মৌসুমী দাসের খুনের মামলা নিলো পুলিশ
মৌসুমী দাসের খুনের মামলা নিলো পুলিশ

আগরতলা ৪ মার্চ (এ.এন.ই): শেষ পর্যন্ত মৌসুমী দাস হত্যাকাণ্ডের তেলিয়ামুড়া থানার পুলিশ নড়েচড়ে বসল। মূলত গৃহবধূর বাপের বাড়ি লোকেদের চাপে এই ঘটনার রিপোর্ট দায়ের করতে বাধ্য হয় পুলিশ। জানা গেছে, রবিবার রাতে গৃহবধূ মৌসুমী দাসের হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে মৌসুমী দাসের বাপের বাড়ির লোকেরা। তারা তেলিয়ামুড়া থানায় পুলিশের কাজে জানায় বিয়ের কিছুদিনের  পর থেকেই মেয়ের ;জামাই এবং শ্বশুরবাড়ির অন্যান্য সদস্যরা তাদের মেয়ের উপর অকথ্য নির্যাতন করতো। শুধু তাই নয় মানসিক ও শারীরিক 'নির্যাতন করতো। এদিন থানায় মৌসুমীর বাপের বাড়ির লোকেরা মৌসুমীর স্বামী পরমেশর দাস, শ্বশুর রবীন্দ্র দাস দেবর ওম  প্রকাশ দাস এবং শাশুড়ি অঞ্জলি দাসের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। থানা সূত্রে জানা গেছে,  নিহত গৃহবধূ বাবা দিলীপ দাসের অভিযোগমূলে পুলিশ ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৯৮ (এ) /৩০২ এবং ৩৪ ধারায় মামলা রুজু  করেছে। জানা গেছে, অভিযুক্ত পলাতক। তবে অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নেমেছে। পুলিশ জানিয়েছে অবিলম্বে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হবে। উল্লেখ্য, গত শুক্রবার গভীর রাতে তেলিয়ামুড়া ইচারবিল এলাকার গৃহবধূ মৌসুমী দাসের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে তেলিয়ামুড়া থানার পুলিশ। যদিও সেই সময় থেকে মৌসুমীর বাপের লোকেরা বলে আসছিল তাদের মেয়েকে গলা টিপে হত্যা করা  হয়েছে। কিন্তু তখন লিখিত ভাবে অভিযোগ দায়ের না করায় পুলিশ কোন মামলা নেয়নি। কিন্তু রবিবার মৌসুমীর বাপের লোকেদের চাপে পরেই শেষ পর্যন্ত পুলিশ অভিযোগ নিতে বাধ্য হয় এবং তদন্ত শুরু করে। 


আরো পড়ুন

Advertisement