LATEST UPDATE

নির্বাচনী সন্ত্রাসের বাতাবরণ সৃষ্টি শান্তিরবাজার মহকুমার বিভিন্ন এলাকায়

শান্তিরবাজার (নিজেস্ব প্রতিনিধি) ৫ এপ্রিল (এ.এন.ই): আসন্ন লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজ্যের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রচারভীযান জোরদার হয়ে উঠেছে। জানা গেছে, নির্বাচনী প্রচার নিয়ে শান্তির বাজার মহকুমার বিভিন্ন জায়গায় নির্বাচনী সন্ত্রাসের বাতাবরণ সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনার বিবরণে জানা যায় বৃহস্পতিবার রাত্রে শান্তির বাজার মহকুমার অন্তর্গত তাকমাছরা শরণ দেববর্মা পাড়ায় দুস্কৃতিকারীরা বিজেপি সমর্থীত কর্মীদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এই হামলায় বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মী গুরুতর আহত হন। জানা গেছে, অভিযোগের তীর সি পি আই এম সমর্থিত কর্মীদের উপর। জানা গেছে, ঘটনার সময়ে বিজেপি কর্মীরা নির্বাচনী উঠানসভা সেরে বাড়ী ফিরছিলেন। এমন সময় আচমকা বেশ কয়েক জন দুষ্কৃতিকারী বিজেপি কর্মী সমর্থকদের উপর আক্রমণ চালায়। দুস্কৃতিকারীদের আক্রমণে দুই জন বিজেপি কর্মী গুরুতর আহত হয় ও তিন জন কর্মী নিখোঁজ বলে জানা যায়। এই আক্রমণে রঞ্জিত দেববর্মা ( ৩৭ ) ও রতন সাহা ( ৩৬ ) নামে দুই ব্যক্তি গুরুতর আহত হন।  আহত ব্যক্তিরা বর্তমানে শান্তির বাজার জেলা হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় আছে। অন্যদিকে দুর্ঘটনার পরবর্তী সময় জিতেন নোয়াতিয়া ( ৩৫ ), অনন্ত দেববর্মা ( ৪৯ ), মনোহরি দেববর্মা (৪৮ ) নামে তিনজন ব্যক্তি নিখোঁজ বলে জানা যায়।  অপরদিকে নির্বাচনী সন্ত্রাস কায়েম রাখতে একইদিনে রাত্রে মনপাথর বাজারে নকুল দেবনাথের বই দোকানে ও বিষ্ণুপদ ভৌমিকের স্টেশেনারি দোকানে অগ্নিকান্ড সংযোগ করে দুষ্কৃতিকারীরা। দুই দোকানদার বিজেপি সমর্থিত কর্মী বলে জানা যায়।  দুর্ঘটনার পর আহতদের দেখার জন্য জেলা হাসপাতালে ছুটে যান  ৩৬ শান্তির বাজারের বিধায়ক প্রমোদ রিয়াং, শান্তির বাজার পৌর পরিষদের ভাইস চেরায়ম্যান সত্যব্রত সাহা ও অন্যান্য নেতৃত্ব বৃন্দ।  অগ্নি কাণ্ডের খবর শুনে পুনরায় মনপাথর বাজারে ছুটে যান বিধায়ক, ভাইস চেয়ারম্যান ও অন্যান্য নেতৃত্ব বৃন্দ। দুর্ঘটনাস্থ স্থান পরিদর্শনের পর সংবাদ মাধ্যমের সামনে সম্পূর্ণ ঘটনার কিছু তথ্য তুলে ধরেন শান্তির পৌর পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সত্যব্রত সাহা। তিনি জানান টি টি এডিসির ক্রীড়া ও যুব কল্যাণ দপ্তরের মন্ত্রী পরিক্ষিত মুড়াসিং এর নেতৃত্বে পরিকল্পনা মাফিক এই সংঘর্ষের কাজ শুরু করা হয়। তিনি এও জানান পূর্বে পরিক্ষিত মুড়াসিং এর নেতৃত্বে বিজেপি কর্মীর উপর আক্রমণ ও বিজেপি পার্টি অফিস ভাংচুর করা হয়।  এইব্যাপারে শান্তির বাজার থানায় লিখিত অভিযোগ জানালেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি।  এই নিয়ে সত্যব্রত সাহা শান্তির বাজারের এস ডি পি ও নির্দেশ দেবের কার্যকলাপে এক রাশ ক্ষোভ উগড়ে দেন।  উনার অভিমত নির্দেশ বাবু সবকিছু জেনেও ঠুটু জগন্নাথের ভূমিকা পালন করছেন।  অপরদিকে এই অগ্নি কাণ্ডে দুই দোকানে আনুমানিক ৫ লক্ষটাকা ক্ষতি হয়েছে বলে জানা যায়।  অগ্নি কাণ্ড সম্পর্কে এলাকাবাসী জানান ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেওয়া হলেও ফায়ার সার্ভিস সঠিক সময়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পৌঁছায়নি। অগ্নিকান্ডের দীর্ঘ ১ঘন্টা ৩০ মিনিট অতিক্রান্ত হবার পর দমকল বাহিনীর লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে পৌঁছেছে বলে জানা যায়। এলাকাবাসির অভিমত ফায়ার সার্ভিস যদি সঠিক সময়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হতো তাহলে আগুন কিছুটা আনা যেতো। একইদিন রাত্রে পর পর দুই ঘটনার তিব্র নিন্দা জানান বিজেপি সমর্থিত কর্মীরা।  উনারা ঘটনার সুষ্ঠ তদন্তের দাবি তুলছেন। এখন দেখার বিষয় ঘটনার সুষ্ঠ তদন্তে প্রষাসন কি প্রকার পদক্ষেপ গ্রহন করেন। 

আরো পড়ুন

Advertisement