• অমরপুর-গন্ডাছড়া সরকে এক অজ্ঞাত পরিচয় যুবকের রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার, তদন্তে পুলিশ
  • শীঘ্রই পুনরায় চালু হচ্ছে বন্ধ হয়ে যাওয়া জাইকা প্রকল্পের কাজ: মুখ্যমন্ত্রী
  • দেশের উন্নতি, রাজ্যের উন্নতি হতে গেলে বিভেদ নয় হিন্দু-মুসলিম এবং জাতি-উপজাতির মধ্যে ঐক্য গরে তোলা: সুশান্ত চৌধুরী
  • কাশীপুর এলাকায় পথ দুর্ঘটনায় আহত মা ও ছেলে, গ্রেপ্তার গাড়ির চালক ও সহ চালক
  • অগ্নিদগ্ধ হয়ে গর্ভবতী এক নাবালিকার মৃত্যু
  • আগরতলার মাস্টারপাড়া থেকে গ্রেফতার কুখ্যাত নেশা কারবারি
  • ধর্মনগর দেওছড়ায় যান দুর্ঘটনায় মৃত ২, আহত ২
  • মননের বিকাশের জন্য বই পরা প্রয়োজন: মুখ্যমন্ত্রী
  • স্কুলের ভিতরে মদের বোতল দেখে বেজায় ক্ষুব্ধ শিক্ষামন্ত্রী
  • ক্রাইম ব্রাঞ্চের আইজির দায়িত্ব নিতে চলেছেন আইপিএস রাজীব সিং
  • মহাকরণে চালু হল বায়োমেট্রিক সিস্টেম
  • রক্তের অভাবে মারা গেল একটি শিশু
  • রাজ্যে প্রচণ্ড দাবদাহে মৃত্যু ১
  • হাওড়া নদীতে চৌদ্দ দেবতার অবগাহনের মধ্য দিয়ে থেকে শুরু হল ৭ দিন ব্যাপী ঐতিহ্যবাহী খার্চি উৎসব
  • প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনায় খুশির হাসি ফুটলো গৃহিণীদের মুখে
  • ধলাই জেলায় শিক্ষার সামগ্রিক উন্নয়নে পর্যালোচনা সভা
  • শীঘ্রই আগরতলায় চালু হচ্ছে রেডিও ট্যাক্সি পরিষেবা
  • শিক্ষামন্ত্রীর কড়া বার্তায় থরথরি কম্প স্কুল শিক্ষক শিক্ষিকাদের
  • হোস্টেলে ছাত্রীর মৃত্যু নিয়ে রহস্যে
  • লেফুঙ্গায় বিএসি চেয়ারম্যানের বদল নিয়ে বৃহত্তর আন্দোলনের হুঙ্কার আইপিএফটির
  • জিরানিয়া থানার পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৫০ কেজি গাজা উদ্ধার
  • গৌমতী নদীতে চৌদ্দ দেবতার অবগাহনের মধ্য দিয়ে শুরু হল ৭ দিন ব্যাপী ঐতিহ্যবাহী খার্চি উৎসব
  • চার বছর অতিক্রান্ত, আজও সরকারী সাহায্য থেকে বঞ্চিত নিহতদের পরিবার
  • সিধাই মুয়াবাড়ি এলাকায় ফেরিওয়ালা হত্যাকাণ্ডে ধৃত আরো ২ যুবক
  • সরকারী নিয়মকে অগ্রাহ্য করে চলছে তিনের অধিক যাত্রী পরিবহন

ইক্সক্লোসিভ ভিডিও

ঘরেই বানিয়ে নিন লাইটিং লেন্টার্ন

ত্বকের উজ্বলতার জন্য ২০টি টিপস

ডেনমার্কে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম লম্বা ডিম! দেখুন কীভাবে লম্বা ডিম পাড়ে মুরগী

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

জাতীয় খবর

00310
0057
0057
0057
0057
আদালতে নির্ধারিত হতে পারে রাজেশ ও নুপূর তলোয়ারের ভাগ্য

এলাহাবাদ, ১২ অক্টোবর (এ.এন.ই ): ২০০৮-এর ১৫ মে গভীর রাতে নয়ডায় নিজের শোয়ার ঘরে খুন হয়ে যায় ১৪ বছরের আরুষি তলোয়ার। মূল সন্দেহভাজন ছিল পরিচারক হেমরাজ। কিন্তু পরদিন ভোর থেকে তাকে পাওয়া যাচ্ছিল না। দুদিন পর বাড়ির ছাদ থেকে উদ্ধার হয় হেমরাজের রক্তাক্ত দেহ। এই মামলায় বৃহস্পতিবার নির্ধারিত হতে পারে আরুষির বাবা মা রাজেশ ও নুপূর তলোয়ারের ভাগ্য। মেয়ে আরুষি ও পরিচারক হেমরাজকে খুনের অপরাধে তাঁরা যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত হন। সেই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে যান তাঁরা। তাঁদের অভিযোগ, সিবিআই ভুল তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধীকে ছেড়ে দিয়েছে। এই মামলারই এদিন রায়দান হতে পারে।খুনের কিছুদিনের মধ্যেই প্রশ্ন ওঠে উত্তরপ্রদেশ পুলিশের তদন্ত পদ্ধতি নিয়ে। পরিস্থিতি দেখে রাজ্যের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী মায়াবতী তদন্তের ভার সিবিআইকে দেন। কিন্তু তাতেও তদন্তে উল্লেখযোগ্য কিছু পরিবর্তন আসেনি। সিবিআইয়ের একটি তদন্তকারী দল অভিযুক্ত সাব্যস্ত করে চিকিৎসক দম্পতি রাজেশ ও নুপূরের কমপাউন্ডার কৃষ্ণ ও প্রতিবেশীদের ২ কাজের লোক রাজকুমার আর বিজয় মণ্ডলকে। কিন্তু তাদের চার্জশিট দিতে না পারায় ছাড়া পেয়ে যায় ৩ জনই। উল্টোদিকে সিবিআইয়েরই অন্য একটি তদন্তকারী দল অভিযোগের আঙুল তোলে আরুষির বাবা মায়ের দিকে। কিন্তু যথেষ্ট তথ্যপ্রমাণ হাতে না থাকায় আদালতে ক্লোজার রিপোর্ট দেয়। এই রিপোর্টের বিরোধিতা করেন তলোয়ার দম্পতি, বিরোধিতা করে গাজিয়াবাদের বিশেষ সিবিআই আদালতও। ঘটনাস্থলে মেলা প্রমাণের ভিত্তিতে আরুষির বাবা মায়ের বিরুদ্ধে তদন্ত চালানোর নির্দেশ দেয় তারা। আরুষি ও হেমরাজকে খুনের দায়ে ২০১৩-য় তাঁদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এই মুহূর্তে তাঁরা গাজিয়াবাদের দাসনা জেলে বন্দি।


Copyright © 2017 আগরতলা নিউজ এক্সপ্রেস. All Rights Reserved.