শিশু ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডে আমবাসা থানা এলাকায় চাঞ্চল্য, গ্রেপ্তার ২
শিশু ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডে আমবাসা থানা এলাকায় চাঞ্চল্য, গ্রেপ্তার ২

আগরতলা ১৬ ফেব্রুয়ারি (এ.এন.ই): শিশু ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তারের দাবিতে শনিবার সকাল থেকেই পানিসাগর থানা এলাকায় বিক্ষোভ সৃষ্টি হয়। জানা গেছে, এলাকার সাধারণ মানুষ এই ঘটনার সাথে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তারের দাবি জানায়। তাদের দাবি অবিলম্বে যে এই জঘন্য কাজ করেছে সেই নরপিচাষকে গ্রেপ্তার করে উপযুক্ত শাস্তি দিতে হবে। জানা গেছে,এই ঘটনার সাথে যুক্ত সন্দেহে দুইজন গ্রেপ্তার করেছে এবং তাদেরকে জিজ্ঞেসাবাদ করছে। পুলিশ আরও জানিয়েছে, এই ঘটনায় একটি মামলা লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। মামলার নম্বর ০৯/২০১৯ ভারতীয় দণ্ডবিধি ৩৭৬ (ক)(খ) এবং ৩০২ ধারা অনুযায়ী মামলা নথিভুক্ত করা হয়েছে। জানা গেছে, ঘটনার তদন্ত করছেন এসআই গুরুপদ দেবনাথ। উল্লেখ্য, পানিসাগর থানাধীন জলাবাসার এসআরআই ইট ভাট্টার রাজনিল কারকো নামে সারে ৪ বছরের এক শিশুর খোজে পাওয়া যাচ্ছিলোনা। অনেক খোঁজাখুঁজির পর ইট ভাট্টা থেকে ২০০ মিটার দূরে জুরি নদীর জলে পাওয়া যায় সাড়ে ৪ বছরের রাজনিলের নিথর দেহ। খবর পানিসাগর থানায়। ঘটনাস্থলে ছুটে যায় পানিসাগর থানার পুলিশ। ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুলিশ জল থেকে রাজনিলের নিথর দেহ উদ্ধার করে ময়না; তদন্তের জন্য পাঠায়। পরে ;ময়না তদন্তের শেষে রাজনিলের দেহ তার পরিবারের হাতে তুলে দেয় আমবাসার থানার পুলিশ। এদিকে এলাকায় মানুষের বয়ান অনুযায়ী জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাতে ইটভাট্টায় ছিল ডেরাপূজা। আর এই পূজা কেন্দ্র করে ইটভট্টায় বসে ছিল ;মদের আসর। এরমধ্যে কোন নরপিচাষ সারে চার বছরের শিশুটিকে প্রথমে ধর্ষণ তার পরে খুন করে জুরি নদীর জলে ভাসিয়ে দেয়। জানা গেছে, এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। 

আরো পড়ুন

Advertisement