• ইভিএম বিভ্রাট নিয়ে কংগ্রেস তাক করলো বিজেপির দিকে
  • বিপ্লব কুমার দেবের সঙ্গে ফোনে কথা বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী
  • দ্বিতীয়ার্ধে ভোট গ্রহণের অনিয়ম ঠেকাতে বিশেষ পর্যবেক্ষকের সঙ্গে বিজেপির বৈঠক
  • সবার মতাধিকার সুনিশ্চিত করলেন সিইও
  • ত্রিপুরায় ভোটে ভিলেন সাজলো ইভিএম
  • ১৮ ত্রিপুরা বিধানসভা নির্বাচন
  • ১৮ ত্রিপুরা বিধানসভা নির্বাচন
  • ১৮ ত্রিপুরা বিধানসভা নির্বাচন
  • চিরাচরিত পোষাকে ভোট দিলেন রিয়াং জাতিগোষ্ঠীর মহিলারা
  • শান্তিরবাজার দুটি বিধানসভা কেন্দ্রেই উৎসবের মেজাজে চলেছে ভোট গ্রহণ
  • রাজ্যের বিভিন্ন কেন্দ্রে উঠেছে ইভিএম নষ্টের অভিযোগ
  • ভোট দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার
  • আধাসামরিক বাহিনীর কড়া নজরদারীর মধ্য দিয়ে চলছে ভোটগ্রহণ
  • শান্তিরবাজারে ভোটগ্রহণ শুরু
  • বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে ইভিএম মেশিন খারাপ, পরে নতুন মেশিন এনে ভোট গ্রহণ শুরু
  • ১৮ বিধানসভায় ৫৯টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ শুরু
  • তেলিয়ামুড়ায় মহিলা ভোটার দের মধ্যে চকলেট বিতরন
  • নির্বাচনের লক্ষ্যে পোলিং এজেন্টদের নির্দিষ্ট গন্তব্যস্থলের উদ্দেশ্যে রওনা

ইক্সক্লোসিভ ভিডিও

ঘরেই বানিয়ে নিন লাইটিং লেন্টার্ন

ত্বকের উজ্বলতার জন্য ২০টি টিপস

ডেনমার্কে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম লম্বা ডিম! দেখুন কীভাবে লম্বা ডিম পাড়ে মুরগী

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

ত্রিপুরা খবর

00310
0057
0057
0057
0057
পরবর্তী বিজেপির সরকারের কর্মসূচির সংক্ষিপ্ত বিবরণ দিলেন অমিত শাহ

আগরতলা, ১২ই ফেব্রুয়ারি (এ.এন.ই ): বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পরে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উদ্যোগ নেবে। পুলিশ যাতে নিরপেক্ষ ভাবে কাজ 

করতে পারে তার জন্য সব ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হবে। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ সাংবাদিকদের সঙ্গে বার্তালাপে এই আশ্বাস দিয়েছেন। 

তিনি বলেন, বর্তমানে রাজ্যে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি খুবই খারাপ। তিনি আশা ব্যক্ত করেন নির্বাচন কমিশন প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ নেবে। তিনি বলেন, 

পুলিশকে শাসক দলের নিয়ন্ত্রণ মুক্ত করে কাজ করতে দেওয়া হচ্ছেনা। ফলে রাজনৈতিক অপরাধ, খুন, মহিলা সংক্রান্ত অপরাধ উপযুক্ত বিচার পাচ্ছেনা 

ক্ষতিগ্রস্তরা। রাজ্যের হাল ফেরানোর জন্য বিজেপি সরকার প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থাদি নেবে। 
তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার ঠালাও করে রাজ্যকে অর্থ দিয়েছে। কেন্দ্রে নরেন্দ্র মোদী সরকার আশার পর চতুর্দশ অর্থ  কমিশনের মাধ্যমে বরাদ্দ অর্থের 

'পরিমাণ চার গুন বৃদ্ধি করে প্রায় ১৮ হাজার কোটি টাকা দিয়েছে। তাছাড়া বিভিন্ন প্রকল্প যে গুলি রাজ্য সরকার প্রণয়ন করে সেসব ক্ষেত্রে ৯০০ কোটি টাকা 

দিয়েছে। কিন্তু এর কোন সুফল রাজ্যের জনগণ পায়নি। যদিও কেন্দ্রীয় সরকার উজ্জ্বল যোজনা সহ বিভিন্ন প্রকল্প সরাসরি বাস্তবায়নও করেছে। তিনি বলেন, 

রোজভ্যালি চিটফান্ডের অর্থ কারা গায়েব করেছে তা সকলেই জানে। বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর এদের রাজনৈতিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে উপযুক্ত শাস্তি 

দেওয়া হবে। তাছাড়া বর্তমান রাজ্য সরকারের অনিয়মের কারণে চাকরীচ্যুত ১০,৩২৩ শিক্ষকের সাংবিধানিক কাঠামোর মধ্যেই চাকরি সুনিশ্চিত করা হবে। 

এরাজ্যে কংগ্রেস ক্ষমতাসীন সিপিআইএম এর সহায়ক গোষ্ঠী হয়ে কাজ করছে। বাম বিরোধী ভোট বিভাজনের জন্য এরা সক্রিয় রয়েছে। কৃষকদের তাদের 

ফসলের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের নির্ধারিত সহায়ক মূল্যে উৎপাদিত পণ্য ক্রয় করা হবে। 
তিনি উল্লেখ করেন ৪ মার্চ থেকে ত্রিপুরায় নতুন যুগের সূচনা হবে। কোন ধরনের বিভাজনের সৃষ্টি কিংবা অস্থিরতা সৃষ্টির চেষ্টায় সফল হবেনা। 


Copyright © 2017 আগরতলা নিউজ এক্সপ্রেস. All Rights Reserved.