• চলে গেলেন বামফ্রন্টের আভ্যায়ক খগেন দাস
  • নির্বাচন কমিশনের কাছে বিজেপির একগুচ্ছ দাবি
  • কর্মচারীদের কাজ থেকে নির্বাচনী তহবিলে অর্থ, অভিযোগ নির্বাচন কমিশনে
  • শাসক দলের অনুগতদের নির্বাচনী দায়িত্ব থেকে সরানোর দাবি বিজেপির
  • নির্বাচনী কর্মকাণ্ডের চূড়ান্ত রূপ দিতে আসছেন রাম মাধব
  • বিজেপিতে সামিল তৃণমূল শ্রমিক সংগঠনের সর্বভারতীয় নেতা
  • সিপিআইএম এর প্রার্থী তালিকা নিয়ে জল্পনা কল্পনা
  • রাজনৈতিক দলকে চাঁদা দেওয়া কর্মচারীদের নিরপেক্ষতা নষ্ট করে: সিইও
  • রাজ্যে এল আরো কেন্দ্রীয় আধা সামরিক বাহিনী
  • ত্রিপুরার প্রধানমন্ত্রীর সফরসূচি পিছিয়ে গেছে
  • আজও বেঁচে আছে রেডিও
  • আজও বেঁচে আছে রেডিও
  • নির্বাচনের কারণে পিছানো হতে পারে মধ্যশিক্ষা পর্ষদের পরীক্ষা
  • শাসক দলের হয়ে কাজ করতে গিয়ে জনরোষের মুখে পুলিশ
  • চূড়ান্ত ভোটার তালিকা রূপায়নে গড়মিলে অভিযুক্তদের সাজা হবে: সিইও
  • রাজনৈতিক সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের রূপ কমলপুর
  • বিজেপি-আইপিএফটির জোট চূড়ান্ত
  • ত্রিপুরায় ইস্যুতে সরগরম, সিপিআইএম এর কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক
  • নির্বাচন ঘোষণা অভূতপূর্ব চ্যালেঞ্জের মুখে দারিয়ে বাম নেতৃত্ব
  • সিপিআইএম থেকে বেরিয়েই বিস্ফোরক মন্তব্য নৃপেন সঙ্গী
  • ভুয়ো ভোটার নিয়ে পুনরায় নির্বাচন কমিশনে যাবে বিজেপি
  • রাজ্যে ভোট ১৮ই ফেব্রুয়ারি। গণনা ৩ মার্চ
  • http://www.agartalanewsexpress.com/news/topfive/get.php?id=1663
  • আইপিএফটির সঙ্গে জোট নিয়ে চূড়ান্ত আলোচনা গুয়াহাটিতে বৃহস্পতিবার

ইক্সক্লোসিভ ভিডিও

ঘরেই বানিয়ে নিন লাইটিং লেন্টার্ন

ত্বকের উজ্বলতার জন্য ২০টি টিপস

ডেনমার্কে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম লম্বা ডিম! দেখুন কীভাবে লম্বা ডিম পাড়ে মুরগী

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

ত্রিপুরা খবর

00310
0057
0057
0057
0057
১০,৩২৩ চাকরীচ্যুতদের আস্থা অর্জন করল কেন্দ্রীয় সরকার

আগরতলা, ১০ই জানুয়ারি (এ.এন.ই ): রাজ্যের ১০,৩২৩ চাকরীচ্যুত শিক্ষকের চাকরিতে পুনঃনিয়োগে কেন্দ্রীয় সরকার পদক্ষেপ নিতে শুরু করেছে। রাজ্য 

বিজেপি নেতাদের এই ঘোষণায় চাকরীচ্যুতদের মধ্যে 'এখন লালের বদলের গেরুয়া আভা প্রকট হয়ে উঠেছে।
বিজেপি বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মণ জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় সরকার অবশ্যই কিছু ব্যবস্থা করবেন। আর এই 'বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকার পদক্ষেপ নিতেও শুরু করেছে। 

কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী চাকরিচ্যুতদের বক্তব্য তার উপস্থিতিতেই শুনেছেন এবং যথেষ্ট সহানুভূতিশীল চাকরীচ্যুতদের বিষয়ে। 
বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মণ বলেন, এতে কোন সন্দেহ নেই যে চাকরীচ্যুতদের অধিকাংশই শাসক দলের অনুগত। তবে এদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা 

যথেষ্ট মেধাবী এবং উপযুক্ত যোগ্যতাও রয়েছে। রাজ্য সরকারের অনৈতিক পদক্ষেপের কারণে এদের সকলের চাকরি গেছে। চাকরি যাওয়ার পেছনে তাদের 

কোন দোষ নেই। ত্রুটি রাজ্য সরকারের। রাজ্য সরকারকেই এখন তাদের দায়িত্ব নেওয়া উচিৎ ছিল। কিন্তু পাশে আছি বলে এখন কেটে পরেছে। ফলে 

চাকরীচ্যুতরা বামফ্রন্ট সরকারের উপর বীতশ্রদ্ধ। 
সুদীপ রায় বর্মণ বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার ইতিমধ্যেই ১০,৩২৩ শিক্ষকের বিষয়ে উপযুক্ত পদক্ষেপ নিয়েছে। সংশ্লিষ্ট ফাইলটি এখন আইন মন্ত্রকের কাছে আইনি 

বিষয় গুলি খতিয়ে দেখা হবে। আর এরপরই 'কেন্দ্রীয় সরকার পরবর্তী পদক্ষেপ নেবেন। 
সুদীপ রায় বর্মণ আরো জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে তার নিয়মিত আলাপ আলোচনা হচ্ছে। একেই সঙ্গে চাকরীচ্যুতদের প্রতিনিধির 

সঙ্গে কার্যবার্তা হচ্ছে। ফলে তাদের মধ্যে কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে। আবার বামপন্থি নেতা মন্ত্রীদের উপর তাদের দীর্ঘদিনের আস্থা নষ্ট 

হয়েছে। রাজ্যের বিজেপির নেতাদের এতদিন যে কথা বলে আসছিলেন তার গুরুত্বও তারা বুঝতে পারছেন। যদিও বিজেপি রাজনৈতিক 'স্বার্থের ঊর্ধ্বে উঠে 

সংশ্লিষ্ট বিষয়ে কার্যকরী পদক্ষেপ নিচ্ছে।  


Copyright © 2017 আগরতলা নিউজ এক্সপ্রেস. All Rights Reserved.