখানে বড় ধরনের অঘটন না ঘটলেও মাঝপথেই শাসক দলের শান্তিসভা ভণ্ডুল হয়ে গেছে। এই পরিস্থিতিতে বিশালগড়ের এসডিপিও প্রবীর পাল সহ টিএসআর বাহিনী নিয়ে রাস্তা অবরোধমুক্ত করেন। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে।

23-07-2017 02:35:59 pm

বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণে অভিযুক্ত যুবক গ্রেপ্তার

আগরতলা ২২ই জুলাই (এ.এন.ই ): খোয়াই থানার প্রত্যন্ত অঞ্চলের এক আদিবাসী যুবতি কে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে খোয়াই শহরের এক যুবক ধর্ষণ করেছে। ধর্ষণ কার্য শেষ করে ঐ যুবক শুধু পালিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে বর্তমানে। গত ১২ জুলাই খোয়াই থানার পুলিশ অভিযোগ হাতে পেয়ে খোয়াই গণকীর বাসিন্দা রাজেন্দ্র দাসের ছেলে রাজেশ দাসের সন্ধানে নামে। তিন দিনের মাথায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খোয়াই থানার পুলিশ জানতে পারে আগরতলা রামনগর এলাকায় রাজেশ দাস এক ভাড়া বাড়িতে অবস্থান করছে। সেই খবরের ভিত্তিতে খোয়াই থানার পুলিশ সাদা পোশাকে রামনগর ফাঁড়ি থানায় সহযোগীতায় বৃহস্পতিবার রাতে রামনগরের এক ভাড়া বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে রাজেশ দাসকে। পুলিশ ধৃত রাজেশ দাসের বিরুদ্ধে ৩৭৬, ৪১৭ এবং ৩২৩ ধারার আদালতে নিয়ে যায়। এদিকে নির্যাতিতা যুবতিটি জানায় যে ২০১২ সালে খোয়াইর গণকিতে রাজেন্দ্র দাসের বাড়িতে ভাড়া থেকে শহরে কম্পিউটার শিখত। তাঁদের বাড়িতে ভাড়া থাকার সুবাদে রাজেশ দাস ১০ই মে ২০১২ ইং রাতে বল পূর্বক তাঁর ভাড়া ঘরে ঢুকে ছুরি দেখিয়ে তাঁকে ধর্ষণ করে। ঘটনার পর যুবতিটি আইনের দ্বারস্থ হতে চাইলে রাজেশ নাকি তাঁকে কথা দেয় যে তাঁকে বিয়ে করবে। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেওয়াতে যুবতিও আর আইনের দরজায় যায়নি। দীর্ঘদিন ধরে তাঁকে ভোগ করে আসার পর রাজেশ হঠাৎ তাঁকে ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে বলে যুবতিটির অভিযোগ। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ঐ যুবতিকে ভোগ করে খোয়াই ছেড়ে আগরতলার রামনগরে একটি ভাড়া বাড়িতে থাকতে শুরু করে। বহু সন্ধানের পর কিছুদিন পূর্বে নির্যাতিতা যুবতি রাজেশের সন্ধান পায় আগরতলা রামনগরে রয়েছে। তাঁর পরই সে ১৭ জুলাই রাজেশের বিরুদ্ধে খোয়াই থানায় একটি মামলা করে যার কেইস নাম্বার ৫৭/১৭। এই ঘটনায় খোয়াই শহরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পরে।

22-07-2017 02:22:49 pm

কেন্দ্রীয় বরাদ্দ ঠিকমত না রাজ্যে না আসায় হতাশ অর্থমন্ত্রী

আগরতলা ২২ই জুলাই (এ.এন.ই ): কেন্দ্রীয় বরাদ্দ ঠিকমত না রাজ্যে না আসায় হতাশ রাজ্যের অর্থমন্ত্রী ভানুলাল সাহা। মন্ত্রীর কথায়-পরিকল্পনা খাতের টাকা ঠিকমতো না আসায় জরুরি কাজগুলি করা যাচ্ছে না। কর্মচারীদের জন্য যে আর্থিক দায়ভার নিয়েছে রাজ্য সরকার এরপর থেকে একটা আর্থিক অনিশ্চয়তার মুখেই রাজ্য পরতে চলেছে বলে কার্যত স্বীকার করে নিয়েছেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, পরিকল্পনার অর্থ না আসায় রাস্তাঘাট সংস্কার কিংবা নতুন রাস্তা, বিল্ডিং নির্মাণের মত জরুরী কাজ করা যাচ্ছে না। তবে কেন্দ্রীয় অর্থ না পাওয়া নিয়ে অর্থমন্ত্রীর বক্তব্যে হতাশা থাকলেও ১ জুলাই থেকে দেশজুড়ে চালু হওয়া জিএসটি নিয়ে প্রকারান্তরে স্বস্থির কথাই শোনা গেল। এ নিয়ে রাজ্যের ব্যবসায়ীদের ধারনা স্পষ্ট না হলেও জিএসটি রেজিস্ট্রেশনের হার যথেষ্ট সন্তোষজনক বলেই প্রকারান্তরে জানিয়েছেন তিনি। অর্থমন্ত্রী জানিয়েছেন, এখন পর্যন্ত ত্রিপুরাতে ১৪ হাজারের মত ব্যবসায়ী জিএসটি রেজিস্ট্রেশন করিয়েছেন। রাজ্য সরকারের ধারনা আরও দুই হাজারের মত ব্যবসায়ী রেজিস্ট্রেশনের আওতায় আসবে। জিএসটি নিয়ে রাজ্যের ব্যবসায়ীরা ধিধা ধন্ধে ভুগলেও রেজিস্ট্রেশনের হার যথেষ্ট সন্তোষজনক বলেই উল্লেখ করেছেন অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, ত্রিপুরাতে যে সমস্ত ব্যবসায়ীর বছরে ১০ লক্ষ টাকার ব্যবসা হচ্ছে তাঁদেরকেই জিএসটি'র আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে। অর্থমন্ত্রী ভানুলাল সাহার বক্তব্য-আগে বছরে তিন লক্ষ টাকার ব্যবসা করলেই ব্যবসায়ীদের বিক্রয় কর দিতে হত। জিএসটি'র ফলে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ব্যবসার ক্ষেত্রে কর ছাড় দেওয়া হয়েছে। তিনি জানান, বছরে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ব্যবসা করেন এমন ব্যবসায়ীরা সংখ্যা রয়েছে ৭০ শতাংশ।

22-07-2017 02:18:31 pm

এনসি'র ফাঁকি ধরা পরে গেলো: অর্থমন্ত্রী

আগরতলা ২২ই জুলাই (এ.এন.ই ): টানা ১০ দিন ত্রিপুরা অবরুদ্ধ ছিল ৪৪ নং জাতীয় সড়ক। ১১ দিনের মাথায় রাজ্যসরকার খামতিং বাড়ি এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করতেই আইপিএফটি তাঁরা তাঁদের আন্দোলন তুলে নেয়। এই পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকার কেন আগেই এই এলাকায় ১৪৪ ধারা প্রয়োগ করেনি তা নিয়ে সমালোচনার সরব হয়েছে বিভিন্ন মহলে। রাজ্য সরকার জেন জাতীয় সড়ককে অবরোধমুক্ত করতে আগেই ১৪৪ ধারা জারি করেনি সেই বিষয়ে অর্থমন্ত্রী ভানুলাল সাহা বলেন, আইপিএফটি কর্মীদের বুঝিয়ে শুনিয়েই গণতান্ত্রিক আন্দোলন প্রত্যাহারে বিশ্বাসী ছিল সরকার। এজন্য ধৈর্য্য ধরেছে সরকার। তিনি বলেন, এই আন্দোলনের নামে শান্তি বিঘ্নিত করার চেষ্টা হয়েছিল। কিন্তু সরকার খুব ধৈর্যের সাথে পরিস্থিতির মোকাবিলা করেছে। রাজ্য সরকার তাঁদের বোঝাতে সক্ষম হয়েছে। এ কারণেই শান্তিপূর্ণ উপায়ে জাতীয় সড়ক অবরোধমুক্ত করা গেছে। তিনি আরও বলেন, রাজনৈতিক দলই সরকার গঠন করে। নির্বাচনী ইশতেহারে দল শান্তি ও নিরাপত্তার প্রতিশ্রুতি রেখেছিল। এই কারণেই সরকার কোনও অশান্তির পথে হাটতে চায়নি। তিপ্রাল্যান্ড ইস্যুতে এন সি দেববর্মা কর্মীদের সাথে মিথ্যা কথা বলেছেন বলে অভিযোগ করেন অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, কর্মীদের কাছ থেকে বাচতে তিনি ককবরককে বলেছেন, তিপ্রাল্যান্ডের দাবি মেনে নিয়েছে কেন্দ্র। তাছাড়া তিনি জানান, ১০ দিনের এই পথ অবরোধের ফলে রাজ্যের অর্থনীতির তেমন কোনও ক্ষতি হয়নি বলে জানান ভানুলাল সাহা।

22-07-2017 02:16:58 pm

চাকরি দেবার নামে প্রতারণা

কুমারঘাট ২২ই জুলাই (এ.এন.ই ): কুমারঘাট মহকুমাধীন ফটিকরায়ে চাকরি দেবার নামে শাসক দলের এক হতদরিদ্র যুবকের অর্থ আত্মসাৎতের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পরে। ঘটনার অভিযোগে জানা গেছে, শাসক দলের কর্মী জয়ন্ত মালাকার নামে এক যুবক কয়েক মাস পূর্বে টিএসআর পদে চাকরি পাবার শর্তে মোটা অংকের টাকা দিয়েছে রাজনগর পঞ্চায়েতের প্রধান তপন ধরকে। কিন্তু টিএসআর পদে চাকরি ছাড়ার পর তালিকায় নাম না থাকায় যুবকটি দিশেহারা হয়ে পরে। সে ছুটে যায় রাজনগর পঞ্চায়েতের প্রধান তপন ধরের বাড়িতে। চাকরি কেন আসেনি জানতে চাইলে সে তপন ধরের কাছ থেকে কোন প্রকার সদুত্তর পায়নি। বরং চাকরি ছাড়া হয়নি বলে জানান প্রধান। চাকরি না হলে বিকল্পে ঋণ পাইয়ে দেওয়া হবে বলে আশ্বাস দেন। কিন্তু অর্থ দেওয়ার ব্যাপারটা গোপন রাখার জন্য বলে। এদিকে যুবকটি অর্থের সন্ধান করলে প্রধান জানান, পঞ্চায়েত সমিতির ভাইস চেয়ারম্যানকে আর্ধেক দিয়েছে। বাকি অর্থ চাকরির জন্য খরচা হয়েছে। ছেলেটি পঞ্চায়েত সমিতির ভাইস চেয়ারম্যান সঞ্জয় ভট্টাচার্যের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করে। কিন্তু সেখানেও কোন সঠিক জবাব পায়নি। এক্ষেত্রে ধৈর্য্যের বাধ ভেঙ্গে যায় জয়ন্ত মালাকারের। তাঁর একটাই বক্তব্য, অর্থ যখন নিয়েছে তাঁর চাকরি দিতেই হবে। এই ঘটনায় শাসক শিবির ঘরে বাইরে দিশেহারা হয়ে পরেছে। এখন ঘটনাটি কে ধামাচাপা দিতে উঠে পরে লেগেছে শাসক শিবির। শাসক দলের এই কর্মকাণ্ড নিয়ে মহকুমা জুড়ে শুরু হয়েছে গুঞ্জন।

22-07-2017 02:14:12 pm

ভোমরাছড়া ভিলেজের মানুষের সার্বিক উন্নতিতে এগিয়ে এলো নবম টিএসআর বাহিনী

শান্তিরবাজার (নিজেস্ব প্রতিনিধি) ২১ই জুলাই (এ.এন.ই ): মানুষের নিরাপত্তা সঙ্গে সঙ্গে ভোমরাছড়া ভিলেজের মানুষের সার্বিক উন্নতির লক্ষ্যে এগিয়ে এলেন নবম টিএসআর বাহিনীর জওয়ানরা। অমরপুর মহকুমার ভোমরাছড়া ভিলেজের লেবাছড়া স্কুল ছাত্র ছাত্রীদের মধ্যে ছাতা বিতরণের সাথে সাথে স্কুল মাঠে গাছ লাগানো হয় নবম টিএসআর বাহিনীর পক্ষ থেকে। টিএসআর বাহিনীর এই উদ্যোগে খুব খুশি স্কুলের ছাত্র ছাত্রীরা এবং শিক্ষক শিক্ষিকারা। টিএসআরের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানায় স্বাস্থ্য কর্মী রমজান হোসেন। তিনি বলেন টিএসআরের এই উদ্যোগের ফলে এলাকার মানুষেরা উপকৃত হবেন। নতুনবাজার থেকে মুক্ত দয়াল হয়ে তুলারাম পাড়া পর্যন্ত রাস্তাটি আরও ভাল হলে এলাকায় আরও উন্নত হবে বলে মন্তব্য করেন ভোমরা ভিলেজের ভাইস চেয়ারম্যান সূর্যমণি চাকমা। পাশাপাশি তিনি টিএসআরের এই ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করেন।

21-07-2017 03:16:22 pm


Copyright © 2017 আগরতলা নিউজ এক্সপ্রেস. All Rights Reserved.